চাঁদপুরে বাড়ছে ডায়রিয়ার প্রকোপ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

চাঁদপুরে ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। আবহাওয়া পরিবর্তনের সাথে সাথে গত কয়েকদিনে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে বাড়তে শুরু করেছে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। এসব রোগীদের চিকিৎসাসেবা দিতে সরকারি হাসপাতালে আলাদা ইউনিট স্থাপন করা হয়েছে।

খবর নিয়ে জানা গেছে,ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসার জন্য গত পাঁচ দিনে হাসপাতালটির ডায়রিয়া ওয়ার্ডে ৬৭ জন রোগী ভর্তি হয়েছে। এরমধ্যে অনেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। আবার কেউ কেউ হাসপাতালে ভর্তি থেকে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন বলে হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে।

চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের দ্বিতীয় তলায় স্থাপনকৃত ডায়রিয়া ইউনিটের ডিউটিরত সিনিয়র স্টাফ নার্স নাজনীন সুলতানা জানান,গত ২৫ মার্চ থেকে ২৯ মার্চ মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত সর্বমোট ৬৭ জন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি হয়েছে।

এর মধ্যে গত ২৫ মার্চ সারাদিনে ভর্তি হয়েছে ১৬ জন রোগী, ২৬ মার্চ ১৫ জন, ২৭ মার্চ ২৩ জন ২৮ মার্চ ১০ জন এবং ২৯ মার্চ মঙ্গলবার দুপুর ১টা পর্যন্ত ৩ জন রোগী ডায়রিয়া ইউনিটে ভর্তি হন। এসব রোগীদের মধ্যে পর্যায়ক্রমে অনেকে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন এবং মঙ্গলবার দিন সকালে দশজন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী চিকিৎসা সেবা শেষে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। বর্তমানে ডায়ারিয়া ওয়ার্ডে ২০ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন বলে জানান তিনি।

এছাড়াও চাঁদপুর মতলব উত্তর উপজেলার আইসিডিডিআরবির হাসপাতালেও ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর চাপ রয়েছে বলে জানা গেছে। এসব রোগীদের বেশির ভাগই চাঁদপুর জেলা শহর,চাঁদপুর সদর উপজেলা ও তার আশে পাশের লোকজন বেশি বলে জানান চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্বাবধায়ক।

দিনে প্রচন্ড গরম রাতে হালকা ঠান্ডা পড়ায় আবহাওয়া পরির্তনের কারনে জ্বর সর্দি-কাশি নিউমোনিয়াসহ বিভিন্ন রোগের পাশাপাশি ডায়রিয়া আক্রান্ত হচ্ছেন অধিকাংশ মানুষ। এ কারণে দীর্ঘদিন ধরে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের আউটডোর এবং ইনডোরে সব স্থানে রোগীদের প্রচন্ড ভিড় লক্ষ করা গেছে। আবহাওয়া পরিবর্তনে বিভিন্ন রোগের পাশাপাশি চাঁদপুরে দিন দিনই বাড়তে শুরু করেছে ডায়ারিয়া আক্রান্ত রোগী।

এদিকে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকেই ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়তে পারে জেনে বাংলাদেশ স্বাস্থ্য অধিদপ্তর চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে ডায়রিয়া রোগীদের জন্য আলাদা ইউনিট প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন। তারই প্রেক্ষিতে গত ২৫ মার্চ থেকে হাসপাতালে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের জন্য আলাদা ইউনিট প্রস্তুত করেন। সেখানে একজন ইনচার্জ ও নার্সরা বিভিন্ন শিপটে নিয়সিত দায়িত্ব পালন করছেন।

এ বিষয়ে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাক্তার একেএম মাহবুবুর রহমান বলেন, আবহাওয়া পরিবর্তনের কারনেই মানুষজন ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। আমরা জানুয়ারির প্রথম থেকেই স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে ডায়রিয়ার প্রকোপ বাড়তে পারে। এমন তথ্য দিয়ে সরকারি হাসপাতালে ডায়রিয়া ইউনিট প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা দেন। সেজন্য গত ২৫ মার্চ থেকে ডায়রিয়া রোগী বাড়তে দেখে এসব রোগীদের চিকিৎসা সেবা দিতে হাসপাতলে আমরা আলাদা ইউনিট স্থাপন করি। তারপর থেকেই সেখানে প্রতিদিন ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের কে নিয়মিত চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়াও বেশ কিছুদিন আগে থেকেই মতলব উপজেলার আইসিডিডিআরবির হাসপাতালের কার্যালয় থেকে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীর সংখ্যার বাড়ার তথ্য পেয়েছি। সেখান থেকেও আমাদেরকে জানিয়েছেন যে ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী বাড়ছে। ওই হাসপাতালটিতে ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে যেসব রোগীরা ভর্তি হয়েছেন। তাদের বেশিরভাগই চাঁদপুর সদর উপজেলা এলাকার। ডায়রিয়া থেকে রক্ষা পাওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, বাসি খাবার, খোলা খাবার , হোটেল, রেস্তোরার খাবার থেকে বিরত থাকতে হবে। নিয়মিত পানি ফুটিয়ে পান করতে হবে এবং সাবান পানি দিয়ে হাত ধোঁয়াসহ,স্বাস্থ্যবিধি মনে চলতে হবে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.