চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়ককে চারলেনে রূপান্তর করা হবে: শিক্ষামন্ত্রী

আনোয়ারুল হক॥

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শিক্ষামন্ত্রী বলেছেন, মাস্টার প্ল্যান ছাড়া বড় কোনো কাজ হবে না। সরকার দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে উন্নয়ন কাজ করছে। চাঁদপুর দেশের অন্যদম একটি প্রাচীন শহর। এই শহরটি রক্ষায় আমাদেরকে অবশ্যই মাস্টার প্ল্যান হাতে নিতে হবে। যত দ্রুত সম্ভব চাঁদপুর-কুমিল্লা সড়ককে চারলেনে রূপান্তর করতে প্রকল্প হাতে নেয়া হবে।
গতকাল ৪ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ১১টায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে জেলা পর্যায়ে সরকারি কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

ডা.দীপু মনি এমপি আরো বলেন, আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দুরদর্শীতায় করোনার মহামারির এই দুর্যোগে অন্যান্য দেশের তুলনায় আমরা কিছুটা হলেও ভালো আছি। সারাদেশে করোনাকালীন সময়ে হসপিটাল,অক্সিজেন,টীকাসহ স্বাস্থ্য খাতে সরকারের ব্যাপক অর্থ ব্যয় করেছে। সরকার চাচ্ছে দেশের প্রত্যেকটি মানুষকে টিকার আওতায় নিয়ে এসে ঝুঁকি মুক্ত রাখতে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন,চাঁদপুরে পুলিশ প্রশাসন,সিভিল প্রশাসন ও সকল বিভাগীয় প্রশাসনের সাথে একটি সুন্দর সমন্বয় রয়েছে।এর সাথে জনপ্রতিনিধিদের সম্পৃক্ত করা হলে চাঁদপুরে আরো ব্যাপক উন্নয়ন হবে।

সভার করোনাকালে চাঁদপুরে মানুষের চিকিৎসা সেবায় শিক্ষামন্ত্রী ডা: দীপু মনির ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় এবং তাঁর অসামান্য অবদানে যে নিরবচ্ছিন্ন চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত হয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য তুলে ধরা হয়।

এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে :গত বছর করোনাের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপ্লাইয়ের ব্যবস্থা করা, চাঁদপুরে ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ আরটি পিসিআর ল্যাব স্থাপন,আবুল খায়ের গ্রুপের তত্ত্বাবধানে চাঁদপুর সরকারি জেনারেল হাসপাতালে বড় পরিসরে অক্সিজেন সিলিন্ডার সরবরাহ এবং রিফিলের ব্যবস্থা করার ভূমিকা রাখা, লিকুইড অক্সিজেন প্লান্ট স্থাপন, দ্রুততার সাথে চাঁদপুরে করোনার ভ্যাকসিন প্রদানের ব্যবস্থা করা, জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসার কোনো সমস্যা দেখা দিলে তাৎক্ষণিক তা সমাধান করে দেয়া এবং চাঁদপুরে করোনা পরিস্থিতির সার্বক্ষণিক খোঁজ খবর রাখা। সভায় আরটি পিসির ল্যাব স্থাপন এবং জেনারেল হাসপাতালে সেন্ট্রাল অক্সিজেন সাপ্লাইয়ের ব্যবস্থাসহ আরো নানা ক্ষেত্রে ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ মেমোরিয়াল ট্রাস্টের পৃষ্ঠপোষকতায় সম্পন্ন হওয়ায় ভাষাবীর এমএ ওয়াদুদ পরিবারের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

সভায় স্বাস্থ্য বিভাগ,স্থানীয় সরকার বিভাগ,সড়ক ও জনপথ বিভাগ, শিক্ষা বিভাগসহ অন্যান্য বিভাগের কার্যক্রম এবং বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে আলোচনা হয়।শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি কিছু কিছু সমস্যার বিষয়ে তাৎক্ষণিক সমাধানের পরামর্শ দেন।

জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, নৌ-পুলিশ সুপার কামরুজ্জামান,বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি নাসিম আক্তার, সিভিল সার্জন ডা. সাখাওয়াত উল্লাহ, ইলিশ গবেষক ড. মো. আনিসুর রহমান, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো.রকিবুর রহমান,এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকৌশলি ইউনুস হোসেন বিশ্বাস,পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী রিফাত জামিল,টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী সিরাজুল ইসলাম, ফায়ার সার্ভিস সিভিল স্টেশন কমান্ডার সাইদুল ইসলাম, পিপি রনজিত রায় চৌধুরী প্রমুখ।

উপস্থিত ছিলেন, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, চাঁদপুর সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ অসিত বরণ দাস, চাঁদপুর সরকারি মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ এসএম কিবরিয়া জামান, জেলা পরিষদের সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ মাসুদুর রহমান,অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ইমতিয়াজ হোসেন, কোস্টগার্ড স্টেশন কমান্ডার লেফটেনেন্ট সাদিক হোসেন,এনএসআই উপ-পরিচালক শাহ মোঃ আরমান, ফরিদগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান এডভোকেট জাহিদুল ইসলাম রোমান,সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ,জেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ হোসেনসহ বিভাগীয় সকল কর্মকর্তাগণ।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *