চাঁদপুরে রাত ৮ টার পর দোকান খোলা রাখায় ৬ প্রতিষ্ঠানকে অর্থদণ্ড

মহামারি করোনা ভাইরাসের ২য় ঢেউ মোকাবেলায় সরকারের বিধি নিষেধ অমান্য করে চাঁদপুরে রাত ৮টার পর দোকান খোলা রাখায় ৬ জন ব্যবসায়ীকে ১১ হাজার টাকা অর্থদণ্ড প্রদান করে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

৯ মে রোববার রাত সাড়ে ৮ টা থেকে ১১ টা পর্যন্ত শহরের রেলওয়ে হর্কাস মার্কেট, সেবা সিটি সেন্টার, হাকিম প্লাজা, পূরবি মার্কেট, জোড়পুকুর পাড় এলাকার মীর শপিং সেন্টার, কালিবাড়ি এলাকার মদিনা মার্কেট, মিয়া ম্যানশন, পালবাজার এলাকার পৌর মার্কেটসহ বিভিন্ন মার্কেটে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়। ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এনডিসি মোঃ মেহেদী হাসান মানিক ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মদ উজ্জ্বল হোসেন।

এ সময় চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আবদুর রশিদ, ওসি (তদন্ত) সুজন কান্তি বড়ুয়া, ওসি (অপারেশন) সানোয়ার হোসেনসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

অর্থদন্ড প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠানগুলো হলোঃ হর্কাস মার্কেটের এম আর ফ্যাশনের মামুন কে ২ হাজার টাকা, অহনা সুজের মজিবুর রহমান কে ১ হাজার টাকা, কালিবাড়ি টপ কালেকশন কে ৩ হাজার টাকা, কালিবাড়ি মিয়া ম্যানশনের ওয়াকার ফুট ওয়ার কে ১ হাজার, পালবাজার এলাকার পৌর মার্কেটের আইমুন ফ্যাশন এন্ড গার্মেন্টস কে ২ হাজার টাকা, স্মার্ট কালেকশন কে ২ হাজার টাকা।

চাঁদপুর রেলওয়ে হর্কাস মার্কেটের সভাপতি আনোয়ার হোসেন জানান, সরকারি নির্দেশ আমরা সবসময় মেনে চলি। রাত ৮ টার পর দোকান বন্ধ করে ফেলার জন্য আমরা মার্কেটে মাইকিং করিছি। তারপরও যদি কেউ কথা না শুনে তাহলে সারাদিনের উপার্জিত অর্থ তাদের জরিমানা দিতে হবে।

চাঁদপুর সদর মডেল থানার ওসি মুহাম্মদ আবদুর রশিদ জানায়, মানুষের মধ্যে এখনো সচেতনতা সৃষ্টি হয় নি। রাত ৮টার পর দোকান বন্ধ রাখতে পুলিশের ১০টি টিম বিভক্ত হয়ে শহরের বিভিন্ন মার্কেটে কাজ করেছে।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের এনডিসি মোঃ মেহেদী হাসান মানিক জানায়, সরকারি নির্দেশ অমান্য করায় ৬ ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানকে মোট ১১ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে। রাত ৮টার পর দোকান খোলা রাখা যাবে না। চাঁদপুর জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *