জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রস্তাবনায় চাঁদপুরে ১শ’৭ প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ৫৩ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ আদায়

নিজস্ব প্রতিবেদক॥

চাঁদপুর জেলায় গত এক বছরে অর্থাৎ ২০২০-২১ অর্থবছরে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে ৫২ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ আদায় করা হয়েছে। পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক নাজিম হোসেন শেখ গতকাল (২৮ সেপ্টেম্বর) মেঘনা বার্তাকে এ তথ্য জানান।

পরিবেশ অধিদপ্তরের প্রস্তাবনা অনুযায়ী ছাড়পত্রবিহীন, ছাড়পত্রে মেয়াদ উর্ত্তীন,পরিবেশ দূষণ প্রতিষ্ঠান পরিচালনার কারণে গত বছর ২০২০ সালের ৩ ফেব্রুয়ারী থেকে ২০২১ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত ১শ’৭টি প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে এ ক্ষতিপূরণ আদায় করে চট্টগ্রাম অঞ্চল পরিবেশ অধিদপ্তর।

চট্টগ্রাম অঞ্চল পরিবেশ অধিদপ্তরের কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানগুলোর উদ্যোক্তাদের উপস্থিতিতে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। ওই শুনানিতে পরিবেশ ও প্রতিবেশের ক্ষতি করায় প্রতিষ্ঠানগুলোকে ৫২ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ ধার্য করা হয়।

এ টাকা নির্দেশনা অনুযায়ী ট্রেজারি চালানের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ পরিবেশ অধিদপ্তর মহাপরিচালক বরাবর নির্ধারিত কোডে ক্ষতিপূরণ জমা দেন ।

ক্ষতিপূরনকৃত প্রতিষ্ঠান গুলো হচ্ছে , চাঁদপুর সদরের খাজা বাবা অটো রাইস মিল, এফ এম ব্রিকস, আর এন্ড এস ব্রিকস, জননী ব্রিকস কর্পোরেশন, খাজা বাবা অটো ফ্লাওয়ার মিল, দি মুক্তি প্যাথলজি এন্ড এক্সরে ক্লিনিক, ইনসাফ ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, রয়েল ম্যাক্স হসপিটাল, আর এন্ড এস ব্রিক ফিল্ড, শাখাওয়াত হোসেন শাকিল গং, মাতৃছায়া ডায়াগনস্টিক সেন্টার, নিউ মেডিনোভা ডিজিটাল মেডিক্যাল সেন্টার, শাহ শরীফ জেনারেল এন্ড ডায়াগনস্টিক হাসপাতাল, তফাদার অটোরাইস মিল, মেটকো শীপ বিল্ডার্স,মেসার্স এস কে বি ব্রিকস, পিয়ারলেস ডক্টরস পয়েন্ট, মিডল্যান্ড হাসপাতাল লিঃ, ফ্যামিলি কেয়ার হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার ক্রিসেন্ট হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মমতা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আল আকসা ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মেসার্স মায়ের দোয়া ব্রিকস, গ্রীন ডায়াগনস্টিক, মেডি প্লাস ডায়াগনস্টিক. চাঁদপুর আল আমিন হাসপাতাল প্রা. লিঃ, দি কমফোর্ট প্যাথলজি,,মীম ডায়াগনষ্টিক সেন্টার,ইসলামিয়া প্যাথলজি এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার,হিতৈষী ক্লিনিক ও গ্যাস্ট্রোলিভার সেন্টার, আজাদ এক্সরে এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, সদর, কেয়ার এন্ড কিউর কনসালটেশন সেন্টার, নিউ ডেল্টা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার, খন্দকার ফিস প্রসেসিং, পদ্মা হাসপাতাল এন্ড ডায়া. সেন্টার, বাবা মাল্টিপল ইন্ডা. ডলঃ,জেবা মর্ডান ডিজিটাল ডায়াগনষ্টিক সেন্টার,মেডিনোভা মেডিকেল এন্ড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, মুক্তি হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক।

