চাঁদপুরে বিএনপির ৪৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত

মাসুদ রানাঃ

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি’র ৪৪ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করেছে চাঁদপুর জেলা বিএনপি।

১ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক। তিনি বক্তব্যে বলেন,শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ছিলেন প্রথম রাষ্ট্রপ্রধান। সাধারণ জনগন জাতীয়তাবাদী দলের শক্তি। বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমানের শক্তি। শ্রীলংকায় (পুলিশ) আপনাদের বেতন হচ্ছে না। সাধারণ মানুষের টাকায় বেতন নিয়ে তাদের উপরই গুলি করছেন। ইতিহাস কাউকে ছাড় দেয় না। অতএব আপনারা পুলিশরা এখনি সাবধান হয়ে যান। চাঁদপুর সদরে প্রোগ্রাম করতে না দিলে প্রতিরোধ গড়ে তোলা হবে। শহীদ জিয়ার সৈনিকেরা এ স্বৈরাচারী সরকারকে আর ক্ষমতায় থাকতে দিবে না।

চাঁদপুর জেলা বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মুনির চৌধুরীর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সেলিম উল্ল্যাহ সেলিম, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক মাহাবুব আনোয়ার বাবলু, সেলিমুছ সালাম সেলিম, চাঁদপুর পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. হারুনুর রশিদ, সদর থানা বিএনপির সভাপতি শাহজালাল মিশন, সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জাহাঙ্গীর হোসেন খান।

বক্তারা বলেন, শেখ হাসিনা মুস্তাক আহমেদ কে চাচা বলতে বলতে মুখে ফেনা তুলে ফেলতেন। আর আপনার সেই চাচাই আপনার পিতা মুজিব কে হত্যা করেছে। মরহুম রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এর অনেক স্বপ্ন এখনও বাস্তবায়ন হয় নি। তার অসমাপ্ত কাজগুলো সমাপ্ত করতে হলে বেগম খালেদা জিয়া কে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী করতে হবে।

তারা আরোও বলেন, বাংলাদেশের হাজার হাজার নেতা-কর্মী রাজপথে জীবন দিয়েছে, গুম হয়েছে, জেল খাটছে। আপনাদের কষ্ট বৃথা যেতে দেওয়া হবে না। রক্ত যখন দিয়েছি আরোও দেব, প্রাণ যখন দিয়েছি প্রাণ আরোও দেব। তবে এ স্বৈরাচারী সরকারকে উৎখাত করে ছাড়বো। এ হোক আমাদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অঙ্গিকার।
স্বৈরাচারী খুনি শেখ হাসিনাকে বাংলার মানুষ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। শ্রীলংকার প্রধানমন্ত্রী মালদ্বীপে গিয়ে রক্ষা পেয়েছে। শেখ হাসিনা আপনি কোথায় যাবেন তা এখন থেকেই চিন্তা করতে থাকুন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে মরহুম জিয়াউর রহমানসহ আন্দোলন সংগ্রামে নিহতদের স্মরণে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন চাঁদপুর জেলা ওলামাদল সভাপতি মাও. জসিম উদ্দিন।

আলোচনা ও দোয়া অনুষ্ঠানে বিএনপি ও অংঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন: