ডাকাতিয়া ব্রিজ সংস্কারে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে : মেজর রফিকুল

নিজস্ব প্রতিনিধি ॥

হাজীগঞ্জ ডাকাতিয়া ব্রিজ পরিদর্শনে করেছেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর অবসরপ্রাপ্ত রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপি। ১৬ জুলাই শনিবার বিকাল ৩টায় হাজীগঞ্জ রামগঞ্জ সড়কের ডাকাতিয়া নদীর উপর নির্মিত ডাকাতিয়া সেতু ক্ষতিগ্রস্ত পিলারের স্থানে পরিদর্শন করেন তিনি।
এসময় তিনি বলেন,ব্রিজটি সংস্কারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। ব্রিজের ক্ষতিগ্রস্ত পিলার পরীক্ষা নিরীক্ষা করে তা ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সড়ক ও জনপদ বিভাগকে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্দেশ দেন।

সম্প্রতি ডাকাতিয়া ব্রিজ রক্ষার বিষয়টি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম প্রতিবাদের ঝড় উঠে।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম রাষ্ট্রীয় সম্পদ ডাকাতিয়া ব্রিজ রক্ষায় একটি স্ট্যাটাস দেন হাজীগঞ্জ পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাছান রাব্বী। এর বিষয়টি নিয়ে তোলপাড় সৃষ্টি হয়।

ওই সময় তিনি ব্রিজের পিলারের একাধিক ছবি পোস্ট করেন। কয়েকটি ছবিতে দেখা যায়, ব্রিজের একটি পিলারে পলেস্তার খসে পড়ে রড দেখা যাচ্ছে। ওই পিলারের রোডগুলো পানিতে নষ্ট হওয়ার উপক্রম।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে বিষয়টি ছড়িয়ে পড়ায় এই সংসদ সদস্যের নজরে আসে ব্রিজটি।তাই প্রেক্ষিতে সরেজমিনে তিনি পরিদর্শন করেন।

এ সময় ব্রিজের দুই পাশে নিদিষ্ট সীমানা নির্ধারণ করে সেখান থেকে বালু মহাল সরিয়ে নেওয়া এবং ব্রিজটি রক্ষণাবেক্ষণে সড়ক ও জনপদ বিভাগসহ স্থানীয় প্রশাসনকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাগ্রহণের নির্দেশ দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রাশেদুল ইসলাম, হাজীগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ জুবাইর সৈয়দ, উপজেলা প্রকৌশলী রেজওয়ানুল হক, সড়ক ও জনপদ বিভাগের উপজেলা প্রকৌশলী কার্যালয়ে উপ-পরিচালক রমিজ উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ।

এদিকে ১৪ জুলাই বৃহস্পতিবার দুপুরে হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ রাশেদুল ইসলাম ডাকাতিয়া ব্রিজ পরিদর্শন করেন এবং তিন বালু মহাল কে জরিমানা করা হয়।

প্রসঙ্গ তৎকালিন ১৯৯৬-২০০১ সালে এমপি থাকাকালী মেজর অব. রফিকুল ইসলাম বীর উত্তম এমপির মাধ্যমে নির্মিত হাজীগঞ্জ-রামগঞ্জ সড়কের হাজীগঞ্জ ডাকাতিয়া সেতুটি বালু বহনকারী ট্রলারের ধাক্কায় নদীর মাঝখানে থাকা ব্রিজের পিলারগুলো ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হয়।

শেয়ার করুন: