চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের চার্টার ডে উপলক্ষে বিশেষ অনুষ্ঠান

স্টাফ রিপোর্টার ॥

চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের চার্টার ডে উপলক্ষে ইফতার, দরিদ্র অসুস্থদের অর্থ সহায়তা ও এতিমদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৪টায় আয়োজন করা হয় দোয়া ও ইফতার মাহফিলের।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন রোটারী ইন্টারন্যাশনাল ডিস্ট্রিক্ট-৩২৮২, বাংলাদেশের ডিস্ট্রিক্ট গভর্নর রোটারিয়ান আবু ফয়েজ খান চৌধুরী। তিনি তার বক্তব্যে বলেন, চাঁদপুর রোটারী ক্লাব একটি সমৃদ্ধ ক্লাব। চাঁদপুর রোটারী ক্লাব নেতা তৈরি করে। চাঁদপুর শহর সাজাতে রোটারী ক্লাবের অনেক অবদান রয়েছে। এই ক্লাবটি সারাদেশের মধ্যে একটি উল্লেখযোগ্য ক্লাব।
এসময় রোটারী গভর্নর রোটারিয়ান আবু ফয়েজ খান চৌধুরী ৩ জন দরিদ্র অসুস্থদের মাঝে অর্থ সহায়তা এবং ৩টি মাদ্রাসার অসহায় ও এতিমদের মাঝে ঈদ সামগ্রী বিতরণ করেন।

ক্লাব প্রেসিডেন্ট রোটারিয়ান শাহেদুল হক মোর্শেদের সভাপতিত্বে এবং উদযাপন কমিটির চেয়ারম্যান রোটারিয়ান পিপি তমাল কুমার ঘোষের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন ক্লাবের চার্টার মেম্বার পিপি রোটা. এমএ মাসুদ ভূঁইয়া, এসিস্ট্যান্ট গভর্নর রোটা. সাইয়্যেদুল ইসলাম বাবু, চাঁদপুর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ও মতলব রোটারী ক্লাবের চার্টার প্রেসিডেন্ট রোটা. ডা. একেএম মাহাবুবুর রহমান, চাঁদপুর আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের সাবেক সভাপতি অ্যাড. কামাল উদ্দিন আহমেদ, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌস, পিপি রোটা. কাজী শাহাদাত প্রমুখ।

উল্লেখ্য, ১৯৭০ সালের ২০ নভেম্বর চাঁদপুর রোটারী ক্লাব প্রতিষ্ঠা করা হয়। চাঁদপুর রোটারী ক্লাবের প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে চাঁদপুর শহর তথা এ অঞ্চলে রোটারীর পথচলা শুরু হয়েছিলো। ক্লাবের চার্টার প্রেসিডেন্ট মরহুম রোটারিয়ান ডা. নূরুর রহমানের অনুপ্রেরণায় চাঁদপুর রোটারী অঙ্গনে প্রবেশ করে। ১৯৭০ সালে ক্লাবের প্রতিষ্ঠা হলেও ক’মাস পরই মহান মুক্তিযুদ্ধ এবং দেশ স্বাধীনের পর নানা কারণে ক্লাবের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি পেতে কিছুটা দেরি হয়। পরবর্তীতে ১৯৭৪ সালের ১২ এপ্রিল রোটারী ইন্টারন্যাশনাল থেকে চাঁদপুর রোটারী ক্লাব চার্টার লাভ করে। শেষ

শেয়ার করুন: