চাঁদপুরে করোনা উপসর্গে ইউপি চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের মৃত্যু

মেঘনাবার্তা ডেস্ক:

চাঁদপুরে ইউপি চেয়ারম্যানসহ মঙ্গলবার করোনা উপসর্গে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত্যুর পর তাদের করোনা টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। স্বাস্থ্যবিধি মেনে তাদের দাফন-কাফন ও অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে। মৃতদের মধ্যে চাঁদপুর সদরে ১জন, ফরিদগঞ্জে ১জন, হাজীগঞ্জ ১জন এবং শাহরাস্তিতে ১জন।

বুধবার সকালে চাঁদপুর শহরের স্ট্যান্ড রোডস্থ খ্রিস্টান পাড়ায় নিরেন্দ বর্ম্মন (৫৫) নামে এক ব্যক্তি তার নিজ বাসায় মারা যায়।

পারিবারিক সূত্র জানায়, গত ১০ দিন যাবত করোনার বিভিন্ন উপসর্গ নিয়ে অসুস্থ ছিলেন তিনি। মঙ্গলবার সদর হাসপাতালে করোনা পরীক্ষার জন্য তার নমুনা প্রদান করা হয়। রিপোর্ট আসার আগেই তার মৃত্যু হয়।

বুধবার বেলা ১২ টায় শহরের নিশি বিল্ডিং এলাকার খ্রিস্টান কবরস্থানে নিরেন্দ বর্ম্মনকে সমাধিস্থ করা হয়।

শাহরাস্তি উপজেলার মেহের দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুক্তিযোদ্ধা শফি আহমেদ মিন্টুর করোনা উপসর্গে মৃত্যু হয়েছে। মঙ্গলবার রাত ২টায় তিনি নিজ বাড়িতে মারা যান। তিনি
হৃদরোগে ভুগছিলেন। গত ৪/৬দিন ধরে তার জ্বর ও শ্বাসকষ্ট দেখা দেয়।
মঙ্গলবার তিনি চিকিৎসকের শরণাপন্ন হোন। প্রাথমিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা টাইফয়েডের লক্ষণ দেখা দেয়। সেই সাথে করোনা উপসর্গ থাকায় করোনা টেস্টের জন্য নমুনা প্রদানের পরামর্শ দেন। কিন্তু নমুনা দেয়ার আগেই তিনি মারা যান।

ফরিদগঞ্জ বঙ্গবন্ধু ডিগ্রি কলেজের সাবেক ছাত্রনেতা হাফিজ আহমেদ কনক(৪৫) জ্বর ও ট্র শ্বাসকষ্টে মারা গেছেন। বুধবার সকাল ১১টায় নিজ বাড়িতে তার মৃত্যু হয়।

ডা হারুনুর রশিদ সাগর জানান, ৫ জুন থেকে তিনি অসুস্থ। আজ ১১টার দিকে হঠাৎ শ্বাসকষ্ট বেড়ে গিয়ে তৎক্ষনাৎ নিজ বাড়িতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন।

এদিকে করোনা উপসর্গ নিয়ে সর্বাধিক মৃত্যুর ঘটনায় আতঙ্কিত হাজীগঞ্জ উপজেলায় বুধবারও এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে হাজীগঞ্জ করনা উপসর্গে ৩৬জনের মৃত্যু হয়েছে।

উপজেলার কালচো দক্ষিণ ইউনিয়নের নওহাটা তালুকদার বাড়ির বাসিন্দা হাবিবুল্লাহ তালুকদার(৬৫) বুধবার বিকেল ৩টায় নিজ বাড়িতে মারা যান । ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা স্বপন তার মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছেন। উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর জসীম উদ্দীন বিকেলে হাবিব উল্লার করোনা টেস্টের জন্য নমুনা সংগ্রহ করেছেন।

পারিবারিক সূত্র জানায়, কয়েকদিন যাবত হাবিব উল্লাহ তালুকদার জ্বর, মাথাব্যথা, পাতলা পায়খানাসহ করোনা উপসর্গে ভুগছিলেন । স্থানীয় চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি বাড়িতেই চিকিৎসাধীন ছিলেন।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *