দুর্নীতি ও অনিয়ম দেখতে চাই না : পরিকল্পনা সচিব

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. নুরুল আমিন বলেছেন, যে কোন কাজের মধ্যে আমরা দুর্নীতি ও অনিয়ম দেখতে চাই না। উন্নয়নমূলক কাজ দেখার অধিকার রয়েছে সবার। জেলা প্রশাসক যে কোন কাজেরই তদারকি করতে পারেন। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করে উন্নয়ন কাজ করলে সুফল আসবে। চাঁদপুরের উন্নয়নের জন্য আমাদের আরো যোগাযোগ বাড়াতে হবে। আন্তরিকতা ও আগ্রহ নিয়ে উন্নয়ন কাজগুলো করা হলে আমরা এগিয়ে যাব।

তিনি রোববার (২০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় চাঁদপুর জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলার মাসিক উন্নয়ন সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি সভার শুরুতে প্রধানমন্ত্রীর অনুশাসন লিখিত পাঠ করেন। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, প্রত্যেক উপজেলায় স্টেডিয়াম করা হবে। প্রকল্প পরিচালক হিসেবে যোগ্য ব্যাক্তিদের নিয়োগ দেয়া। একাধিক প্রকল্প গ্রহনকারীদের নিয়োগ না দেয়া। সব কিছু বাস্তবায়নে দুর্নীতিমুক্ত থাকতে হবে। সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, আমাদের বর্তমান দরিদ্র সীমা ২১%, আমেরিকার আছে ১৮%। প্রধানমন্ত্রীর এসব অনুশাসন মেনে চললে আগামী কয়েক বছরের মধ্যে আমাদের দরিদ্র সীমা ১৭% নেমে আসবে।

সচিব বলেন, মা ইলিশ রক্ষা অভিযানে প্রশাসন ভাল পদক্ষেপ গ্রহণ করছেন। যার ফলে ইলিশ উৎপাদনে আমরা বিশ্ব মধ্যে প্রথম স্থানে রয়েছি। এছাড়াও গার্মেন্টস শিল্পে আমরা কিছুদিনের মধ্যে প্রথম স্থান অর্জন করবো। বর্তমানে সারা বিশ্বের সব্জি উৎপাদনে তৃতীয়, মাছ ও ধান উৎপাদনে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছি। সম্মিলিতভাবে কাজ করার কারণে আমরা এই সুফল পাচ্ছি। এক সময় আমরা বিদেশে যেতাম প্রশিক্ষণ গ্রহন করার জন্য। কিন্তু এখন বহি:বিশ্বের মানুষ আমাদের দেশে এসে প্রশিক্ষণ গ্রহন করছেন। তারা কৌতহলী আমাদের উন্নয়ন দেখে।

নুরুল আমিন বলেন, চাঁদপুর জেলায় ২১০টি উন্নয়ন কাজ চলমান রয়েছে। সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বেতন ১২৩% বৃদ্ধি করা হয়েছে। তারপরেও অনেকে দুর্নীতি করেন। আসুন আমরা দেশের প্রতি আন্তরিক হয়ে সরকারের সকল উন্নয়ন কাজগুলো এগিয়ে নিয়ে যাই। তাহলে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা বাস্তবায়ন হবে।

জেলা প্রশাসক মো. মাজেদুর রহমান খানের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন,চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র নাছির উদ্দিন আহমেদ, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, ডাঃ সৈয়দা বদরুন্নাহার চৌধুরী, মতলব দক্ষিন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এইচ এম গিয়াস উদ্দিন, ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাড. জাহিদুল ইসলাম রোমান, হাইমচর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুর হোসেন পাটওয়ারী,চাঁদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কানিজ ফাতেমা, চাঁদপুর টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজের অধ্যক্ষ প্রকৌশলী মো. সিরাজুল ইসলাম,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়াটার) আসাদুজ্জামান প্রমূখ।

উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মিজানুর রহমান,জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এসএম জাকারিয়া, এনএসআই চাঁদপুরের যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ আজিজুল হক, চাঁদপুর সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান,মতলব দক্ষিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহিদুল ইসলাম, হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বৈশাখী বড়ুয়া, হাইমচর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফেরদৌসি বেগম, শাহরাস্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিরীন আক্তারসহ সরকারি বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

সভায় এলজিইডি, গণপূর্ত, সড়ক ও জনপথ, পানি উন্নয়ন বোর্ড, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল, স্বাস্থ্য বিভাগ, বিদ্যুৎ বিভাগ, বিআইডাব্লিউটিএ ও শিক্ষা প্রকৌশল বিভাগের বিগত দিনের উন্নয়ন কর্মকান্ড ডুকুমেন্টারি প্রদর্শন করা হয়।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *