আমরা শ্রীলংকার সাথে আগের তুলনায় ভাল খেলেছি : বিসিবি পরিচালক

নিজস্ব প্রতিনিধি :

‘আমার মনে হয় টি-টুয়েন্টিতে আমাদেরকে আরও স্মার্ট হতে হবে। আমরা যে ভুল করি তা অন্যান্য দলগুলো অনেক কম করে। শেষ ম্যাচে আমরা নো বল, ওয়াইড বল-এ অনেক রান দিয়েছি। তবে বোলিং করলে নানান কারণে এটি হতে পারে। এগুলো কমিয়ে আনতে হবে এবং যত কম করবো আমরা তত বেশি ম্যাচ জিততে পারবো।’

চাঁদপুর স্টেডিয়ামে (২সেপ্টেম্বর) শুক্রবার দুপুরে বিসিবি কাউন্সিলর কাপ টি-২০ ক্রিকেট টুনামেন্টের উদ্ধোধন অনুষ্ঠান শেষে বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক ও বিসিবি পরিচালক আকরাম খান এসব কথা বলেন।

আকরাম খান বলেন, আমার আগে শ্রীলংকা সাথে প্রথমে হেরে যেতাম । এখন আগের তুলনায় ভাল খেলেছি। আমরা শ্রীলংকার সাথে ফিল্ডিং মিস করার কারনেই হেরেছি। আমরা বাজে ফিল্ডিংর কারনে হারতর হয়েছে। আমরা মিসটেকে কমাতে পারছিনা যখনই আমরা কমাতে পারব তখনই আমরা ভাল খেলতে পারব।

তিনি আরও বলেন, ‘একটি বিষয় আমার ভালো লেগেছে যে আগের ম্যাচের চেয়ে শেষ ম্যাচে ব্যাটসম্যানরা ভালো করেছে। ম্যাচটি পুরোপুরি আমাদের আয়ত্বে ছিল। তবে শেষ দুই-তিনটি ওভারে আমরা হেরে গেছি। এভাবে যদি পারফর্ম করতে পারি তাহলে দিনে দিনে আমাদের খেলা আরও উন্নত হবে।’

তিনি বলেন, চাঁদপুরে অনেক ভাল খেলোয়াড় আছে । এখান থেকে অনেক ভাল খেলোয়াড় তৈরি হয়েছে। চাঁদপুর জেলার যেই স্টেডিয়াম আছে সেটা তারা বছরে চার-পাঁচ মাস ব্যবহার করতে পারে। কিন্তু আজকে শিক্ষামন্ত্রীর সাথে আমাদের কথা হয়েছে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে ওনারা ভালো জায়গার ব্যাবস্থা করে দিবে। আমি ক্রিকেট বোর্ডের মাধ্যমে মাঠ তৈরি করে দিবো । একটি ক্রিকেট খেলার মাঠ যদি এখানে থাকে তাহলে তারা ১২ মাস খেলেতে পারবে। এতে তারা ভাল সুযোগ-সুবিধা লাভ করবে। আরো ভাল খেলোয়াড় আসবে । আজকে এ খেলার মাধ্যমে খেলোয়াড় ভাল তৈরি হবে।

তিনি আরো , চাঁদপুর স্টেডিয়ামে এর আগেও আমি খেলোয়াড় হিসেবে এসেছিলাম। এই জেলাটি ইলিশের জেলা হিসেবে যেমন পরিচিতি পেয়েছে একদিন এ জেলার ক্রিকেটারদের কারণে চাঁদপুর আরো পরিচিত পাবে।

আকরাম খান আরো বলেন, চট্টগ্রামের ১১ টি জেলার মধ্যে চাঁদপুরের ক্রিকেট অনেক দুর এগিয়েছে। এই জেলা থেকে আরো ভালো ক্রিকেটার তৈরি করতে হলে নিয়মিত প্র্যাকটিসের ব্যবস্থা করতে হবে। আর যদি নতুনভাবে মাঠের ব্যবস্থা করা হয় তাহরে ক্রিকেটাররা সারা বছরই অনুশীলন করতে পারবে।

চাঁদপুর স্টেডিয়ামে উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি এমপি। সভাপতিত্ব করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান।

জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবুর পরিচালনায় উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান,চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন প্রমুখ ।

চাঁদপুর ক্রিকেট খেলোয়াড় কল্যান সমিতির আয়োজনে এ টুনামেন্টে অংশ নিয়েছে ২৪ টি দল। নকআউট পদ্ধতির এ খেলায় উদ্ধোধনী দিনে অংশ নেয় শাহারাস্তি ক্রিকেট একাডেমী চাঁদপুর বনাম স›দ্বীপ ক্রিকেট একাডেমী চট্টগ্রাম।

শেয়ার করুন: