ফরিদগঞ্জে লাইসেন্স ফি কমাতে মালিক শ্রমিকের স্বারক লিপি

আবদুল কাদির:

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও মেয়র যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটওয়ারী পৌর এলাকায় ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ভ্যান ও ইজিবাইকের মালিক শ্রমিকের দাবিতে সাড়া দিয়ে পূর্ব নির্ধারিত লাইসেন্স ফি ১৪ হাজার ৪শ টাকা থেকে কমিয়ে ৯ হাজার ৮ শ টাকার ঘোষনা দিয়েছিল মাইকিং করে।

২১ নভেম্বর রোববার এমন ঘোষণায় সন্তুুষ্ট না হয়ে আবারো ন্যায় সঙ্গত টাকায় লাইসেন্স ফি নির্ধারনের দাবিতে মেয়র বরাবরে স্বারকলিপি দিয়েছে মালিক শ্রমিকরা।

এ সময় মেয়র না থাকায় স্বারকলিপি প্যানেল মেয়র আবদুল মান্নান পরানের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। ব্যাটারী চালিত রিক্সা ভ্যান ও ইজিবাইক শ্রমিক অধিকার রক্ষা কমিটির উদ্যেগে স্বারক লিপি প্রদানের সময় উপস্থিত ছিলেন বাসদের (মার্কসবাদী) কেন্দ্রীয় নেতা ও জেলার আহবায়ক কমরেড আলমগীর হোসেন দুলাল, কমরেড বাদশা সংগঠনটির আহবায়ক জাহাঙ্গীর হোসেন ও যুগ্ম আহবায়ক সাইফুল ইসলাম।

যানবাহনের মালিক শ্রমিকরা জানায়, দেশের সকল মানুষই জানে ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ভ্যান ও ইজিবাইকগুলো মালিক বা শ্রমিক কেউই তৈরী বা আমদানী করে না। স্বপ্ল পূজি খাটিয়ে মধ্যেবিত্ত কিংবা নিম্ন শ্রেনীর মানুষ ধারদেনা করে ওইসব যানবাহন ক্রয় করে জীবন জীবিকার তাগিয়ে রোদ বৃষ্টি উপেক্ষা করে রাস্তায় শ্রম দিতে বাধ্য হচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে ফরিদগঞ্জ পৌর কর্তৃপক্ষ প্রতি বছরের জন্য ১৪ হাজার ৪ টাকা নির্ধারন করে। এ নিয়ে মালিক শ্রমিকদের মাঝে ক্ষোভ বিরাজ করতে থাকে। প্রতিবাদে মালিক শ্রমিকরা নানা কর্মসূচী পালন করে।

এক পর্যায়ে লাইসেন্স ফি বাবৎ মেয়র ১৪ হাজার ৪ টাকা থেকে কমিয়ে ৯ হাজার ৮শ টাকা নির্ধারন করে গত শনিবার মাইকিং করে। কিন্তু তাতেও সন্তুুষ্ট না হয়ে পৌরসভা কার্যালয়ে মালিক শ্রমিকরা হাজির হয়ে মেয়র বরাবরে স্বারকলিপি প্রদান করে।

স্বারকলিপি দেয়া শেষে বাসদের ফরিদগঞ্জ উপজেলা শাখার আহবায়ক কমরেড বাদশা জানান, উক্ত বিষয়টি নিয়ে মেয়রের সাথে কথা বলেছেন আমাদের নেতা কমরেড আলমগীর হোসেন দুলাল। মেয়র আশস্ত করেছেন এই বিষয়টি নিয়ে মালিক শ্রমিকদের সাথে কথা বলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে আশস্ত করেছেন।

শেয়ার করুন: