আওয়ামী লীগ নেতা ভুট্টু হত্যার প্রধান আসামি সোহাগ আটক : পূর্বের আটক ৩ জন রিমান্ডে

নিজস্ব প্রতিবেদক :

চাঁদপুর সদরের শাহমাহমুদপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সহ-সভাপতি আজিজুর রহমান ভুট্টু হত্যা মামলার প্রধান আসামী হামিদুর রহমান সোহাগ খান (৩৮) আটক করেছে পুলিশ।

মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টায় চেয়ারম্যানঘাট এলাকা থেকে তাকে আটক করেন মডেল থানার ইন্সপেক্টর (অপারেশন এন্ড কমিউনিটি পুলিশিং) মোরশেদুল আলম ভূঁইয়ার নেতৃত্বে একদল পুলিশ। সাথে ছিলেন মামলার আইও এসআই রাশেদুজ্জামান।

পুলিশ জানায়, তাকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। বুধবার রিমান্ডের আবেদন করা হবে আদালতে। তার বাড়ি কুমারডুগি এলাকায়।

এর আগে মঙ্গলবার দুপুরে ভুট্টু হত্যা মামলার গ্রেফতার হওয়া ৩ আসামীর ৩ দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে ভার্চুয়াল আদালত। আসামীরা হলেন মো. মুনসুর খান (৩৫), মোস্তফা খান কালু (৪৯) ও মো. সুমন খান (৩৫)।

মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুর সিনিয়র চীফ জুডিসিয়্যাল মেজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. কামাল হোসেন ৩ দিনের এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) রাশেদুজ্জামান জানান, তিনি ভুট্টু হত্যা মামলার এজাহার নামীয় গ্রেফতার হওয়া ৩ আসামীকে জিজ্ঞাসাবাদে জন্য ৭ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন। ভার্চুয়াল আদালত ৩ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন।

জানা গেছে, গত ১৮ মে দিবাগত রাতে কুমারডুগি নিজ বাড়িতে যাওয়ার পথে আজিজুর রহমান ভুট্টুকে পথিমধ্যে দুর্বৃত্তরা দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসার পথে তার মৃত্যু হয়।

এই ঘটনায় পরদিন ১৯ মে ভুট্টুর স্ত্রী চাঁদপুর মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করে।

এই মামলায় এজাহার নামীয় আসামীদের মধ্যে মো. মুনসুর খান, মোস্তফা খান কালু ও মো. সুমন খানকে গত ২০ মে ভোরে চাঁদপুর মডেল থানা ও গোয়েন্দা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে গ্রেফতার করে। পরে তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়। আদালত তাদের জামিন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়। মামলা নং ১৬/২০ এবং ভার্চুয়াল মামলা নং ২৬৮/২০।

বাদী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট সেলিম আকবর ও অ্যাডভোকেট ইয়াছিন আরাফাত ইকরাম। আসামী পক্ষের আইনজীবী ছিলেন আবদুল আজিজ।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *