ডাক্তার মনিরুল ইসলাম আর নেই

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা.মনিরুল ইসলাম মারা গেছেন (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। সোমবার (১৬ জানুয়ারি) ভোররাতে হৃদরোগে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৪৫ বছর। হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. এএইচএম সুজাউদ্দৌলা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ডা. মনিরুল ইসলাম ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চাঁদপুরের বাসায় মারা গেছেন। সকালে তার প্রথম জানাজা চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতাল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়।

ডা.মনিরুল ইসলাম কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার নগরপাড় এলাকার সিরাজুল ইসলামের বড় ছেলে। চার ভাইবোনের মধ্যে তিনি সবার বড়। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, এক কন্যা ও এক ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তার স্ত্রী ডা. শারমিন সিদ্দিকী চাঁদপুর শহরের গ্রিন লাইফ ডায়াগনস্টিক সেন্টারে কর্মরত আছেন।

মনিরুল ইসলাম কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে থেকে এমবিবিএস পাস করেন। ২৪তম বিসিএসে উত্তীর্ণ হয়ে চাকরিতে যোগদান করেন। ২০০৯ সাল থেকে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি বিভাগে কর্মরত ছিলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার নগরপাড় এলাকায় দুপুরে দ্বিতীয় জানাজা শেষে ডা. মনিরুল ইসলামকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।

এদিকে ডা.মনিরুল ইসলামের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা.একেএম মাহাবুবুর রহমান ও সিভিল সার্জন ডা.মোহাম্মদ শাহাদাৎ হোসেন। তার মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে চাঁদপুর শহর ও জেনারেল হাসপাতালে শোকের ছায়া নেমে আসে।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের এক রোগী জানান, গতকাল তিনি আমার চিকিৎসা দিয়েছেন। আজ সকালে জানতে পারলাম তিনি মৃত্যুবরণ করেন। খুবই খারাপ লাগল । আল্লাহ তাকে বেহেস্ত নসিব করুন।

চাঁদপুর সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আল আমিন জানান,মহান আল্লাহ তায়ালা মনির ভাইকে জান্নাতবাসী করুন,আমিন।ওনি নিজে একজন চিকিৎসক এবং খুবই ভালো চিকিৎসক ছিলেন। মৃত্যু এমন বিষয় যার স্বাদ সবাইকে নিতে হয়। এটা বয়স চিনে না,চিনে না ডাক্তার না কিংবা কুলি।

স্থানীয় সাংবাদিক সালাম আজাদ জুয়েল জানান, মনিরুল ইসলাম একজন মানবিক ডাক্তার ছিলেন। তিনি অনেক ঝকির্পূন অপারেশন করছেন। তিনি গরীব অসহায় রোগিদের জন্য কাজ করেছেন। আমরা তার মৃত্যুতে শোকাহত।

বাংলাদেশ প্রাইভেট হাসপাতাল ক্লিনিক এন্ড ডায়াগনস্টিক ওনার্স এসোসিয়েশন চাঁদপুর জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জিএম শাহীন জানান,২৫০ শয্যা চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের সার্জারি কনসালটেন্ট মেধাবী চিকিৎসক ডাঃ মোঃ মনিরুল ইসলাম ছিলেন। তার জন্মস্থান কুমিল্লা হলেও তিনি চাঁদপুরের মানুষকে আপন করে নিয়েছেন। তিনি অনেক জটিল অপরেশন তার হাত দিয়ে হয়েছিল। তার মৃত্যুতে এজেলার মানুষ ভাল একজন চিকিৎসককে হারিয়ে। সু-চিকিৎসা সেবা এ জেলার হাজারো মানুষ পেয়েছে। বহু বছর বেঁচে থাকবেন এখানের মানুষের হৃদয়ে। আকস্মিক চলে যাওয়া সত্যি বড্ড কষ্টের।মহান আল্লাহ তাকে জান্নাতের উচ্চ মাকামে স্থান দিক।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি গিয়াসউদ্দিন জানান, ডা: মনিরুল ইসলাম খুবই ভাল মন ও ভাল মানের ডাক্তার ছিলেন। সাধারণ মানুষকে খুবই ভালবাসতেন। আজ থেকে প্রায় ২বছর আগে পাইস অপারেশন করেছেন। তিনি আমাকে আন্তরিকতার সাথে চিকিৎসা দিয়েছেন। তার চিকিৎসা নেয়ার পর আমি সুস্থ্য হই। এক কথায় বলতে পারি তিনি একজন মানবিক ডাক্তার তার তুলনা হয় না। তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। আল্লাহ তাকে কবরে জান্নাতবাসি করুন।

২৫০ শয্যা বিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের চিকিৎসক হিমেল জানান,তাঁর মৃত্যুতে আমরা শোকাহত । তিনি একজন মানবিক মানুষ ছিলেন। তাঁর মৃত্যু মেনে নেয়ার মতো না। আমরা একজন ভাল মানুষ হারিয়েছি। কাছের মানুষ ছিলেন। আপদে- বিপদে পাশে থাকতেন। রোগি বান্ধন ছিলেন।

হাসপাতালের আরেক আরএমও ডা: আসিবুল আহসান চৌধুরী জানান, তিনি খুব ভাল মনের একজন মানুষ ছিলেন। সার্জারী বিভাগের একজন চিকিৎসক। মানবিক ডাক্তার ছিলেন । তার মৃত্যুতে আমরা শোকাহত।

শেয়ার করুন: