ফরিদগঞ্জে নির্যাতন সইতে না পেরে গৃহবধূর বিষপান, পাঁচ দিন পর মৃত্যু

ফরিদগঞ্জে হাসি আক্তার ঝর্না(১৫) নামে এক গৃহবধূ বিষপান করার ৫দিন পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। হাসি উপজেলার গোবিন্দপুর দক্ষিণ ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামের মৃত মঈনুল হক গাজীর মেয়ে। বিষপানের বিষয়ে হাসির বড় বোন সাজু বেগম চাঁদপুর টাইমসকে জানান, তারা ৪ বোন ও ২ ভাইয়ের মধ্যে হাসি ছিলো ৫ম।

গ্রামের বাড়িতে আমার মা, এক ভাই ও হাসি বসবাস করতো। বড় ভাইটা সরল প্রকৃতির। তাই উপযুক্ত অভিভাবক না থাকায় গত ৫/৬ মাস পুর্বে আমাদের বাড়ির জনৈক জুয়েল হাসি আক্তারকে তার শ্যালক ও রামপুর গ্রামের আবুল কালামের ছেলে হোটেল কর্মচারী আরিফ হোসেনের সাথে বিয়ে দেয়। যদিও হাসির বিয়ের বয়স তখনো হয়নি এবং এ বিয়েতে আমি ও আমার অপর দুই বোনের মতামত ছিলো না।

বিয়ের পর বিভিন্ন ভাবে হাসি নির্যাতনের শিকার হতে হয়। শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন সইতে না পেরে গত ২৪ জানুয়ারি হাসি বিষপানে আত্মহত্যা চেষ্টা করে। পরে তার শ্বশুর বাড়ির লোকজন তাকে চাঁদপুর সদর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

চাঁদপুর সদর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসক হাসির অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করেন। পরে তাকে ঢাকার মিডফোর্ট হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করানোর পর চিকিৎসাধীন অবস্থায় ২৮ জানুয়ারি মারা যায়। পরে ওই হাসপাতালেই তার মৃতদেহের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করার পর শনিবার সকালে তাদের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এ বিষয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ মোহম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, গৃহবধূর মৃত্যুর বিষয়ে ২৯ জানুয়ারি একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *