বিএনপির ৩৭ দফা ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয় একটি সুন্দর নির্বাচন জন্যে :মনিরুল হক চৌধুরী

নিজস্ব প্রতিনিধি :

বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরী বলেছেন,তারেক জিয়া দলের নেত্রীর চেয়ে দেশকে বড় মনে করে। তিনি দেশ নেত্রী খালেদা জিয়ার চেয়ে দেশকে বড় মনে করে বলেই খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবি এই ১০ দফার মধ্যে ৪ নাম্বারে এনেছে। আমি দলের কর্মী হিসেবে বলব এটা এক নাম্বারে যাওয়া উচিৎ। আমাদের বিরুদ্ধে মামলা ৮০ হাজার মামলা হয়েছে। এতে ১কোটি নেতা কর্মীকে আসামি করা হয়েছে। গত ১০ ডিসেম্বরকে কেন্দ্র করে আবারও কয়েকটি মামলা করা হয়েছে। এখন মামলার সংখ্যা তার চেয়ে বেড়ে যাবে। এসকল গাায়েবি মামলাও তত্ত¡াবধায়ক সরকার হওয়ার সাথে সাথে প্রত্যাহার করতে হবে।

তিনি বিএনপি ঘোষিত আন্দোলনের ১০ দফা ও রাষ্ট্র মেরামতের ২৭ দফার বিষয়ে ব্যাখ্যা ও বিশ্লেষণমূলক কর্মশালায় ৭ জানুয়ারি শনিবার বিকেলে সাড়ে ৫টায় চাঁদপুর প্রেসক্লাবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, শেখ হাসিনাকে বলছি,কি করে ১৯৯৬ সালে আপনার কয়টা আসন নিয়ে জিতেছেন। সেই কাহিনী আমার কাছে সরকার প্রধানকে বলছি আছে। আপনরা জনগণের দাবির কাছে মাথা নত করেন । তত্ত¡াবধায়ক সরকারের অধিণে নির্বাচন দেন। তত্ত¡াবধায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন মিমার্শিত একটা বেপার ছিল। সকল রাজনৈতিক দলের মতামত নিয়ে সংসদে পাস হয়েছিল নির্বাচন কালিন দলীয় সরকার থাকবে না। এখন আপনার সংকট সৃষ্টি করেছেন। অভিলম্বে তত্ত¡াধায়ক গঠন করে নির্বাচন দিয়ে দিন। ১৯৭০ সালের নির্বাচনের আগে আগারতলা মামলা প্রত্যাহার করে শেখ মুজিবকে যেভাবে মুক্তি দেয়া হয়েছিল । আজ সেই একইভাবে খালেদা জিয়ার সকল মামলা প্রত্যাহার করে অভিলম্বে মুক্তি দিতে হবে। তাতে করে পরিস্থিতি উন্নীতি হবে। আপনার যার নামে এতো গর্ব করেন। দেশের স্বাধীনতা, দেশ যদি থাকে।তাহলে ইতিহাসও থাকবে। তেমনি থাকবে শহীদ জিয়া, মুক্তিযুদ্ধ। আর যদি দেশ না থাকে গর্ব করার মত কিছু থাকবে না। দেশটা বাঁচান , মানুষদেরকে বাঁচতে দিন , আমাদেরকেও বাঁচান। জাতিকে বাঁচান। তার লক্ষ্যে তারেক জিয়া কর্মসূচি দিয়েছে।
তিনি বলেন, জাতি জেগে উঠেছে। এমন যুগান্তকারী রাজনৈতিক কর্মসূচি বিএনপি দিতে পারে তা আমাদের ধারণা ছিল না এক মাস আগে। এটি সম্ভব হয়েছে তারেক রহমানের কারণে।

মনিরুল হক চৌধুরী বলেন, বেগম খালেদা জিয়া জীবনের বিনিময়ে আপোষ করেনি। আজকে ক্ষমতাসীনরা তাকে দুর্নীতিবাজ বলে তিনি কখনো দুর্নীতির সাথে আপোষ করেনি। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করছে। আজকে বিএনপির ২৭ দফা ও ১০ দফা বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার জন্য নয় । একটি সুষ্ঠু ও সুন্দর নির্বাচন ও দেশের মানুষের কল্যাণের স্বার্থে। ওদের সাথে যুদ্ধ হচ্ছে এই যুদ্ধে আমরা জয়লাভ করবো।তারাও জানে যে তারা ভোটার বিহীন সরকার। আজকে তারা ক্ষমতায় আসার পর সেই তত্ত¡াবধায়ক সরকারকে এমন ভাবে বাতিল করেছে যা পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। সভা সমাবেশের অধিকার সকলের পৈত্রিক অধিকার জন্মগত অধিকার। আজ তারা এখানে বাঁধা দিচ্ছে। বিএনপি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় গেলে রাষ্ট্রকে সংস্কার করা হবে। আজকে বাংলার মানুষ তারেক রহমানের ডাকে জেগে উঠেছে।
চাঁদপুর জেলা বিএনপির সভাপতি শেখ ফরিদ আহমেদ মানিকের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সলিম উল্যাহ সেলিমের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন বিএনপি’র কেন্দ্রীয় কমিটির ব্যাংকিং ও রাজস্ব বিষয়ক সম্পাদক লায়ন হারুন রশীদসহ জেলা বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ ।

শেয়ার করুন: