বঙ্গমাতার কারনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনে পূর্ণতা এসেছিলো:জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান

চাঁদপুরে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্যদিয়ে পালিত হয়েছে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী। এ উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার দুপুরে চাঁদপুর জেলা পরিষদে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘ম্যুরাল’ উদ্বোধন করেন পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ওচমান গনি পাটওয়ারী।

পরে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে অসহায় ও দুস্থ মানুষের মাঝে সেলাই মেশিন, রিক্সা ও ভ্যান প্রদান করা হয়। এছাড়া পরিষদ প্রাঙ্গনে জমকালো আয়োজন কেক কাটা এবং সবশেষ দোয়া ও গণভোজের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর বিভিন্ন কর্মসূচির কর্মকান্ডে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ ওসমান গনি পাটওয়ারী বলেন, আমি আমার জেলা পরিষদ থেকে সর্ব প্রথম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপনের কথা বলি। আজকে সেটা সারা বাংলাদেশের প্রত্যেকটি জেলা পরিষদে স্থাপিত হয়েছে। আমি চেয়েছিলাম আরো আগেই চাঁদপুরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ম্যুরাল স্থাপিত হোক কিন্তু বিভিন্ন প্রতিকূলতার কারণে তা হয়ে উঠেনি।
তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনে চাঁদপুরবাসী গর্বিত, কারণ এমন একটি দিনে আমরা জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে জাতির পিতার ম্যুরাল স্থাপন করতে পেরেছি। আমরা চাই এর মাধ্যমে চাঁদপুরবাসীর হৃদয়ে আজীবন বঙ্গবন্ধু মুজিবুর রহমানর স্মরণীয় হয়ে থাকুক।

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বলেন, বঙ্গবন্ধু আমাদের স্বাধীনতা দিয়েছেন, একটি পতাকা দিয়েছেন, দিয়েছেন একটি মানচিত্র। আর বঙ্গমাতার কারনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জীবনে পূর্ণতা এসেছিলো। বঙ্গমাতা জাতির পিতার পাশে থেকে সবকাজে অনুপ্রেরণা দিয়েছেন। দেশকে ভালোবেসে নিজের জীবনকে বিলিয়ে দিয়েছেন। তাই আমরা তাকে স্মরণ করে স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়তে সকলে মিলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করব।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ জামান, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি নাছির উদ্দিন আহমেদ, সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটওয়ারী দুলাল, সহ-সভাপতি শহীদ উল্লাহ মাস্টার, আব্দুর রশিদ সরদার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. জহিরুল ইসলাম, জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ পাটওয়ারী, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সাবেক শহীদ পাটোয়ারী, ইকবাল হোসেন পাটওয়ারী, শরীফ চৌধুরী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক গিয়াসউদ্দিন মিলন, রহিম বাদশা, জেলা পরিষদ সদস্য নুরুল ইসলাম পাটোয়ারী, এসএম আল মামুন সুমন, জুবায়ের হোসেন, মশিউর রহমান, আলআমিন ফরাজি, মহিলা সদস্য খাদিজা রহমান, জোবেদা মজুমদার মিশু, জান্নাতুল ফেরদৌস, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সদস্য অ্যাড. জসিম উদ্দিন পাটওয়ারী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক পারভেজ করিম বাবু, কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক, জেলা পরিষদের উপসহকারী প্রকৌশলী ও সহকারী প্রকৌশলী মো. ইকবাল হোসেন, প্রশাসনিক কর্মকর্তা শেখ মহিউদ্দিন আহমেদ রাসেল, হিসাবরক্ষক মো. ইকবাল হোসেন, উচ্চমান সহকারী মো. মজিবুর রহমান, আব্দুল কুদ্দুস ভাট, সার্ভার নাসির উদ্দিনসগহ জেলা পরিষদের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *