আহমাদিয়া মাদ্রাসায় শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিন পালিত

হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কনিষ্ঠ পুত্র শহীদ শেখ রাসেলের ৫৯ তম শুভ জন্মদিন তথা শেখ রাসেল দিবস যথাযোগ্য মর্যাদায় পালন ও আবারো টানা দ্বিতীয় বারের মতো নির্বাচিত জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওসমান গনি পাটওয়ারীর আগমন উপলক্ষে১৮ অক্টোবর মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুর শহরের আহমাদিয়া ফাজিল ( ডিগ্রি) মাদ্রাসার আয়োজনে নানা কর্মসূচি পালিত হয়।

শুরুতেই মাদ্রাসার প্রবেশপথের সামনের দেয়ালে শেখ রাসেল দেয়ালিকার ফিতা কেটে উম্মেচন করেন জেলা পরিষদের পূনরায় নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং এ মাদ্রাসার প্রতিষ্ঠাতা পরিবারের অন্যতম সদস্য ও গভর্নিং বডির প্রতিষ্ঠাতা সদস্য আলহাজ্ব ওসমান গনি পাটওয়ারী।

শুরুতেই মাদরাসার শিক্ষার্থীরা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারীকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে তিনি শেখ রাসেল স্মরণে মাদরাসার আয়োজনে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন। মাদরাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মোঃ ইকবাল হোসেন পাটোয়ারীর সভাপতিত্বে আলোচনায় আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী তিনি তাঁর বক্তব্যে বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেল হলেন বঙ্গবন্ধুর ৫ ছেলে মেয়ের মধ্যে সর্ব কনিষ্ঠ । ১৯৭৫ সালে ১৫ আগষ্ট কালো রাতের অন্ধকারে নর ঘাতকরা ১০ বছরের শিশু রাসেলকেও নির্মমভাবে খুন করেছে।

সেদিনের পৃথিবীর এই নিষ্ঠুরতম ও জঘন্যতম হত্যাকান্ড বাঙালিকে কাঁদিয়েছে,পৃথিবীর মানুষকে কাঁদিয়েছে। মা বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মজিব সেদিনের এই মাসুম বাচ্চাকে বাঁচাতে পেছনের দরজা দিয়ে ঠেলে দিয়েছিলেন বাড়ির কাজের লোকসহ। কিন্তু ঘাতকের দৃষ্টি এড়াইনি! তারা রাসেলকে গুলি করে হত্যা করে।

তিনি বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হাসু আপা বলে ডাকতো রাসেল । বাবা মা ভাইবোনদের সবার আদরের ছিলো রাসেল। আজ শেখ রাসেল বেঁচে থাকলে দেশের বড় একজন রাজনীতিক নেতা থাকতেন কিংবা দেশপ্রেমে উদ্ভুদ্ধ হয়ে জাতির পিতার সোনার বাংলা গড়ার ক্ষেত্রে যে কোন পেশায় থেকে জনমানুষের সেবায় নিজেকে নিয়োজিত করতে পারতেন। তোমরা তাঁর সুফল পেতে।

আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, জীবনের লক্ষ্যে পৌছতে হলে নিজেকে সুশিক্ষিত করতে হবে। আদব কায়দা শিষ্টাচার শিখতে হবে। নৈতিক শিক্ষা অর্জন করতে হবে।

তিনি বলেন, আমার প্রয়াত দাদা আমার প্রয়াত পিতাসহ আমাদের সকল পূর্ব পুরুষরাই এ মাদরাসাসহ অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সেবায় ছিলাম। আল্লাহ আমাকে যতোদিন বাঁচিয়ে রাখেন ততোদিন আমি মানুষের সেবা, দ্বীনি সেবা করে যাবো।

তিনি আবারও চাঁদপুর জেলা পরিষদে নির্বাচিত হওয়ায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। কৃতজ্ঞতা প্রকাশ কটেন জনপ্রতিনিধি ভোটারসহ চাঁদপুরবাসী, স্থানীয় প্রশাসনসহ সকল শ্রেনি পেশার মানুষের কাছে। দোয়া চান সবার কাছে।

বক্তব্য শেষে শেখ রাসেল দিবস উপলক্ষে রচনা প্রতিযোগিতায় প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থান অধিকারী বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার তুলে দেন প্রধান অতিথি।

পুরস্কার বিতরণ শেষে মিলাদ ও দোয়া পরিচালনা করেন মাদ্রাসার সহকারী অধ্যাপক (অবঃ) আলহাজ্ব মাওলানা মোঃ আব্দুল মান্নান।

দোয়া ও মোনাজাত শেষে সকলের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মিষ্টিমুখ করান নবনির্বাচিত জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী ।

আরবি প্রভাষক মাওলানা মোহাম্মদ জহিরুল ইসলামের সঞ্চালনা পবিত্র কুরআন থেকে তেলাওয়াত করেন নবম শ্রেণির ছাত্র মোঃ মাহদী হাসান।

হামদ পরিবেশনা করেন অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া আক্তার ও পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী নিহা আক্তার। এছাড়া তিনি সকল শিক্ষক কর্মচারীদের সাথে কুশল বিনিময় করেন।

শেয়ার করুন: