বঙ্গবন্ধু’র শাহাদাতবার্ষিকীতে‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্র প্রদর্শনের নির্দেশ

স্টাফ রিপোর্টার ॥

সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৬তম শাহাদতবার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে সারাদেশে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’চলচ্চিত্র প্রদর্শনের নির্দেশ দিয়েছে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়।

১১ আগস্ট বুধবার জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের গঠিত উপ-কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

সভায় জাতায় জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে সারাদেশের জেলা তথ্য অফিসসমূহের মাধ্যমে ৭টি প্রামাণ্যচিত্র, ১০টি টিভি ফিলার এবং একমাত্র চলচ্চিত্র হিসেবে দেশের খ্যাতনামা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া পরিবেশিত ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ প্রদর্শনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে জেলা তথ্য অফিসসমূহকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়েছে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শৈশব, কৈশোর ও তারুণ্য নিয়ে নির্মিত হয়েছে ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্র। এ চলচ্চিত্রটির পরিচালক দেশের খ্যাতনামা প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার মোঃ সেলিম খান। স্টোরি স্পø্যাশ প্রোডাকশনের ব্যানারে নির্মিত এ চলচ্চিত্রটির প্রযোজক পিংকি খান। আর চিত্রনাট্য লিখেছেন শামীম আহমেদ রনি।
বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবের ৯১তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ৮ আগস্ট ভারতের নয়া দিল্লিস্থ বাংলাদেশ হাইকমিশনে এ চলচ্চিত্রটি প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে গত ২৭ জুলাই ইতিহাসভিত্তিক ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রটি সারাদেশের মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহে প্রদর্শনীর ব্যবস্থা করতে নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়।
‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’ চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন শান্ত খান। বঙ্গবন্ধুর স্ত্রী রেনুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। ছবিটি সেন্সর বোর্ডে কয়েক দফা প্রদর্শনের পর মুক্তির অনুমতি পায়।

ইতিহাসভিত্তিক এ চলচ্চিত্রটির ট্রেইলার শাপলা মিডিয়া, ভয়েস টিভি ও সিনেবাজ অ্যাপসের অফিসিয়াল ইউটিউব চ্যানেল ও ফেসবুক পেজে সবার জন্যে উন্মুক্ত লাইসেন্সে প্রকাশ করা হলে ব্যাপক সাড়া জাগে। সিনেবাজ অ্যাপে বিনামূল্যে এ চলচ্চিত্রটি দেখার ব্যবস্থা করেছে শাপলা মিডিয়া।

চলচ্চিত্রটির পরিচালক, শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার মোঃ সেলিম খান জানান, বঙ্গবন্ধু সার্বজনীন। এ মহান নেতার জীবনটাই বর্ণাঢ্য ইতিহাস আর গৌরবের নানা অধ্যায়ে পরিপূর্ণ। বঙ্গবন্ধুর শৈশব-কৈশোরও সবার জন্য অনুকরণীয় আদর্শ। তাই আমরা নির্মাণ করেছি ‘টুঙ্গিপাড়ার মিয়া ভাই’।
লচ্চিত্রটির প্রযোজক পিংকি খান জানান, এচলচ্চিত্রের মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম জানতে পারবে ইতিহাসের মহানায়ক বঙ্গবন্ধুর শৈশব ও কৈশোর জীবনের কথা।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *