দৈনিক শপথের বর্ষপূর্তি উদযাপন ও সাংবাদিক সম্মাননা প্রদান

স্টাফ রিপোর্টার:

জমকালো আয়োজনের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে চাঁদপুরের পাঠকপ্রিয় পত্রিকা দৈনিক শপথ এর ৪র্থ বর্ষে পদার্পণ। এ উপলক্ষে গতকাল শুক্রবার (২৬ আগস্ট) বিকেল ৩টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বর্ণাঢ্য র‌্যালি, কেক কাটা, সাংবাদিক সম্মাননা ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই প্রধান অতিথি সহ আমন্ত্রিত অতিথিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন দৈনিক শপথ পরিবারের সাংবাদিকবৃন্দ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ও কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব ও কবি আমিনুল ইসলাম। অনুষ্ঠান শুরুর আগে শপথ পরিবারের পক্ষ থেকে সম্মাননাপ্রাপ্ত সাংবাদিক ও আমন্ত্রিত বিশেষ অতিথিদের উত্তরীয় পরিয়ে দেয়া হয়।

দৈনিক শপথের ৪র্থ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিক সম্মাননা-২০২২ গ্রহণ করেন, ৭১ টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক ও এ্যাসাইমেন্ট এডিটর সুজন কবির ও চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি সিনিয়র সাংবাদিক শহীদ পাটোয়ারী।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সেলিনা হাসান বলেন, এমন একটি অনুষ্ঠানে আসতে পেরে অনেক আনন্দিত হয়েছি। গণমাধ্যম হলো একটি রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ। আমি প্রতিদিনই পত্রিকা পড়ে বাসা থেকে বের হই। প্রতিদিন সকালে পত্রিকা না পড়লে মনে হয় যেন দিনের শুরুই হয়নি। তবে সংবাদ মাধ্যমের মধ্যে প্রিন্ট মিডিয়ার গুরুত্ব অনেক বেশি। তারা সমাজের প্রত্যন্ত অঞ্চলের সংবাদটি তুলে ধরেন পত্রিকার মাধ্যমে। দৈনিক শপথ পত্রিকার একটি সংবাদ আমার চোখে পড়ল। এটা মর্মান্তিক ঘটনা। সমাজের এই অবস্থার পরিবর্তন ঘটাতে সাংবাদিকদের ভূমিকা প্রয়োজন।
তিনি বলেন, আমি সাহিত্য চর্চা করি। সাহিত্য আর সাংবাদিকতা প্রায় একই সূত্রে গাঁথা। আমাদের দেশের অনেক স্মরণীয় কবি সাহিত্যিক রয়েছেন যারা পত্রিকার সম্পাদনাও করেছেন। তিনি বলেন, আজ দৈনিক শপথ পত্রিকার চতুর্থ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে এ আয়োজনটি অনেক ভালো লেগেছে। আপনাদেরকে ভালো কিছু করার শপথ নিতে হবে। সমাজের অবহেলিত বঞ্চিত মানুষের কথা তুলে ধরতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে অতিরিক্ত সচিব ও কবি আমিনুল ইসলাম বলেন, আমি কবিতা লিখি, সাহিত্য চর্চা করি আমি কিন্তু গণমাধ্যমের লোক নয়ই। তারপরও আসলাম সাংবাদিকদের অনুষ্ঠানে। ভেবেছি আমার সাহিত্যচর্চা আর কবিতাগুলো সাংবাদিকদের মাধ্যমেই প্রকাশিত হয়। তাই সবার আগে গণমাধ্যমকেই বলা চলে। সকালে যখন পত্রিকা পড়ি এর মাধ্যমে অনেক কিছু জানি ও শিখি। সে হিসেবে সাংবাদিকদেরকে শিক্ষকও বলা যায়। আমাদের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম কিন্তু সম্পাদনা করেছেন। সাংবাদিক হলে কাজী নজরুল ইসলামের মত হতে হবে। সাংবাদিকদের হতে হবে সৎ ও সাহসী। গতানুগতিক নয় সাংবাদিকরা হবে ব্যতিক্রম। সাংবাদিকরা যদি কোন অন্যায়-অপশক্তির কাছে মাথা নত না করে তাহলে আমার দেশ সোনার বাংলায় পরিণত হবে।

চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলনের সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন, স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত নারী বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠের প্রধান সম্পাদক কাজী শাহাদাত, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সিনিয়র সহ-সভাপতি রহিম বাদশা, কবি ছড়াকার ও প্রাবন্ধিক পীযূষ কান্তি বড়ুয়া, কচুয়া প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক শপথের বিশেষ প্রতিনিধি রাকিবুল ইসলাম। দৈনিক শপথ পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক কাদের পলাশের সঞ্চালনা স্বাগত বক্তব্য রাখেন ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক এমএ লতিফ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক শপথ পত্রিকার উপ সম্পাদক মোঃ শাহাজান সিদ্দিকী, স্বাগত বক্তব্য শেষে দৈনিক শপথ-এর সম্পাদক ও প্রকাশক কাদের পলাশ পত্রিকায় সম্পৃক্ত সকল সাংবাদিকদের অতিথিদের সাথে পরিচয় করিয়ে দেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, চাঁদপুর সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ, চ্যানেল আই চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি মোরশেদ আলম রোকন, এখন টিভির চাঁদপুর জেলা প্রতিনিধি তালহা জুবায়ের, কবি ও গবেষক মুহাম্মদ ফরিদ হাসান, কবি ইকবাল পারভেজ, ছড়াকার খান-ই-আজম, চাঁদপুর সাহিত্য মঞ্চের সাধারণ সম্পাদক আশিক বিন রহিম, দৈনিক শপথের গ্রাফিক্স ডিজাইনার ইউনুছ নাজিম, দৈনিক শপথ পত্রিকার উপ সম্পাদক মোঃ শাহাজান সিদ্দিকী, যুগ্ম সম্পাদক মোঃ ওমর ফারুক, নির্বাহী সম্পাদক আবদুল ওয়াদুদ বেপারী, সম্পাদকীয় প্রধান আবু ইউসুফ, বার্তা সম্পাদক নজরুল ইসলাম আতিক, যুগ্ম বার্তা সম্পাদক খোকন কর্মকার, সহ-সম্পাদক ফিরোজ আলম, শরীফ আহমেদ, বিশেষ প্রতিনিধি ইকবাল বাহার, সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার এইচ এম নিজাম, মোহাম্মদ হোসেন আখন্দ, স্টাফ রিপোর্টার ফখরুল ইসলাম টিটু, রহমান রুবেল, রিয়াদ শাওন, সাগর আচার্যী, মোঃ রাসেল পাটোয়ারী, কচুয়া উপজেলা প্রতিনিধি আতাউল করিম, মোঃ রাসেল, শাহরাস্তি প্রতিনিধি আহসান হাবীব পাটওয়ারী, ফরিদগঞ্জ প্রতিনিধি আব্দুস সালাম, আমান উল্ল্যাহ খান ফারাবী, মোঃ ফাহাদ, হাইমচর প্রতিনিধি মোঃ সবুজ হোসাইন, মোঃ মাসুম বিল্লাহ, হাজীগঞ্জ প্রতিনিধি মোঃ হোসাইন বেপারী, মতলব দক্ষিণ প্রতিনিধি ছোবহান ফারুক, মোঃ কবির মজুমদার, মতলব উত্তর প্রতিনিধি তুহিন ফয়েজ, সুমন আহমদ, দৈনিক চাঁদপুর বার্তার সহ-সম্পাদক শাহরিয়া পলাশ, দৈনিক মেঘনা বার্তার স্টাফ রিপোর্ট মাসুদ রানা, দৈনিক আদিবাংলার স্টাফ রিপোর্টার মোহাম্মদ সিন্টু।
উল্লেখ্য, এর আগে মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিক সম্মাননা-২০২০ পেয়েছেন দৈনিক চাঁদপুর দর্পণের সম্পাদক ও প্রকাশক ইকরাম চৌধুরী, দৈনিক চাঁদপুর কন্ঠের প্রধান সম্পাদক সিনিয়র সাংবাদিক কাজী শাহাদাৎ এবং মোহাম্মদ নাসিরউদ্দীন সাংবাদিক সম্মাননা-২০২১ পেয়েছেন চাঁদপুরের প্রবীণ সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া জীবন ও দৈনিক যুগান্তরের সম্পাদক সিনিয়র সাংবাদিক সাইফুল আলম।

শেয়ার করুন: