ইউপি মেম্বার জেলহাজতে

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥

সদ্য সমাপ্ত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা প্রার্থীদের সহিংসতায় সরকারি কাজে বাঁধা সৃষ্টির অভিযোগে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়েরকৃত মামলায় চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ ৯ নং বালিয়া ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের মেম্বার জাহিদ খানকে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়।

জানা যায়,গত বছরের ১১ নভেম্বর চাঁদপুর সদর উপজেলার বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের দিন ৭৬ নং উত্তর বালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রে প্রিজাইডিং অফিসার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন অগ্রনী ব্যাংক চাঁদপুরের সিনিয়র অফিসার মোঃ আলমগীর তপাদার। ঐদিন সকাল ১১ টার দিকে ফুটবল মার্কার মেম্বার প্রার্থী জাহিদুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে ৮০/৯০ জন সমর্থক প্রতিদ্বন্দ্বী মুরগী মার্কার সমর্থকদের উপর হামলা করে বেআইনি জনতাবদ্ধ হয়ে সরকারি ব্যালট পেপার ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

এসময় প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারগণ বাঁধা প্রদান করলে দায়িত্ব পালনকারী কর্মকর্তাদের সাথে মারমুখি আচরন করে। পরে আইন শৃঙ্গলা বাহিনী পরিস্হিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে তারা আরো ক্ষিপ্ত হয়ে উঠে। এক পর্যায়ে ব্যাপক সংঘর্ষের ও হামলার ঘটনা ঘটে এবং ভাংচুর হয়। এতে সরকারি কাজে বাধা প্রদান করা হয়। শুধু তাই নয়, কর্মকর্তাদের উপর হামলা করে ব্যালট পেপার ও বাক্স ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে।

পরবর্তীতে ১৩৪/ ১৮৬/৩৩২/৩৫৩/৩৪ ধারা মোতাবেক সরাসরি সরকারি কাজে বাঁধা ও সরকারি মালামাল ক্ষতি সাধনের অভিযোগ এনে দায়িত্বরত প্রিজাইডিং অফিসার আলমগীর তপাদার বাদী হয়ে চাঁদপুর মডেল থানায় মামলা রুজু করে।

এই মামলার নামীয় আসামি হিসেবে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা চাঁদপুর সদর মডেল থানার ইন্সপেক্টর ইন্টেলিজেন্স এন্ড অপারেশন এনামুল হক চৌধুরী ৩০ মে সোমবার দুপুরে নিজ এলাকা থেকে সঙ্গীয় ফোর্সসহ আটক করেন ।

এব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এনামুল হক চৌধুরী জানান,মঙ্গলবার ৩১মে একত্রিশে মেআটককৃত আসামিকে বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হলে আদালত তাকে জেল হাজতে প্রেরণ করেন।

শেয়ার করুন: