চাঁদপুর সদরে এই প্রথম ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

প্রথম বারের মতো চাঁদপুর সদর উপজেলায় ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০২২ উপলক্ষে সাংবাদিকদের সাথে প্রেস ব্রিফিং করেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ভারপ্রাপ্ত) মোঃ হেদায়েত উল্যাহ । মঙ্গলবার (৮ নভেম্বর) দুপুরের উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তার বক্তব্যে বলেন, আজ ৯ নভেম্বর চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে সকাল ৯টায় থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত দিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০২২ অনুষ্ঠিত হবে। মেলায় উদ্ভাবনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান। এ মেলায় প্যাভিলিয়ন-১ (উদ্ভাবনী উদ্যোগ ও স্টার্টআপ), প্যাভিলিয়ন-২ (ডিজিটাল সেবা), প্যাভিলিয়ন-৩ (হাতের মুঠোয় সেবা), প্যাভিলিয়ন-৪ (শিক্ষা, দক্ষতা উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান) এর অন্তর্ভুক্ত অফিস / প্রতিষ্ঠানসমূহের দপ্তর অংশগ্রহণ করবে এবং সেরা তিনটি দপ্তরকে পুরষ্কার প্রদান করা হবে।

তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদে সার্বিক দিকনির্দেশনায় প্রযুক্তিবান্ধব নানা উদ্ভাবন ও সেবা তৈরির মাধ্যমে ইতোমধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশ কার্যক্রম বাস্তবায়ন সময় হয়েছে। উন্নয়নের অগ্রযাত্রায় ২০৩০ সালের মধ্যে ডিজিটাল বাংলাদেশকে টেকসই লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে মডেল এসডিজি রাষ্ট্র এবং ২০৪১ সালের মধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তারই অংশ হিসেবে “উদ্ভাবনী জয়োল্যানে স্মার্ট বাংলাদেশ” এই শ্লোগানকে সামনে দেশব্যাপী আয়োজন করা হচ্ছে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০২২। মেলায় সকলের উপস্থিতি মেলাকে আরও প্রানবন্ত করার লক্ষ্যে সাংবাদিকগণের সহযোগিতা একান্ত কাম্য করছি।

প্রেস ব্রিফিং অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন, সাবেক সভাপতি শরীফ চৌধুরী,ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশনের সাদারণ সম্পাদক কেএম মাসুদ, উপজেলা মহিলা বিষয় কর্মকর্তা কবিতা ইসলাম, উপজেলা সহকারি প্রোগ্রামার(আইসিটি) কর্মকর্তা মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, ইউপি চেয়ারম্যানসহ বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ।

ইউএনও মেলা আউটলাইন সর্ম্পকে বলেন, ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলা ২০২২ এ একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) কর্তৃক প্রদত্ত নির্দেশনার আলোকে ০৪টি প্যাভিলিয়ন থাকবে।

প্যাভিলিয়ন ০১:
উদ্ভাবনী উদ্যোগ ও স্টার্টআপে থাকছে : মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমি ও উন্মুক্ত এই ০৩টি পর্যায়ের উদ্ভাবকদের নিয়ে কৃষি, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, যোগাযোগ, স্মার্ট বাংলাদেশ, সামাজিক সমস্যা সমাধান, অগ্রসরমান বিভিন্ন প্রযুক্তি বিষয়ে উদ্ভাবনী আইডিয়া/ প্রজেক্ট প্রদর্শন করা যাবে। অংশ গ্রহণকারীদের মধ্য থেকে ০৩টি ক্যাটাগরি থেকে ১ম ২য় ও ৩য় নির্বাচন করা হবে। নির্বাচিতরা জেলা পর্যায়ে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলায় অংশ গ্রহণ করার সুযোগ পাবে।

প্যাভিলিয়ন ০২: ডিজিটাল সেবা: সরকারি বিভিন্ন খাতে জনবান্ধব গুরুত্বপূর্ণ সকল ডিজিটাল সেবা নিয়ে উক্ত প্যাভিলিয়নে অংশ গ্রহণ করবে উপজেলা প্রশাসন, উপজেলা ভূমি অফিস, উপজেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, উপজেলা কৃষি বিভাগ, উপজেলা প্রাণিসম্পদ বিভাগ, উপজেলা তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ, সহ গুরুত্বপূর্ণ বিভাগসমূহ তাদের নিজ নিজ বিভাগে সরকারের ডিজিটাল সেবা সম্পর্কে জনগণকে অবহিত করবেন এবং মেলা প্রাঙ্গণ থেকে সেবা প্রদান করবেন।

প্যাভিলিয়ন ০৩: হাতের মুঠোয় সেবা (ডিজিটাল সেন্টার, পোস্ট ই-সেন্টার, ই-কমার্স ও অন্যান্য আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠানসমূহ) উক্ত প্যাভিলিয়নে ডিজিটাল সেন্টার, পোস্ট ই-সেন্টার, ই-কমার্স ও অন্যান্য আর্থিক সেবা প্রতিষ্ঠানসমূহ অংশ গ্রহণ করবেন।

প্যাভিলিয়ন ০৪:
শিক্ষা, দক্ষতা উন্নয়ন ও কর্মসংস্থান শিক্ষা সংশ্লিষ্ট উদ্ভাবনী উদ্যোগ সমূহ যেমন মুক্তপাঠ, মাল্টিমিডিয়া ক্লাশরুম, মডেল কনটেন্ট, যুব উন্নয়ন, চাঁদপুর টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজ অংশগ্রহণ করবেন।

শেয়ার করুন: