অ্যাম্বুলেন্সে মাদক পাচারের ঘটনায় চালক আটক

সংবাদদাতা:

প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেয়া অ্যাম্বুলেন্সে করে মাদক পাচারের ঘটনায় চান্দিনা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। চাঁদপুরের ‘আঞ্জমানে খাদেমুল ইনসান’কে প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে দেয়া সেই অ্যাম্বুলেন্সের চালক ও অজ্ঞাত একজনকে আসামী করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দায়ের করেছে চান্দিনা থানা পুলিশ। গতকাল সন্ধ্যার পর চাঁদপুর থেকে অ্যাম্বুলেন্স চালক সুজনকে আটক করে নিয়ে হেছে পুলিশ।

মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান। তিনি জানান, বুধবার সন্ধ্যা ৭টায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ৩৬ (১) সরণীর ১৪ (গ)/২৬/৪১ ধারায় একটি মামলা হয়েছে। মামলার নং-৭। মামলায় অজ্ঞাতনামা হিসেবে আসামি করা হয়েছে অ্যাম্বুলেন্সের পলাতক চালক ও তার সহযোগীকে।

চান্দিনা থানার অফিসার ইনচার্জ আরিফুর রহমান জানান, মাদক ব্যবসায়ী চক্রকে আটক করতে আমরা কঠোর অবস্থানে রয়েছি। এর সাথে জড়িত কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বুধবার বিকেলে কুমিল্লা থেকে ঢাকাগামী একটি বেপরোয়া গতির অ্যাম্বুলেন্স হঠাৎ মাইক্রোকে ধাক্কা দেয় এবং নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে স্থানীয় ব্রিকস ফিল্ড সংলগ্ন খালে পড়ে যায়। এ সময় স্থানীয় জনতা অ্যাম্বুলেন্সে থাকা চালকসহ অন্যদের উদ্ধার করতে এগিয়ে এলে অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরে কোনো মানুষজন দেখতে পাননি। তখন স্থানীয় জনতা অ্যাম্বুলেন্সে ভর্তি অনেকগুলো কার্টুনের মধ্যে থাকা একটি ছেঁড়া কার্টুনের ভেতর বেশ কিছু ফেনসিডিল দেখে। তখন তারা জরুরি সেবা নম্বর ৯৯৯ ফোন করে জানান বিষয়টি।

খবর পেয়ে চান্দিনা থানা পুলিশ ও ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। খাদে পড়ে থাকা অ্যাম্বুলেন্সের ভেতরে থেকে ৬০৯ বোতল ফেনসিডিল জব্দ করে পুলিশ। অ্যাম্বুলেন্সটি উদ্ধার করে চান্দিনা থানা পুলিশের হেফাজতে নিয়ে যাওয়া হয়।

ইলিয়টগঞ্জ হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ মাসুদ আলম জানান, মানব সেবার অ্যাম্বুলেন্সে করে একটি চক্র দীর্ঘদিন যাবত ফেন্সিডিল পরিবহন করতো। এখন চক্রটি ধরা পড়বে হয়তো।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, সড়ক দুর্ঘটনার কবলে পড়া অ্যাম্বুলেন্সটি চাঁদপুরের আঞ্জুমান খাদেমুল ইনসান নামে একটি সেবামূলক সংগঠনের। ওই সংগঠনটি চাঁদপুর জেলা সদরে কাজ করে। আঞ্জুমানে খাদেমুল ইনসানকে অ্যাম্বুলেন্সটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুদান হিসেবে দিয়েছেন। কিন্তু অ্যাম্বুলেন্সটি পরিচালিত হতো বাণিজ্যিকভাবে। চিহ্নিত জুয়াড়ি এক মাদক ব্যবসায়ী সফিককে দিয়ে এই অ্যাম্বুলেন্সটি বাণিজ্যিকভাবে পরিচালনা করা হতো। সেই সাথে অ্যাম্বুলেন্সে করে পাচার হতো অবৈধ ফেন্সিডিলসহ নানা মাদক।

আঞ্জুমানের জেলা সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে রয়েছেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক । তিনি বলেছেন অ্যাম্বুলেন্সে ফেন্সিডিল বহনের বিষয় তিনি জানতেন না, তবে অ্যাম্বুলেন্স দুর্ঘটনার খবর শুনেছেন ।

অনুসন্ধানে জানা যায়,চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের বিশ্বস্ত কর্মী হিসেবে পরিচিত সদর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক সফিক গাজী একজন এই অ্যাম্বুলেন্স পরিচালনা করতো। প্রধানমন্ত্রীর দেয়া এই অ্যাম্বুলেন্সটি সাধারণ মানুষ বিনা ভাড়ায় ব্যবহার করতে পারতো না বল্লেই চলে। এই অ্যাম্বুলেন্স ব্যবহার করে সফিকসহ একটি চক্র মাদক পরিবহন করতো বলেও অভিযোগ উঠেছে।

এদিকে বুধবার সন্ধ্যায় চান্দিনা থানা পুলিশ চাঁদপুর এসে অভিযান চালিয়ে অ্যাম্বুলেন্স চালক সুজনকে আটক করে নিয়ে গেছে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.