করিম পাটওয়ারীর মৃত্যুবার্ষিকী পালন

স্টাফ রিপোর্টার :

চাঁদপুরের সর্বজন শ্রদ্ধেয় সাবেক গণপরিষদ সদস্য ও চাঁদপুর পৌর সভার সফল চেয়ারম্যান,প্রবীণ আওয়ামী লীগ নেতা, বীরমুক্তিযোদ্ধা মরহুম আবদুল করিম পাটওয়ারীর ২২ তম মৃত্যুবার্ষিকী পালন করা হয়।

শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) বাদ আছর পাটওয়ারী বাড়ী জামে মসজিদে এ মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করা হয়।

মিলাদ ও দোয়া পূর্বে সংক্ষিপ্ত আলোচনা পর্বে মরহুমের সুযোগ্যপুত্র চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল এর সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব ওচমান গনি পাটওয়ারী।

বক্তারা বলেন, মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী একজন সর্বশ্রদ্ধেয় মানুষ। মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের একজন অন্যতম সংগঠক। অসেক গুনে গুণান্বিত একজন মানুষ ছিলেন। উনার সম্পর্কে বলতে গেলে অনেক কথা বলা যায়। তিনি তৃনমুল থেকে উঠা নেতা। উনি একজন সহজ সরল মানুষ ছিলেন। খুব সহজেই মানুষের সাথে মিশে যেতেন। সমাজের সেবা করতে গিয়ে কোন কার্পন্যুতা ছিলো না। একজন সৎ রাজনীতিবিদ ছিলেন। কেউ উনার সততা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে পারে নাই। চাঁদপুরবাসীর জন্য একজন অনন্য দৃষ্টান্ত। স্বাভাবিক ও সাধারণ জীবনযাপন করতেন। উনার আদর্শকে বুকে লালন করে আমরা সবাই চললে উনার প্রতি প্রকৃত শ্রদ্ধাবোধ করা হবে।

এ সময় অন্যান্যের মাঝে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জহিরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী, অ্যাড. মজিবুর রহমান ভূঁইয়া, চাঁদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট আহসান হাবীব, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট মো. আবদুল্লাহ আল নোমান, সাবেক সভাপতি অ্যাড.সেলিম আকবর, জেলা আওয়ামীলগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক নুরুল ইসলাম মিয়াজী, চাঁদপুর জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কালু ভূঁইয়া, জেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মাহবুবুর রহমান, আওয়ামী লীগ নেতা আব্দুর রশিদ সর্দার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস মোরশেদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ইফতেখারুল আলম মাসুমসহ চাঁদপুর জেলা আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

মিলাদে দোয়া ও মুনাজাত পরিচালনা করেন পাটোয়ারী বাড়ী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা আব্দুস সালাম। মিলাদ শেষে মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনায় কবর জিয়ারত করেন উপস্থিত সকলে।

এদিকে আবদুল করিম পাটওয়ারী স্মৃতি সংসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি অ্যাডভোকেট মোঃ রুহুল আমিন সরকার।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের সদস্য অ্যাডভোকেট মোঃ শাহরিয়ার ইসলাম শাওন, সালাউদ্দিন আহমেদ,শংকর বর্ধন,স্বপন সাহা,জাকির হোসেন মিঠু,হাসান বেপারী প্রমূখ।

উল্লেখ্য, ২০০০ সালের এইদিনে ভোর ৬ টা ৩৫ মিনিটে আব্দুল করিম পাটোয়ারী চাঁদপুর শহরের তালতলাস্থল নিজ বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। বিকেল ৫টায় চাঁদপুর সরকারি কলেজ মাঠে মরহুমের জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হয়। চাঁদপুরের স্মরণাতীতকালের এ বিশাল নামাজের জানাজা শেষে তাঁর বাড়ির সামনে পাটোয়ারী বাড়ী মসজিদের দক্ষিণ পাশে পারিবারিক কবরস্থানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁকে দাফন করা হয়। মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী সকল রাজনীতিক দলের নেতা-কর্মী এবং, চাঁদপুরবাসীর কাছে ছিলেন অত্যন্ত শ্রদ্ধার এবং সর্বমহলে গ্রহণযোগ্য ব্যক্তিতৃ। তাঁর মৃত্যুর সংবাদ সর্বএ ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার মানুষ এই মহান নেতাকে শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর বাড়িতে ভিড় করে, সর্বএ নেমে আসে শোকের ছায়া। মরহুম আব্দুল করিম পাটোয়ারী শুধু একজন রাজনীতিবিদ ছিলেন না, তিনি ছিলেন শান্তিপ্রিয় ব্যক্তিতৃসম্পন্ন একজন মানুষ এবং নির্ভীক সমাজসেবক। চাঁদপুর পৌরসভাকে আধুনিকায়ন করতে তাঁর চিন্তা-চিতনা ও পরিকল্পনা ছিলো অতুলনীয়, সেজন্যে চাঁদপুরবাসী এখনো তাঁকে শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করে আসছে। তিনি মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগেও সুস্পষ্টভাবে তাঁর ছেলেদের বলে গেছেন কষ্ট হলেও সৎ থাকার চেষ্টা করো, যা তাঁর কবরের পাশে লাগানো নামফলকে এখনো লিপিবদ্ধ রয়েছে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.