চাঁদপুরে প্রাইভেট ও কোচিং বন্ধে মনিটরিং কমিটির সভা

ডেস্ক : চাঁদপুরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করণে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সমন্বয়ে গঠিত মনিটরিং কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৩ জানুয়া‌রি রবিবার বেলা ১২টায় চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষের কার্যালয়ে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অসিত বরণ দাস এর সভাপতিত্বে প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য বন্ধ করণে গঠিত মনিটরিং কমিটির সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা শিক্ষা অফিসার মুহাম্মাদ গিয়াস উদ্দিন পাটওয়ারী, মনিটরিং কমিটির সদস্য অধ্যক্ষ মোশারফ হোসেন, প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ হোসেন, মনিটরিং কমিটির অভিভাবক সদস্য প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটোয়ারী, বিষ্ণুদী ইসলামিয়া সিনিয়র মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওলানা জসিম উদ্দিন প্রমূখ।
কমিটির সভায় সভাপতির বক্তব্যে অসিত বরন দাস বলেন, করোনাকালীন সময়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও ছাত্র ছাত্রীদেরকে মাক্স পরিধান ও সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে। অনলাইন ক্লাস, সংসদ টিভির মাধ্যমে পরিচালিত ক্লাস অনুযায়ী সকলকে শিক্ষা কার্যক্রম চালিয়ে যেতে হবে। করোনা কালীন সময়ে যেখানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। সেখানে কিছু কিছু প্রতিষ্ঠান শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের সমাবেশ ঘটিয়ে প্রাইভেট ও কোচিং বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে, যা শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনার ব্যতয় ঘটছে। এ বিষয়ে সভায় উপস্থিত সকলের সর্বসম্মতিক্রমে কিছু সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।

সিধান্ত সমূহ: ১.সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীর মাক্স পরিধান বাধ্যতামূলক, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। ২. কোচিং বাণিজ্য বন্ধে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক ও অভিভাবকদের সাথে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধান ভার্চুয়াল অথবা সরাসরি আলোচনা সভার আয়োজন করবেন। ৩. শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানগণ কোচিং বাণিজ্য বন্ধে সহযোগিতার জন্য শিক্ষার্থীদের নোটিশ প্রদান করবেন।৪. যে সকল শিক্ষক কোচিং বাণিজ্যের সাথে জড়িত সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান তাদের তালিকা প্রণয়ন করবেন।

৫. কোচিং বাণিজ্য বন্ধে ফেইসবুক সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং পত্রিকায় ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা করতে হবে।
৬. চাঁদপুর সদরের তিনটি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে আগামী ৫ জানুয়ারি সকাল ১১ টায় হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে আলোচনা সভা করা হবে। ৭. ১৫ জানুয়ারির মধ্যে বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়ে আরো দুইটি আলোচনা সভা করা হবে।

৮. চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এর আয়োজনে সকল কলেজ শিক্ষকদের নিয়ে আলোচনা সভা করা হবে।
৯.পরিশেষে সভায় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয় যে, কোন শিক্ষক যদি শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অমান্য করে প্রাইভেট বা কোচিং করান তাহলে তার বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *