পরানপুরে এসিল্যান্ডের সরেজমিনে তদন্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা :

কচুয়া উপজেলার কড়ইয়া ইউনিয়নের পরানপুরে সহকারি কমিশনার(ভ’মি) একিমিত্র চাকমা ভ’মি আপিল বোর্ডের মামলার তদন্ত করেছেন। তিনি সোমবার ভ’মি আপিল বোর্ডের (ফুল বের্ডে) ওই গ্রামের মৃত ইদ্রিস গংদের একই বাড়ির আনোয়ারা বেগম গংদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মালার তদন্ত করেছেন। তদন্তকালে সহকারি কমিশনার(ভ’মি) নালিশী সম্পত্তিতে বিবাদীদের দখল সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করেছেন।

এ সময় উভয় পক্ষের লোকজন উপস্থিত থেকে তাদোর দখল সম্পর্কে সহকারি কমিশনার(ভ’মি) একিমিত্র চাকমকে অবহিত করেন।

বিবাদী আনোয়ারা বেগমের সন্তান মো: ইনামূল হক জানান আমরা খরিদ সুত্রে মালিক হয়ে এই বাড়িতে আজকে প্রায় ৫০ বছর ভোগ দখলে আছি আমাদের পাকা দালান,পুকুর ও বাগান রয়েছে। আমাদের সম্পত্তি বিএস রেকর্ডে ভ’ল থ্কাায় আমার মা আনোয়ারা বেগম সংশোধনের জন্যে ৪/১৫০/২০১৭ সালে বিজ্ঞ আপিলবোর্ড ঢাকায় মামলা দায়ের করে ।

বিজ্ঞ আপিল বোর্ড ০৭.০৯.২০১৮ সালে বিএস ১৪৭ ও ১৪৮ খতিয়ান থেকে কর্তন করে ১.৩৮ একর সম্পত্তি আমাদের নামে রেকর্ড করার আদেশ প্রদান করেন।রায়ের পরিপ্রেক্ষিতে কচুয়া উপজেলা ভ’মি অফিস আেেনায়ারা বেগম গংদের নামে মিসকেইসের মাধ্যমে ১৪৭ খতিয়ান হতে কর্তন করে ১.১৭ একর সম্পত্তি রেকর্ড করে।বাকী .২১একর সম্পত্তি ক তফসিলভ’কত হওয়ায় আবেদন কারীর নামে রেকর্ড দেওয়া া হয়নি । এই আদেশের বিরুদ্ধে ইদ্রিস মজুমদার গং ভ’মি আপিল বোর্ডের ফুল বের্ডে ৪/৮৬/২০২০ সালে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার পরিপ্রেক্ষিতে কচুয়া উপজেলা ভ’মি অফিস প্রতিবেদন দাখিল করলে বিজ্ঞ ফুল বোর্ড পুনরায় কচুয়া উপজেলা সহকারি কমিশনরাভ’মিকে সরেজমিনে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিল করতে বলেন। এ বিষয়ে সহকারি কমিশনার(ভ’মি) একিমিত্র চাকমা বলেন বিজ্ঞ ভ’মি আপিল বোর্ডের (ফুল বোর্ডে) বিচারাধীন সম্পত্তিতে পক্ষদ্ধয়ের দখল ও অবস্থান সম্পর্কে জানতে সরে জমিনে তদন্ত করেছি।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *