চাঁদপুরে প্রথম স্ত্রীকে তালাক, ইট দিয়ে পিটিয়ে মারল দ্বিতীয় স্ত্রীকে

চাঁদপুরে যৌতুকের জন্য স্বামী শরীফ খানের ইটের আঘাতে এক সন্তানের জননী সাথী আক্তারের (২৪) মৃত্যু হয়েছে। ৩ মার্চ বুধবার রাতে সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের বহরিয়া এলাকার বড় খানবাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

এর আগে নির্যাতনের শিকার হয়ে শরীফকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়ি চলে যান প্রথম স্ত্রী রোকেয়া বেগম।

এদিকে সাথী আক্তারের মা ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে স্বামী শরীফ খান, তার বোন রাবেয়া বেগম ও তার বড় ভাইয়ের স্ত্রী হালিমা বেগমকে আসামি করে বৃহস্পতিবার চাঁদপুর সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। শরীফ পলাতক রয়েছেন।

চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশিদের নির্দেশে থানার এসআই মো. মোস্তফা কামাল রাতে ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করেন।

জানা যায়,নিহত সাথী আক্তারের স্বামী শরীফ খান এর আগে পশ্চিম রামদাসদী দোকানঘর এলাকার রফিক মল্লিকের মেয়ে রোকেয়া বেগমকে বিয়ে করেন। সেই সংসারে তার দুটি সন্তান রয়েছে। শরীফের নির্যাতনের শিকার হয়ে জীবন বাঁচাতে দুই সন্তান নিয়ে প্রথম স্ত্রী তাকে তালাক দিয়ে বাবার বাড়ি চলে যান।

এরপর চান্দ্রা এলাকার বাখরপুর পাটওয়ারী বাড়ির মিজানুর রহমানের মেয়ে সাথী আক্তারকে বিয়ে করেন শরীফ খান। সাথীর সংসারে সুমনা নামে দুই বছরের একটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

নিহত সাথীর পিতা মিজানুর রহমান জানান, বিয়ের সময় শরীফকে ব্যবসা করার জন্য দুই লাখ টাকা দেওয়া হয়। বিয়ের কিছুদিন পর থেকে শরীফ সাথীর কাছে যৌতুক দাবি করে এবং তাকে নির্যাতন করতে থাকে। মঙ্গলবার যৌতুকের জন্য সাথীকে মাথায় ইট দিয়ে আঘাত করে। আঘাত করার বিষয়টি সাথী ফোন করে তার বাবাকে জানায় বলে জানান।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. আশিব হাসান চৌধুরী জানান, লাশের মাথায় ও শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

এ ব্যাপারে চাঁদপুর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ জানান, বৃহস্পতিবার বিকালে ময়নাতদন্ত শেষে পুলিশ লাশ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। এ ব্যাপারে নিহতের মা ফাতেমা বেগম বাদী হয়ে মডেল থানায় হত্যা মামলা করেছেন।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *