করোনা পরিস্থিতি সাংবাদিকদের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ : ড. গোলাম রহমান

নিজস্ব প্রতিবেদক :

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক অধ্যাপক ও সাবেক প্রধান তথ্য কমিশনার ড. গোলাম রহমান বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি সারা বিশ্বের সাংবাদিকদের জন্য নতুন চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে বাংলাদেশের মতো উন্নয়নশীল দেশে পূর্বের নানা প্রতিবন্ধকতার পাশাপাশি নতুন নতুন প্রতিবন্ধকতা যোগ হয়েছে।

আশার কথা হচ্ছে, এসব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করেই বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বে সাংবাদিকতা পেশা সচল ও সরব রয়েছে। গণমাধ্যমগুলো তাদের প্রচার-প্রকাশনা অব্যাহত রেখেছে। সাংবাদিকগণও তাদের পেশায় সচল রয়েছে। তবে করোনা নিয়ে যাতে পাঠক-দর্শক মহলে ভীতির সৃষ্টি না হয় সে ব্যাপারে সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকে আরো সচেতন হতে হবে। বিশেষ করে সকল গণমাধ্যমে করোনাভাইরাসের মতো অণুজীবকে যেভাবে বড় লোগো আকারে দেখানো হচ্ছে এটা কাম্য নয়।

ড. গোলাম রহমান রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে প্রেস ইনস্টিটিউট বাংলাদেশ (পিআইবি) আয়োজিত ওয়েবিনারে মুখ্য রিসোর্সপার্সন হিসেবে বক্তব্য প্রদানকালে এসব কথা বলেন। “করোনাকালে সাংবাদিকদের সুরক্ষা ও করণীয়” বিষয়ক এই ওয়েবিনারে (অনলাইন লাইভ সেমিনার) চাঁদপুর ও জামালপুর জেলার ৩০জন সাংবাদিক এই ওয়েবিনারে অংশ নিয়েছেন।

ওয়েবিনারের মডারেটর ছিলেন পিআইবি’র মহাপরিচালক প্রখ্যাত সাংবাদিক, কবি ও কলামিস্ট জাফর ওয়াজেদ। ওয়েবিনার সঞ্চালনা করেন পিআইবি’র ই-লার্নিং এর প্রধান সমন্বয়কারী শাহ আলম সৈকত। সমন্বয়কারীর দায়িত্ব পালন করেন পিআইবি’র সহকারী প্রশিক্ষক বারেক হোসেন। সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হওয়া এই ওয়েবিনার দুপুর আড়াইটায় শেষ হয়।

রিসোর্সপার্সন হিসেবে প্রশিক্ষণ প্রদান করেন নিউইয়র্ক টাইমসের স্ট্রিংগার ও বৈশাখী টেলিভিশনের পরিকল্পনা পরামর্শক জুলফিকার আলি মানিক, এমআরডিআই’র ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিজম হেল্প ডেস্কের প্রধান বদরুদ্দোজা বাবু, জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ও সাংবাদিক ডা. আওরঙ্গজেব আরু।

বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) মহাপরিচালক জাফর ওয়াজেদ তার বক্তব্যে বলেন, করোনাকালে সবার আগে সাংবাদিককে তার নিজের সুরক্ষা নিজেই নিশ্চিত করতে হবে। করোনাকালের কঠিন সময়ে সরকার সাংবাদিকদের পাশে থাকার চেষ্ট করেছে। সহায়তা করেছে এবং তা অব্যাহত রয়েছে। এখনো সাংবাদিকদের নিয়ে ভাবছে সরকার। সরকার তার কাজ করছে, আমরা আমাদের দায়িত্ব-কর্তব্য পালন করতে হবে। বিশেষ করে সব ধরনের গুজব ও অপপ্রচার রোধে সাংবাদিকদের সর্বদা সচেতন, সজাগ ও সোচ্চার থাকতে হবে। করোনাকালে বহু গুজব ডালপালা বিস্তারে ব্যর্থ হয়েছে সাংবাদিকদের ভূমিকা রাখার কারণে।

ওয়েবিনারে চাঁদপুর থেকে অনলাইনে অংশগ্রহণ করেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি যথাক্রমে কাজী শাহাদাত, অধ্যক্ষ জালাল চৌধুরী, শরীফ চৌধুরী, ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, সাধারণ সম্পাদক এএইচএম আহসান উল্লাহ, সহ-সভাপতি রহিম বাদশা, সোহেল রুশদী, প্রথম আলো প্রতিনিধি আলম পলাশ, সময় সংবাদের চাঁদপুরস্থ স্টাফ রিপোর্টার ফারুক আহমেদ, চাঁদপুর টেলিভিশন সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আল-ইমরান শোভন, সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাদের পলাশ, প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক ইব্রাহিম রনি, চাঁদপুর ফটোজার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক তালহা জুবায়ের।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *