চাঁদপুরে এসএসসি ব্যাচ ৮৬’র ২য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

স্টাফ রিপোর্টার:

চাঁদপুরে এসএসসি ব্যাচ-১৯৮৬ এর ২য় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী জাঁকজমকপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার ২১ জানুয়ারি এ মিলনমেলাটি রাজরাজেশ্বর ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ে শুভ উদ্বোধন করেন অনুষ্ঠানের আয়োজক ৮৬’র জেলা কমিটির উপদেষ্টা বন্ধু, রাজরাজেশ্বর ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী, শিল্পপতি ও শিক্ষানুরাগী মো. আজিজ ফারুক বাবু।

সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ৮৬’র বন্ধু ও রাজরাজেশ্বর ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ্ব হযরত আলী বেপারী।

অনুষ্ঠানে জেলা কমিটির সভাপতি মো. গোফরান হোসেন সভাপতিত্ব করেন। পরিচালনা করেন সাধারণ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন মিলন । উক্ত অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত ছিলেন চাঁদপুর প্রেস ক্লাবে সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস। এ অনুষ্ঠানে চাঁদপুর প্রেস ক্লাবে নব নির্বাচিত সভাপতি ও ৮৬’র বন্ধু গিয়াসউদ্দিন মিলন এবং সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস ফুলেল সংবর্ধনা দেয়া হয়।

আনন্দ ভ্রমন,বনভোজন,পরিচিতি ও কেক কাটা,পুনর্মিলনী, আলোচনা সভা, বন্ধু জন্য বন্ধুর উপহারসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে নানা কর্মসূচি পালন করা হয়।

আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন,বন্ধু মাহফুজুর রহমান টুটুল ভুঁইয়া, মির্জা জাকির, মাহবুবুর রহমান সুমন, হজরত আলী বেপারী, গোলাম হোসেন টিটু, মনির হোসেন গাজী, এ্যাড নজরুল ইসলাম খান, ডা: জালাল উদ্দিন রুমী,ব্যাংকার আ.ন.ম শাহ জাহান খান, ডা:এম আর কে মাসুদ,কামরুজ্জামান কামাল, কালাম পাটওয়ারী, কমরেড জাকির মিয়াজি, শামীম পাটওয়ারী, মোরশেদ সেলিম, শেখ রফিকুল ইসলাম, কামাল পাঠান, কলাম গাজী,এম আই মমিন, রহিমা বেগম, রাজরাজেশ্বর ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সফি উল্লাহ সরকার প্রমুখ।

অনুষ্ঠানে পবিত্র কোরআন তিলাওয়াত করেন বন্ধু মোজাম্মেল হক চৌধুরী,গীতা পাঠ করেন বন্ধু কিশোর কুমার পাল।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন এসএসসি ‘৮৬ ব্যাচের বন্ধু আলাউদ্দিন পাটওয়ারী, গাজী মো:আবুল কলাম আজাদ, সাইফুদ্দিন তালুকদার,মোক্তার আহমেদ,আব্দুল কুদ্দুস গাজী,মনিরুজ্জামান পাটওয়ারী,রুহুল আমিন খন্দকার,মনির মুন্সি, ফারুক ভূইয়া,আলমগীর সরকার,মো:আব্দুল মান্নান, মোঃ তোফায়েল আহমেদ,ফারুক মজুমদার, হাবিবুর রহমান, মো:আলী জিন্নাহ, যাদর ষ্ণৃষ্ণ সাহা, ফরহাদ হোসেন, আসাদুল আলমসহ শাতাধিক বন্ধু।

তিন যুগ আগে ১৯৮৬ সালে সারাদেশ থেকে যারা এসএসসি পাস করেন তাদের মিলনমেলা বসছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করে বন্ধুরা আবারও এক হয়েছেন। বন্ধু অনলাইন প্লাটফর্মে যুক্ত হয়ে এরইমধ্যে নানা কর্মকান্ড করেছেন। সমাজসেবা, চিকিৎসাসেবা, সাংস্কৃতিক কর্মসূচি ও নানা দিবস উদযাপন করার মধ্য দিয়ে ‘এসএসসি ব্যাচ ১৯৮৬ বাংলাদেশ’ মানুষের মন জয় করছে।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বন্ধুদের সঙ্গে উৎসবে মাতলেন বিশিষ্টজনরা । মিলনমেলায় কাউকে দেখে বোঝার উপায় নেই, তাদের বয়স হয়েছে। মেতে উঠলেন সেই স্কুলজীবনের মতোই। কেউ কেউ মেতে উঠলেন খুনসুঁটিতে। টিপ্পনি কাটা শুরু করেন কয়েকজন বন্ধু-বান্ধবীরাও। কারো কারো শরীরে নাচের অঙ্গভঙ্গিও ছিল। তবে একে অন্যকে আলিঙ্গন করতে ভুল করেননি কেউই। পুরো অনুষ্ঠান জুড়ে প্রাণের উচ্ছ্বাস ছিল পরতে পরতে।

স্কুলজীবনের গন্ডি পার হয়ে এসেছেন ৩৬ বছর। বিবাহিত সকলেই জনক-জননী হয়েছেন। কেউবা হয়ে গেছেন নানি। কিন্তু স্কুলজীবনের বন্ধুত্ব, সেটা প্রগাঢ়ই রয়ে গেছে। আর তাই তো স্কুলজীবনের সোঁদা মাটির গন্ধ এখনো ধারণ করে চলেছেন প্রত্যেকের শরীরে। ৩৬ বছর আগের সেই জীবন যেন ফিরে এলো সদর উপজেলার রাজরাজেশ্বর চরের ওমর আলী উচ্চ বিদ্যালয় প্রাঙ্গন।

অনুষ্ঠান সূচি বাঁধনে আটকে রাখা যায়নি বন্ধুদের। ফাঁকে ফাঁকেই স্মৃতিচারণ, কবিতা, গান পরিবেশন করেন বন্ধুরা। বাদ্যযন্ত্র ছাড়াই বন্ধুদের নিয়েই বাঁধা গান গেয়ে শোনান অনেক বন্ধু। দুপুরের ভোজনপর্বেও কথার ফুলঝুরি ছুটতে থাকে এ-টেবিল থেকে ও-টেবিল পর্যন্ত। কে কম খায়, কে বেশি খায়; তাও উঠে আসে। ছিল সাংস্কৃতিক পরিবেশনাও। এতে গম্ভীরা পরিবেশন করেন ৮৬’র বন্ধুরাই। তারপর সুখস্মৃতি নিয়ে আগামী দিনে আবারো একসঙ্গে মিলিত হওয়ার প্রত্যয়ে বন্ধুরা ফিরতে থাকেন নিজ নিজ গন্তব্যে।

শেয়ার করুন: