চাঁদপুরে ৫জন গুণী ব্যক্তিত্বদের স্মরণে সভা

প্রেস বিজ্ঞপ্তি ॥

সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক), চাঁদপুরের দুর্নীতিবিরোধী আন্দোলনের বিদিত পথিকৃৎ ও সনাক পরিবারের সহযোদ্ধা, চাঁদপুরের সর্বজনশ্রদ্ধেয় গুণী ব্যক্তিত্ব, যাঁদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও আন্তরিক প্রচেষ্টার ফসল হিসেবে চাঁদপুরে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলন এগিয়ে যাচ্ছে। এই ৫জন গুণী ব্যক্তিদের জন্যে সনাক-চাঁদপুরের আয়োজনে স্মরণ সভা গতকাল বিকাল ৪টায় সনাক কার্যালয় (অ্যাপোলো মজিদ টাওয়ার, ৩য় তলা দক্ষিণাংশ, চিত্রলেখা মোড়, চাঁদপুর)-এ অনুষ্ঠিত হয়।

সনাক সভাপতি শাহানারা বেগমের সভাপতিত্বে ও সনাকের সাবেক সভাপতি ও সনাক সদস্য কাজী শাহাদাতের সঞ্চালনায় পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত ও দোয়া পরিচালনা করেন সনাক সদস্য মোঃ আব্দুল মালেক। সনাক-চাঁদপুরের পক্ষ থেকে ৫জন গুণী ব্যক্তিদের শ্রদ্ধাঞ্জলি প্রদান করা হয়। শ্রদ্ধাঞ্জলি পাঠ করেন সনাকের সাবেক সভাপতি ও সনাক সদস্য কাজী শাহাদাত। সনাক পরিবারের পক্ষ থেকে এই ৫জন গুণী ব্যক্তিদের সংক্ষিপ্ত জীবনী উপস্থাপন করা হয়। আলহাজ¦ ডাঃ এমএ গফুর সাহেবের জীবনী উপস্থাপন করেন সনাকের সহ-সভাপতি ডা: পীযূষ কান্তি বড়ূয়া, আলহাজ¦ কামরুজ্জামান চৌধুরীর জীবনী উপস্থাপন করেন সনাক সদস্য মোঃ আলমগীর পাটওয়ারী, আলহাজ¦ প্রফেসর মনোহর আলীর জীবনী উপস্থাপন করেন সনাকের সাবেক সভাপতি ও সদস্য অধ্যক্ষ মোঃ মোশারেফ হোসেন, ডাঃ মোঃ একিউ রুহুল আমিনের জীবনী উপস্থাপন করেন সনাক সদস্য ইসমত আরা সাফি বন্যা ও প্রকৌশলী মোঃ দেলোয়ার হোসেনের জীবনী উপস্থাপন করেন সনাক সদস্য জেসমিন আক্তার।

সনাক-চাঁদপুর যে ৫জন গুণী ব্যক্তিকে শ্রদ্ধায় স্মরণ করছে তাঁদের পরিবারের পক্ষ থেকে স্মৃতিচারণ করেন আলহাজ¦ ডাঃ এমএ গফুর সাহেবের ছেলে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের স্থাপত্য বিভাগের চেয়ারম্যান ড. শাহের গফুর। তিনি বলেন, ৫জন গুণী ব্যক্তি সম্পর্কেই আলোচনা শুনেছি। আমি প্রত্যেকের কর্মজীবন ও সামাজিক জীবন সম্পর্কে অবহিত ছিলাম না। তাদের যে জীবনী দেখলাম ও শুনলাম তাতে আমি হৃদ্ধ, আপ্লুত ও অননুপ্রাণিত। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলে অংশগ্রহণ করে সনাকের ছত্রছায়ার তারা যেভাবে অবস্থায় নিয়েছে তা সত্যিই অসাধারণ। তারা মূলত সুষ্ঠু ও সামাজিক সমাজ গড়ার স্বপ্ন দেখেছেন। তিনি আরও বলেন, সমাজ বিনির্মানে তাদের কাজগুলো সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করবে।

এছাড়াও আলহাজ¦ প্রফেসর মনোহর আলীর ছেলে মোঃ মাজেদুল হাসান, ডাঃ মোঃ একিউ রুহুল আমিনের ছোট ভাই মোঃ নুরুল আমিন ও প্রকৌশলী মোঃ দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মোঃ তৌসিফ হোসেন রাজীব স্মৃতিচারণ করেন।

স্মৃতিচারণমূলক আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন বাংলাদেশ চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি ও বাগাদী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ বেলায়েত হোসের বিল্লাল, চাঁদপুর চেম্বার অব কমার্সের সহ-সভাপতি তমাল কুমার ঘোষ, জেলা ফটো জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কেএম মাসুদ, সনাক-চাঁদপুরের সিসিপি কমিটির সদস্য ব্যাংকার মজিবুর রহমান, চাঁদপুর সেন্ট্রাল ইনার হুইল ক্লাবের সভাপতি অধ্যক্ষ মাহমুদা খানম। তারা বলেন, সনাক-চাঁদপুরের সাবেক এই ৫জন প্রাতঃস্মরণীয় গুণী ব্যক্তি ছিলেন। এই গুণী ব্যক্তিদের দেখায় ভবিষ্যত প্রজন্ম যেকোন ভালো কাজে সামনের দিকে এগিয়ে যাবে এই কামনা করছি। এই গুণী ব্যক্তিরা চাঁদপুরের প্রতিটা মানুষের হৃদয়ে চিরদিন জাগ্রত হয়ে থাকবেন। তারা সত্যিই অসাধারণ ও আলোকিত মানুষ ছিলেন। এই গুণী ব্যক্তিদের আলোয় যেন আমরা সবাই আলোকিত হতে পারি। তারা প্রত্যেকেই বরেণ্য ও অনুকরণীয় যা আমাদেরকে সামনে এগিয়ে যেতে অনুপ্রাণিত করবে। বক্তারা ৫জন গুণী ব্যক্তিদের জীবন, কর্ম ও অবদান বিষয়ক আলোচনা ও আত্মার শান্তি এবং মাগফেরাত কামনায় সনাক-চাঁদপুর যে স্মরণসভার আয়োজন করেছে এজন্য সনাক-চাঁদপুরকে ধন্যবাদ জানান।

সনাকের সভাপতি শাহানারা বেগম বলেন, আজ কিছুটা হলে কষ্টটা দূর করতে পারছি এই ৫জন গুণী ব্যক্তিদের শ্রদ্ধাঞ্জলি জানাতে পেরে। এই ৫জন গুণী ব্যক্তি চাঁদপুরে দুর্নীতিবিরোধী সামাজিক আন্দোলনকে ছড়িয়ে দিতে তথা মানুষের মাঝে দুর্নীতিবিরোধী চেতনা জাগ্রত করার লক্ষ্যে নিরলসভাবে কাজ করে গেছেন। যার ফল আজ আমরা ভোগ করছি। তাঁদের সম্পর্কে স্মৃতিচারণ করে শেষ করা যাবে না। তাঁরা আমাদের মনের মধ্যে স্বপ্ন দিয়েছেন। আজ আমরা সেই স্বপ্নগুলো বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা শ্রদ্ধাভরে তাঁদের স্মরণ করছি। তিনি স্মরণ সভায় আসার জন্য সনাক-চাঁদপুরের পক্ষ থেকে সবাইকে ধন্যবাদ জানান।

শেয়ার করুন: