চালক ও পথচারীদের মাঝে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের মাস্ক বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার:

সারাদেশে আঘাত হানতে শুরু করেছে করোনার তৃতীয় থাবা। প্রতিদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। পিছিয়ে নেই চাঁদপুরও। গত ১০ দিনে চাঁদপুরে সংক্রমণের হার ৯ শতাংশ থেকে ৩০ শতাংশের উপর উঠেছে। সংক্রমণ বৃদ্ধি পেলেও এখনো মানুষের মাঝে সচেতনতার অভাব লক্ষ্য করা গেছে। রাস্তা-ঘাট, মার্কেট এমনকি হাট-বাজারেও মাস্কবিহীন অবাধে চলাফেরা করছে সবাই।

আর তাই করোনা প্রতিরোধে ও জনসাধারণকে করোনা ভয়াবহতা সম্পর্কে সচেতন করার লক্ষ্যে চাঁদপুর প্রেসক্লাবের পক্ষ থেকে ৭ দিনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। গতকাল রোববার ছিল কর্মসূচির তৃতীয় দিন। অন্যান্য দিনের ধারাবাহিকতায় এদিনও প্রেসক্লাবের উদ্যোগে সদর উপজেলা পরিষদের সামনে কুমিল্লা-চাঁদপুর আঞ্চলিক মহাসড়কে চলাচলকারী চালক ও পথচারীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক রিয়াদ ফেরদৌসের সঞ্চালনায় এদিন প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজ ও ভাইস চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী বেপারী।

এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান বলেন, জনগণ এখনো এতটাই উদাসীন যে, মাস্ক ছাড়াই ঘর থেকে বের হয়ে যায়। কিন্তু একবারও নিজের বা পরিবারের কথা ভাবেন না। মনে রাখবেন করোনা আক্রান্ত হলে হয়তো আপনার কিছু হবে না। কিন্তু আপনার কারণে হয়তো ঘরে যারা অসুস্থ রয়েছেন তাদেরকে হারাতে হতে পারে। যার জন্য সারাজীবন নিজের কাছে নিজেই দায়ী হয়ে থাকবেন। তাই করোনা মোকাবেলায় আমি সবাইকে সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার আহ্বান জানাই এবং ঘর থেকে বের হওয়ার আগে মাস্ক পরিধান করবেন। পাশাপাশি সরকারি যে নির্দেশনা রয়েছে তা প্রতিপালন করুন।

সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার সানজিদা শাহনাজ বলেন, মাস্ক পরিধান নিশ্চিত করতে এখনো ক্যাম্পেইন করতে হয় যা অত্যন্ত দুঃখজনক। প্রায় আড়াই বছর হয়ে গেছে দেশে করোনা আঘাত হেনেছে। কিন্তু এখনো সাধারণ মানুষকে মাস্ক পড়ার জন্য বলতে হচ্ছে। অনেকেই কিন্তু করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন বা বিভিন্নভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন। সেসব ক্ষতির কথা চিন্তা করে হলেও আমাদের সচেতন হওয়া দরকার। তিনি বলেন, মানুষকে সচেতন করতে ধৈর্য নিয়ে চাঁদপুর প্রেসক্লাব যে কার্যক্রম পরিচালনা করছে এজন্য প্রেসক্লাবের নেতৃবৃন্দকে ধন্যবাদ জানাই।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি এ.এইচ.এম আহসান উল্লাহ, প্রচার ও দপ্তর সম্পাদক এবং দৈনিক শপথ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক কাদের পলাশ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোরশেদ আলম রোকন, কার্যকরী সদস্য মির্জা জাকির, বালিয়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সদস্য মিজান লিটন, মোঃ শরীফুল ইসলামসহ অন্যান্য সাংবাদিকবৃন্দ।

উল্লেখ্য, চাঁদপুরে প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। আর তাই সংক্রমণ রোধে ও জনমনে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে চাঁদপুর প্রেসক্লাব ৭দিনব্যাপী কর্মসূচি গ্রহণ করে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.