নববর্ষে শিক্ষামন্ত্রীর শুভেচ্ছা

মেঘনাবার্তা রিপোর্ট:

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে চাঁদপুরের কৃতি সন্তান শিক্ষামন্ত্রী ডা, দীপু মনি এমপি শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এক বার্তায় তিনি বলেন,আজ এক ভিন্ন বাস্তবতায় আমরা বর্ষবরণ করতে যাচ্ছি। করোনা ভাইরাসের শিকার আজ সারা বিশ্বের মানুষ। বিশ্বের সকল দেশে এখন চলছে অচলাবস্থা। বিশ্ব এমন অবস্থা দেখেনি কখনো। অদৃশ্য শত্রু করোনায় আক্রান্ত হয়ে সারা বিশ্বে আজ পর্যন্ত মারা গেছেন ১১৭৭৫৮ (এক লাখ সতেরো হাজার সাতশো আটান্ন) জন। আক্রান্ত হয়েছেন প্রায় উনিশ লাখ মানুষ।

এ রোগের সংক্রমণ ঘটে আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি, কাশি এমনকি কথা বলার সময় মুখ থেকে যে ক্ষুদ্রাতিক্ষুদ্র কণা বাতাসে ছড়িয়ে পড়ে তার মাধ্যমে। এ ভাইরাসের বিরুদ্ধে কোনো প্রতিষেধক এখনও আবিস্কৃত হয়নি। নেই কোন কার্যকর চিকিৎসা এখনও। যারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করছেন তাদের মৃত্যু যে কি ভয়াবহ কষ্টকর তা’ শুধুমাত্র যারা করোনায় আক্রান্তদের মৃত্যু দেখেছেন তারাই জানেন।

বিজ্ঞানীরা করোনা সংক্রমণ রোধে সবচেয়ে কার্যকর পদ্ধতি হিসেবে যে পরামর্শগুলো দিয়েছেন সেগুলো হলো:

১) হাঁচি-কাশি দেবার সময় টিস্যু দিয়ে বা কনুইয়ের ভাঁজে মুখ ঢাকা;

২) দুই হাত বারবার সাবান দিয়ে ২০ সেকেন্ড ধরে ভালোভাবে ধোয়া;

৩) নাকে, মুখে, চোখে হাত না দেয়া;

৪) মুখে মাস্ক ব্যাবহার করা;

৫) অসুস্থ ব্যক্তির সংস্পর্শ সম্পূর্ণ এড়িয়ে চলা;

৬) অতীব জরুরী প্রয়োজন ছাড়া বাড়ির বাইরে না যাওয়া;

৭) সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা অর্থাৎ নিজেকে অন্য যে কারো কাছ থেকে অন্তত ৬ ফুট দূরত্বে রাখা;

৮) শাক-সবজি, মাছ-মাংস ভালো করে ধুয়ে ভালোভাবে রান্না করে খাওয়া;

৯) করোনার লক্ষ্মণ (জ্বর, কাশি, শ্বাসকষ্ট, গায়ে ব্যাথা ইত্যাদি) দেখা দিলে নিজেকে পরিবারের সবার কাছ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলা এবং চিকিৎসক ও কর্তৃপক্ষকে জানানো;

১০) কোন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংস্পর্শে এসে থাকলে নিজেকে ১৪ দিনের জন্য বাধ্যতামূলক কোয়ারান্টাইন-এ রাখা, অর্থাৎ নিজেকে পরিবারের সবার কাছ থেকে সম্পূর্ণ আলাদা করে ফেলা।

বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার সরকার সাধ্যমত সকল ব্যবস্থা নিয়েছেন এবং নিচ্ছেন এ মহামারীর কবল থেকে মুক্তির জন্য। সরকারসহ বিভিন্ন সংগঠন এবং ব্যক্তি অসহায় মানুষের কাছে ত্রাণ সহযোগিতা পৌঁছে দিতে নিরলস পরিশ্রম করছেন।

করোনার এ বৈশ্বিক মহামারী থেকে বাঁচতে হলে সরকারের নির্দেশনা সঠিকভাবে মেনে ঘরে থাকতে হবে সবাইকে। ভয়াবহ ছোঁয়াচে এ রোগ প্রতিরোধ করতে হলে আমাদের প্রত্যেককে প্রয়োজনীয় সতর্কতা অবলম্বন করতেই হবে – এর কোন বিকল্প নেই।

নতুন বছর বরণের এ মুহূর্তে আসুন সবাই নিজেরা সতর্ক হই। স্বাস্থ্যবিধিগুলো পরিপূর্ণভাবে মেনে চলি। নিজেকে, নিজেদের পরিবার পরিজন প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখি এবং তার মাধ্যমে আমাদের দেশকে নিরাপদ রাখি।

ঘরে থাকুন। নিরাপদ থাকুন। নিরাপদ রাখুন সবাইকে।

এ মহামারীতে যারা মানুষের সেবায় নিয়োজিত আছেন সেই সকল প্রিয় চিকিৎসক ভাই-বোনসহ সকল স্বাস্থ্যসেবা কর্মী ভাই-বোন, সকল পুলিশ ভাই-বোন, সশস্ত্র বাহিনীর সকল ভাই-বোন, সকল জনপ্রতিনিধি ভাই-বোন, প্রশাসনের সকল ভাই-বোন, রাজনৈতিক নেতা-কর্মী ভাই-বোন এবং যে ভাই-বোনেরা বিভিন্ন জরুরী সেবার সাথে জড়িত আছেন তাদের সবাইকে জানাই আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চিকিৎসকসহ এদের অনেকেই নিজ দায়িত্ব পালন করছেন অসীম সাহসিকতায়। তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাবার ভাষা আমার জানা নেই। এদের বেশ কয়েকজন ইতোমধ্যেই দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে নিজেরা আক্রান্ত হয়েছেন। অনেককেই কোয়ারান্টাইন এ যেতে হয়েছে। আপনাদের সবাইকে সৃষ্টিকর্তা সুস্থ রাখুন। আপনাদের পরিবার পরিজন প্রিয়জনকে নিরাপদ রাখুন – এ কামনা করি।

সবাইকে জানাই বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা। শুভ হোক ১৪২৭। দূর হোক করোনা। এ করোনা সংকট থেকে শিক্ষা নিয়ে সারা বিশ্বের মানুষ আরও সচেতন হই, দায়িত্বশীল হই, টেকসই জীবনাচারের মধ্য দিয়ে টেকসই বিশ্বব্যবস্থা গড়ে তুলি।

“আমাদের দেখা হোক মহামারী শেষে,
আমাদের দেখা হোক জিতে ফিরে এসে।”

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *