জাতীয় মাছ ইলিশ রক্ষায় আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে

মতলব উত্তর প্রতিবেদক:

মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার বলেন, ইলিশ উৎপাদন বৃদ্ধির অন্যতম কৌশল হচ্ছে জাটকা সংরক্ষণ এবং ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে পরিপক্ব ইলিশ রক্ষা করা। ইলিশের প্রধান প্রজনন মৌসুমে পরিপক্ব ইলিশ সুরক্ষা করা সম্ভব হলে ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধিতে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে। বিষয়টি অনুধাবন করে সরকার ইতোমধ্যেই ইলিশ সম্পদ উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। ইলিশ সম্পদ রক্ষার মাধ্যমে জাতীয় উন্নয়নে ভূমিকার রাখা যাবে। জেলেদের স্বাভলম্বী করতে সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে।

বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে বৃহত্তর কুমিল্লা জেলার মৎস্য উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় মতলব উত্তর উপজেলার নিবন্ধিত জেলেদের মাঝে বিকল্প আয় বর্ধনমূলক উপকরণ বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

ইউএনও শারমিন আক্তার বলেন, জাটকা ও মা ইলিশ আহরণ নিষিদ্ধ সময়ে দরিদ্র জেলেদের খাদ্যশস্য বিতরণ ও বিকল্প আয়ের ব্যবস্থা গ্রহণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সরকার শুধু জাটকা ধরা বন্ধে নয়, ইলিশের প্রজনন মৌসুমে পরিপক্ব ইলিশ যেন নিরাপদে ডিম ছাড়তে পারে সেজন্য ২২ দিন প্রজননক্ষেত্রের ৭ হাজার বর্গকিলোমিটার এলাকাসহ দেশব্যাপী ইলিশ আহরণ, পরিবহণ, বাজারজাতকরণ, বিক্রয় ও মজুদ নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে।
তিনি আরো বলেন, জাতীয় মাছ ইলিশ রক্ষায় আমাদের সবাইকে সচেতন হতে হবে। যেসব জেলেরা ইলিশ ধরার সাথে সম্পৃক্ত আছেন, তারা নিষিদ্ধ সময়ে ইলিশ আহরণ করবেন না। সরকার আপনাদের বিকল্প কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষে এ সব উপকরণ দিচ্ছে। তাই জাতীয় সম্পদ ইলিশ আমাদের সবাইকে দায়িত্ব নিয়ে রক্ষা করতে হবে।

এ সময় সহকারি কমিশনার (ভূমি) মো. আনোয়ার হোসাইন পাটোয়ারী, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মো. আব্দুল কাইয়ুম খান, সিনিয়র উপজেলা কর্মকর্তা মো. সাখাওয়াত হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *