চাঁদপুর মেডিকেল কলেজের বার্ষিক পুরষ্কার বিতরণ ও স্বর্নালি সন্ধ্যা

মাসুদ রানাঃ

চাঁদপুর মেডিকেল কলেজের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ ও স্বর্নালি সন্ধ্যা, চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বর্নাঢ্য আয়োজনে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

গতকাল ৩০ অক্টোবর সন্ধ্যায় জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে চাঁদপুর মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ডাঃ জামাল সালেহ উদ্দীনের সভাপতিত্বে ও তাসনিম তাবাসসুম আদিবা, মোঃ সৌরভ হাসান, তাহসিন রহমান, খাদিজা আলম খুকুর যৌথ পরিচালনায় এ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়।

তিনি বলেন, আামাদের ছাত্র ছাত্রীরা প্রচুর সীমাবদ্ধতার মধ্যে ক্লাস চালিয়ে যাচ্ছে। তারপরও আমাদের এই প্রোগ্রামটি এত সুন্দর হবে আমি কল্পনাও করিনি। আমাদের প্রস্তুতি ছিলো সাদামাটা ভাবেই প্রোগ্রামটি অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত আমাদের পাঁচতলার কনফারেন্স রুমের চালটি গত সিত্রাং নামক ঘুর্ণিঝড়ে উড়ে যাওয়ায় জেলা শিল্পকলা হলরুমে এত সুন্দর অনুষ্ঠান হলো। এ অনুষ্ঠানে আমাদের শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি থাকলে অত্যন্ত খুশি হতেন।

তিনি আরও বলেন, চাঁদপুরে একটি স্থায়ী ক্যাম্পাস আমি করতে পারলাম না, আসলে এ কাজটি অধ্যক্ষের নয়। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী মহদয়ের অক্লান্ত প্রচেষ্টার ফসল এই মেডিকেল কলেজ। শুধু চাঁদপুর মেডিকেল কলেজ নয়, নেত্রকোনা, মাগুরা সহ মোট পাঁচটি মেডিকেল কলেজ একই সাথে অনুমোদন দিয়েছিলেন। এই পাঁচটি মেডিকেল কলেজ অনুমোদনের পরে ছাত্র ছাত্রী ভর্তি কারার অনুমোদন পায় সুনামগঞ্জ মেডিকেল কলেজ। সুনামগঞ্জ মেডিকেল কলেজ যদি তাদের অবকাঠামো সহ সবকিছু কমপ্লিট করার পরে ছাত্র ছাত্রী ভর্তি কারার অনুমতি পায়, তাহলে আমরা কেন পারলাম না। আামাদেরও দাবি আমাদের মন্ত্রী মহোদয় আমাদের প্রকল্পটাকেও খুব দ্রুত এগিয়ে নিয়ে যাবেন।

বক্তব্য রাখেন, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডাঃ এ কে এম মাহবুবুর রহমান, জেলা বি,এম,এ সভাপতি ডাঃ সৈয়দ মোঃ নুরুল হুদা, চাঁদপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী, ডাঃ মাহমুদুন নবী মাসুম, এডঃ সাইফুদ্দিন বাবু, ডাঃ হারুনুর রশিদ।

উপস্থিত ছিলেন,ডাঃ এ কে এম মাহবুবুর রহমান,ডাঃ সাইফুল ইসলাম সোহেল, বাবুরহাট কলেজের অধ্যক্ষ মোশাররফ হোসেন, ডাঃ পিজুষ কান্তি বড়ুয়া,প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআান তেলাওয়াত করেন রবিউল হাসান।

শেয়ার করুন: