চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্ধারিত স্থান পরিদর্শণ করলেন পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক॥

চাঁদপুর-৩ (চাঁদপুর সদর ও হাইমচর) আসনের সংসদ সদস্য শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি’র নির্বাচনী এলাকার উন্নয়নের অন্যতম প্রতিষ্ঠান চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়। যা এখন অবকাঠামো উন্নয়নের অপেক্ষায় রয়েছে। চাঁদপুর সদর উপজেলার ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের লক্ষ্মীপুরের দৃষ্টিনন্দন এলাকায় চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়-এর জন্যে প্রস্তাবিত স্থান নির্ধারণ করে অবকাঠামো উন্নয়নের জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে।

গতকাল ২৬ আগস্ট বৃহস্পতিবার দুপুরে বাংলাদেশ সরকারের পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও চাঁদপুরের কৃতি সন্তান বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড.শামসুল আলম সরকারি দু’দিনের সফরে মতলব ও চাঁদপুর এসে চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের জন্য সরকারিভাবে জমি নির্ধারিত স্থান সরেজমিন দেখতে আসেন।

চাঁদপুর সদর উপজেলার লক্ষ্মীপুর মৌজার বিশাল এ ভূ-খ- দেখে তিনি জেলা প্রশাসক,পাউবো’র নির্বাহী প্রকৌশলীসহ সংশ্লিষ্টদের এই জায়গাটির অধিকতর সম্ভ্যাবতা যাচাই এর পরামর্শ দেন। চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণে নির্ধারিত অধিগ্রহণকৃত জমি থেকে নদীর দূরত্ব কতোটুকু,তা তিনি সরেজমিনে দেখতে নদী’র পাড়ে যান।

এসময় পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী’র সাথে চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, চাঁদপুরের পুলিশ সুপার মোঃ মিলন মাহমুদ, চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সলর অধ্যাপক মো. নাছিম আখতার ছাড়াও শিক্ষামন্ত্রণালয় থেকে আসা উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী, স্থানীয় ভূমি অধিগ্রহণ কর্মকর্তা, ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম খানসহ সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

এসময় চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সলর অধ্যাপক মো.নাছিম আখতার পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড.শামসুল আলমকে স্বাগত জানিয়ে জমি অধিগ্রহণ সংক্রান্ত বিষয়ে ব্রিফ করেন। সে সাথে বিভিন্ন তথ্য-উপাথ্য উত্থাপন করেন ১০নং লক্ষ্মীপুর মডেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ সেলিম খান।

চাঁদপুর বিজ্ঞাণ ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের নির্ধারিত স্থান পরিদর্শণ শেষে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী ড. শামসুল আলম জমির বরাবরে থাকা মেঘনা নদীর পাড় পরিদর্শণ করেন এবং এখানকার বাঁধ রক্ষার বিষয়ে খোঁজ-খবর নেন স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী’র কাছ থেকে।
পরে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী চাঁদপুর শহরের দৃষ্টিনন্দন ও পর্যটন এলাকা হিসেবে খ্যাত চাঁদপুর বড়স্টেশন মোলহেড পরিদর্শন করেন। এ সময় চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র অ্যাডঃ জিল্লুর রহমান জুয়েল প্রতিমন্ত্রীকে স্বাগত জানান এবং তিন নদীর মোহনা খ্যাত বড় স্টেশন মোলহেড ঘুরে ঘুরে পর্যবেক্ষণ করেন।

তখন উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ, স্থানীয় পানি উন্নয়ন বোর্ডে’র নির্বাহী প্রকৌশলী, চাঁদপুর প্রেসক্লাব সভাপতি ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, চাঁদপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র মোহাম্মদ আলী মাঝিসহ পৌরসভা’র কাউন্সিলর ও সুধিজন।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *