ফেসবুকে স্টাটাস দিয়ে যুবকের আত্মহত্যা

আবদুল কাদির :

ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে ফরিদগঞ্জে এক যুবক আত্মহত্যা করেছে। পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের পশ্চিম বড়ালী সরকার বাড়ির বাদশা মিয়ার ছেলে শামিম হোসেন শামু (১৮) পরিবারের অজান্তে বসতঘরের আড়ার সাথে ওড়না পেছিয়ে আত্মহত্যা করে।

নিহতদের পারিবারিক সূত্র জানায়, অন্যান্য দিনের মত শামিম রাতের খাবার খেয়ে ঘুমাতে যায়। তার বাবা বাড়ি না থাকায় দোকান পরিচালনার জন্য সকালে তার ছোটবোন তাকে ঘুম থেকে জাগাতে গিয়ে দেখে, সে আড়ার সাথে গলায় ফাঁসদিয়ে ঝুলে আছে। পরে তার ডাক-চিৎকারে প্রতিবেসীরা ছুটে আসে।

নিহত শামিম রাতে তার ব্যাবহৃত ফেসবুকে আজ তুমি আমায় চেরে (ছেড়ে) চলে গেলে আমিও চলে যাব অনেক দুরে, লিখে একটি স্ট্যাটাস দেয়।এলাকাবাসীর ধারনা প্রমে ব্যার্থ হয়ে শামিম আত্মহত্যার পথ বেঁচে নিতে পারে।

নিহত শামিম তার নির্মাণাধীন বাড়ির ছাঁদে রক্ত দিয়ে মোবাইল নাম্বার ও একটি নাম লেখে রাখে, এ লেখাটি তার কিনা তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঝুলন্ত অবস্থায় ফাঁস দেওয়া শামিমের নিথর দেহের পাশে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা রক্তের দাগ দেখা যায়। ধারনা করা হয় সে নাম ও ফোন নাম্বার লিখতে নিজের হাতে রক্তাক্ত করে। মৃত দেহের পাশথেকে কয়েকটি চিঠি পাওয়া যায়,যা তদন্তের জন্য পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

শামিমের বোন জান্নাত দৈনিক মেঘনাবার্তার প্রতিবেদকে বলেন, আমরা নয় ভাই-বোনের মধ্যে শামিম পঞ্চম এবং পরিবারের সপ্তম সন্তান। ঘটনার আগে পরিবারের কিংবা প্রতিবেসী কারো সাথে কোন বিরোধ হয়েছে কিনা জানতে চাইলে মৃতের বোন জান্নাত বলেন, পূর্বে প্রতিবেসীদের সাথে সম্পত্তিজনিত বিরোধ ছিল। যার কারনে তার ভাইয়ের নামে মামলা ও করা হয়েছে। এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায় তার নামে থানায় চুরি ও ধর্ষনের অভিযোগে একাধিক মামলা রয়েছে।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published.