তৃতীয় পক্ষের ইন্ধনে শিক্ষার্থী-ব্যবসায়ী সংঘর্ষ : শিক্ষামন্ত্রী

হাসান আল মামুন ॥

ঢাকা কলেজ শিক্ষার্থী এবং ব্যবসায়ীদের মধ্যে সংঘাত ছড়িয়ে দিতে তৃতীয় পক্ষের ইন্ধন ছিল বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তবে এ ঘটনায় নিহত দুজনের পরিবারের পাশে দাঁড়াবে সরকার বলে প্রতিশ্রুতি দেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে এতবড় সংঘাত? তার জন্য মূলত ওই তৃতীয় পক্ষই দায়ী। তবে এই ঘটনায় নিহত দুজনের পরিবারের পাশে সরকার দাঁড়াবে। গোটা পরিস্থিতি নিয়ে সরকার বেশ সজাগ রয়েছে।

শুক্রবার বিকেলে চাঁদপুর সার্কিট হাউসে উপস্থিত সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, নিউ মার্কেটে ফাস্টফুডের যে দোকানি। তাদের রাজনৈতিক পরিচয় জানা গেছে। নিজেদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা, শিক্ষার্থীদের এনে তার ব্যাপকতা ছড়িয়ে একটা অরাজকতার পরিবেশ তৈরি করেছে। সুতরাং কোনো অবস্থায় এদের ছাড় দেওয়ার সুযোগ নেই।
নিউ মার্কেট ও তার আশপাশের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলা প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পবিত্র ঈদুল ফিরত সামনে। এখনই তাদের ব্যবসা করার সময়। তাছাড়া বিগত দুইবছর করোনার কারণে ব্যবসায়ীদের অনেক ক্ষতি হয়েছে। তা বিবেচনায় নিয়ে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আরেক প্রশ্নের জবাবে অন্যদেশের চেয়ে আমাদের দেশের উচ্চ শিক্ষার মান তেমন খারাপ নয়। এরমধ্যে বিশ্ব র‌্যাংকিংয়ে মান ধরে রাখতে আমরা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। এমন পরিস্থিতিতে দেশের বেশকিছু বিশ্ববিদ্যালয় অনেক ভালো করছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী। যারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উচ্চ শিক্ষার মান র‌্যাংকিং করে। তারা কোন মানদণ্ডে তা করেন, সংশ্লিষ্টদের কাছে এমন প্রশ্ন রাখেন তিনি।

শিক্ষামন্ত্রী পরে সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে কৃষকদের মাঝে কৃষি উপকরণ সামগ্রী বিতরণ করেন। এ সময় জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ, পুলিশ সুপার মিলন মাহমুদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, কৃষি বিভাগের উপপরিচালক জালাল উদ্দিন, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নূরুল ইসলাম দেওয়ান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সানজিদা শাহনাজসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। সবশেষ চাঁদপুর ক্লাবে আয়োজিত এক ইফতার মাহফিলে যোগ দেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.