কচুয়া উপজেলায় খাজা ফিলিং স্টেশন, পপুলার মেডিকেল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, সুলতানা ফিলিং স্টেশন, তিশা ডিজিটাল ল্যাব এন্ড কনসালটেশন, ডায়মন্ড হসপিটাল এন্ড ল্যাব, কচুয়া ট্রমা এন্ড জেনারেল হাসপাতাল(প্রা.) লি. মেসার্স ভাই ভাই ব্রিকস, ডাঃ শহীদুল ইসলাম মেডিকেল সেন্টার, এস এ বি ব্রিকস, রেনেসা মেডিক্যাল সেন্টার, জননী মেডিকেল সার্ভিস, আলিফ মেডিক্যাল সেন্টার, লতিফা ব্রিকস ম্যানু.আমেনা আবিদ ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, গাউছুল আজম ব্রিক ফিল্ড-১ কাজী মেডিকেল সেন্টার, ফয়জুন্নেছা দাতব্য চিকিৎসাকেন্দ্র হাসপাতাল, সুলতানা ওয়েল মিল।

হাজীগঞ্জ উপজেলায় ফাহিম ব্রিকস, মেসার্স সেলিম ব্রিকস, এম বি এম ব্রিক,মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার, আলরাজি ডায়াগনস্টিক সেন্টার, হাজীগঞ্জ সিটি স্ক্যান এন্ড স্পেশালাইজড ডায়াগনষ্টিক , গোল্ডন ডেইরী ফার্ম, হলিকেয়ার ডিজিটাল মেডিক্যাল সেন্টার, হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার, একুশে ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, মেসার্স কনা ব্রিক ফিল্ড,জনসেবা মেডিক্যাল হল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, মেসার্স কনা ব্রিক ফিল্ড, নিউ মেডিকেয়ার ডায়াগনস্টিক সেন্টার।
শাহরাস্তি উপজেলায় গাউছুল আজম ব্রিকস-২,মেসার্স মমতাজ ব্রিক ফিল্ড, আল মদিনা ব্রিকস,এস, এস, বি ব্রিক ফিল্ড,মাহেলা ব্রিকস,এস রহমান ব্রিকস,নিউ ল্যাব এইড ডায়াগনষ্টিক সেন্টার, সুরক্ষা মেডিক্যাল সার্ভিস,জেনারেল হাসপাতাল,মেডিল্যাব হাসপাতাল,মেডিক্যাল সার্ভিসেস,নিউ মডার্ন ল্যাব, আলমগীর নয়ন ব্রিকস (পূর্বের নাম ভাই ভাই ব্রিকস),আলতাফ অটো ফ্লাওয়ার মিল,হায়দার নাছির ব্রিকস (পূর্বের নাম ভাই ভাই ব্রিকস-১),

মতলব দক্ষিণ উপজেলায় নাভানা ডিজিটাল ডায়া.,দি নোভা মেডিকেল সেন্টার,প্রধানীয়া কেমিক্যাল কোংমল্লিক ডায়াগনস্টিক সেন্টার, দি ইবনে সিনা ডিজিটাল ডায়াগনস্টিক সেন্টার,দি মদিনা প্যাথলজিক্যাল সেন্টার।

মতলব উত্তর উপজেলায় পপুলার ব্রিকস,সরকার ব্রিকস,ছেঙ্গারচর ইসলামিয়া চক্ষু হাসপাতাল,মুন মেডিকেল সেন্টার,ইসলাম ব্রিকস,ছেঙ্গারচর জেনারেল হাসপাতাল এন্ড ডায়াগনস্টিক সেন্টার, বাড়িয়া ডায়াগনস্টিক সেন্টার, কাদের ব্রিকস ম্যানু.নাজির আহমেদ চৌধুরী ব্রিকস ম্যানু।
এবং ফরিদগঞ্জ উপজেলায় মেসার্স এ কে ডি ব্রিকস,জেনারেল ডায়াগনস্টিক সেন্টার,ঝর্ণা হাসপাতাল প্রা।

চাঁদপুর জেলা পরিবেশ অধিদপ্তরের সহকারি পরিচালক নাজিম হোসেন শেখ জানান,হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার,ব্রিকস ফিল্ড,রাইস মিলসহ মোট ১শ’৭টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৫২ লক্ষ ৮৮ হাজার টাকা আদায় করা হয়।পরিবেশ অধিদপ্তরের এ ধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.