ফরিদগঞ্জে ভূমিহীনদের মাঝে বরাদ্ধকৃত ঘরে এখনো বসবাস শুরু করেনি কেউ

আবদুল কাদির:

মুজিব শতবর্ষ উপলক্ষে ২য় পর্যায়ে বরাদ্ধকৃত ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে ২০টি ঘর নির্মাণ করে ফরিদগঞ্জবাসীকে উপহার দেওয়া হয় গত ২০ জুন। ঘরের কাজ অসম্পন্ন রেখে তড়িগড়ি করে ২০টি পরিবারের কাছে ঘর হস্তান্তর করা হয়। প্রাপ্ত ঘরের কোন বাসিন্দা এখনও ঘরে বসবাস শুরু করেনি।

এ বিষয়ে উপকারভোগী শাহানারা বেগম বলেন, আমাদেরকে ঘরের দলিল বুঝিয়ে দিলেও এখনো ঘরের ছাবি দেওয়া হয়নি। মো:জমির হোসেন বলেন, আমি গতকাল আমার ঘর দেখতে গিয়েছিলাম, গিয়ে দেখি ঘরের বাথরুম সহ অনেক কাজ বাকি। ঘর নির্মাণকারীর দাবী, ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ। চাইলেই ঘরে বসবাস শুরু করা যাবে।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শিউলী হরি বলেন, ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ। শুধু রংয়ের কাজ বাকি। উপকারভোগীরা তাদের নিজ নিজ ঘরের আসবাবপত্র সাজাতে পারেন।

কবে থেকে তারা বসবাস শুরু করতে পারবে জানতে চাইলে তিনি জানান, তারা যখন চাইবে,তখনই উঠতে পারবে। তাদেরকে সব বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

ফরিদগঞ্জে যে ২০টি পরিবার প্রধানমন্ত্রীর উপহার পেয়েছেন তারা হচ্ছেন, মাহমুদা আক্তার,পিতা-মৃত আবদুল করিম মাঝি,সাং- কাছিয়াড়া।রনজিত,পিতা-মৃত রমনী মোহন দাস,সাং-কাছিয়াড়া।মো:ফারুকুল ইসলাম খান,পিতা-মৃত মো: হানিফ খান,সাং ধানুয়া।শেফালী বেগম,স্বামী-আবুল কালাম,সাং-ডোমরিয়া।শাহানারা বেগম,স্বামী-মৃত সিরাজ মিয়া,সাং পোয়া।মো: জমির হোসেন,পিতা মৃত মো: মাছুম মোল্লা,সাং চরবড়ালী।মো: মুজিবুর রহমান,পিতা মো: মোখলেছ বেপারী,সাং তরজিরান্তি।মো: বিল্লাল হোসেন,পিতা- মৃত মো: আবু তাহের, সাং আসৎকুযারী।তাছলিমা আক্তার,পিতা-লিটন মোল্লা,তরজিরান্তি। রাশিদা বেগম,স্বামী-মৃত লিটন মোল্লা, তরজিরান্তি।মো: মনির,পিতা-মো: অলিউল্যাহ বেপারী,১নং বালিথুবা ইউপি পরিষদ।সুমন চন্দ্র শীল,পিতা মৃত রমনী মোহনদাস,সাং কাছিয়াড়া। আলী হোসেন বেপারী,পিতা মো: বদরুজ্জামান বেপারী,সাং তরজিরান্তি।আবদুল কাদির,পিতা-মৃত আবদুল হামিদ,সাং সাহেবগঞ্জ।সাধন চন্দ্র দাস,পিতা-মৃত মনরঞ্জন দাস,সাং কাছিয়াড়া।বিল্লাল হোসনে,পিতা মৃত-আবদুর ছমিদ,সাং সাইসাঙ্গা।রহিমা খাতুন,স্বামী-মৃত কলিম উল্যাহ পাটওয়ারী,সাং লাউতলী।মো:শহিদ উল্যা,পিতা-মৃত মো: নুরুল হক বেপারী, সাং হর্নি। মো: সেলিম হোসেন, পিতা-মো: শাহ আলম, সাং চরবড়ালী।মো: বিল্লাল হোসেন, শাহ আলম,সাং উ:চরবড়ালী।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *