চাঁদপুরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ

চাঁদপুর স্টেডিয়ামে বঙ্গমাতা ফুটবলের ফাইনালের শুরুতেই খেলোয়াড়দের সাথে পরিচিত হচ্ছেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস।
চাঁদপুর: চাঁদপুর স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়েছে জেলা পর্যায়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের পুরস্কার বিতরণ।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সভাপতি ও টুর্নামেন্ট কমিটির সভাপতি জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিস।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সাবিক আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ডা: জে আর ওয়াদুদ টিপু।

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিস তার বক্ত্যবে বলেন, জাতির পিতার অনেক সদস্যই খেলাধুলার সাথে জড়িত ছিলেন। আর আমাদের প্রধানমন্ত্রী তো খেলাধুলার আয়োজন এবং খেলোয়াড়দের জন্য উদার মনে কাজ করছেন। খেলাধুলার মাধ্যমেই শিক্ষাথীদের কে আরো এগুতে হবে। চাঁদপুর জেলার ক্লাবগুলোকে খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষন সহ সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক চচার ব্যাবস্থা গ্রহন করতে হবে। তাহলে বতমান সময়ের সাথে খেলোয়াড়রাও সকল কিছুতেই এগিয়ে যাবে।

তিনি তার বক্ত্যবে আরো বলেন, খেলাধুলা করলে কেউ খারাপ পথে যায়না। আজকাল যে কিশোর গ্যাংয়দের কথা শোনা যায়, তাদেরকে খারাপ পথ থেকে ফিরিয়ে আনতে হলে খেলাধুলার কোনো বিকল্প নেই। আমি এ জেলার এবং পৌরসভাসহ ইউনিয়নের জনপ্রতিনিধি দেরকে অনুরোধ করবো আপনাদের এলাকাগুলোতে বাচ্চাদের খেলার জন্য মাঠ তৈরি করে দেন। স্ব স্ব এলাকায় খেলোয়াড়রা খেলতে পারলে তারা আর কোনো খারাপ পথে যাবেনা।

পুরুষ্কার বিতরন অনুষ্ঠানে অনান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট মো. জিল্লুর রহমান জুয়েল, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল পাটওয়ারী, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নাজিম দেওয়ান, ভাইস চেয়ারম্যান আইউব আলী,জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারন সম্পাদক গোলাম মোস্তফা বাবু,জেলা ক্রীড়া অফিসার তারিকুল ইসলাম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার ফুটবল উউপকমিটির সেকেটারি শাহির পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলী মাঝি, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদের ভাইস চচেয়ারম্যান তসলিম বেপারী- সহ জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক ও ক্রীড়ামোদী দশক।

Recommended For You

About the Author: News Room

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *