চাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমিতে বর্ণিল বসন্ত উৎসব

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

বাঙালির বারমাসে পার্বণ সংস্কৃতির এক অপার নিদর্শন বসন্ত বরণ। ফুল ফুটুক আর নাই ফুটুক বসন্ত বরণে বাঙালি সর্বদাই সচেষ্ট। দেশীয় ঐতিহ্যবাহী পোশাকে নানা বয়সের নারী, পুরুষ ও শিশুর পদচারণায় শনিবার সন্ধ্যায় মুখরিত হয়ে উঠেছিল চাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমি আয়োজিত বসন্ত উৎসব।

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর ৪৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও বসন্ত উৎসব ২৪২৮ বর্ণিল আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

করোনা জনিত বিধিনিষেধের কারণে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত সংখ্যক দর্শকের উপস্থিতিতে চাঁদপুর জেলা শিল্পকলা একাডেমি গান ও নৃত্যের বর্ণিল পরিবেশনায় বরণ করলো ঋতুরাজ বসন্তকে। বসন্ত বরণ উপলক্ষ্যে গতকাল সন্ধ্যা ৭টায় শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে আয়োজন করা হয় এই অনুষ্ঠানের।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মাহমুদ ইমতিয়াজ হোসেনের সভাপতিত্বে ও জেলা কালচারাল অফিসার আয়াজ মাবুদের তত্ত্বাবধায়নে অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন সাংবাদিক এমআর ইসলাম বাবু।

প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ ও জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায় (প্রশাসন ও অর্থ)। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশের স্বামী আবুল কাশেম মোঃ জহুরুল হক।

অনুষ্ঠানে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের নেতৃবৃন্দ, সাংস্কৃতিক সংগঠক, প্রশাসনিক কর্মকর্তা এবং বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক বলেন, বসন্তসহ ঋতুভিত্তিক এ আয়োজন আমাদের সংস্কৃতিচর্চার জন্য অত্যন্ত তাৎপর্যবহ। ছয় ঋতুর বৈচিত্র আমাদের সংস্কৃতিকে নানাভাবে আলোকিত ও প্রভাবিত করেছে।ঋতুরাজের হাত ধরে এবার আসুক নতুন দিন, এমনটাই প্রত্যাশা সবার।
আলোচনা পর্ব শেষে চাঁদপুর শিল্পকলা একাডেমির শিল্পীবৃন্দের সমবেত সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় বসন্ত উৎসব অনুষ্ঠান। মনোমুগ্ধকর পরিবেশনা ও বর্ণিল আয়োজনে বিমোহিত আগত সকল দর্শক।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.