মতলবে পাঁচ দোকানে ডাকাতি

মতলব প্রতিনিধি ॥

চাঁদপুরের মতলব দক্ষিণ উপজেলার নায়েরগাঁও বাজারে সোমবার গভীর রাতে চার জুয়েলারি দোকানসহ পাঁচ ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ডাকাতি সংঘটিত হয়। এতে নগদ টাকা, স্বর্ণালঙ্কার ও মোবাইল ফোনের দামি সেটসহ প্রায় ২৬ লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায় ১৫/১৬ জনের সংঘবদ্ধ ডাকাতের দল।

বাজারের ব্যবসায়ী ও পুলিশ জানায়, সোমবার রাত দুইটার পরে ১৫/১৬ জনের একটি সশস্ত্র ডাকাতদল নদীপথে ট্রলারযোগে নায়েরগাঁও বাজারে প্রবেশ করে। ডাকাতেরা বাজারটির আট নৈশ প্রহরীর মধ্যে সাতজন নৈশপ্রহরী ও একজন দর্জিকে একত্রিত করে সেখানকার একটি দোকানের ভিতর হাত-পা রশি দিয়ে বেঁধে মুখে স্কচটেপ পেচিয়ে সাটার বদ্ধ করে দেয়। এরপর তারা বাজারের রিংকু দাস, নিত্য গোপাল দাস, প্রদীপ চন্দ্র দাস ও কেশব চন্দ্র দাসের স্বর্ণের দোকান এবং পাশের নুর উদ্দিনের মুঠোফোনের দোকানের শাটারের তালা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করেন।

ডাকাতেরা রিংকু দাসের দোকান থেকে ১৫ ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৪ লাখ টাকা, নিত্য গোপাল দাসের দোকান থেকে আড়াই ভরি স্বর্ণালঙ্কার ও নগদ ৮০ হাজার টাকা, প্রদীপ চন্দ্র দাসের দোকান থেকে ৪ ভরি রূপা ও কিছু স্বর্ণালঙ্কার, কেশব চন্দ্র দাসের দোকান থেকে নগদ ১৫ হাজার টাকা ও কয়েক ভরি স্বর্ণালঙ্কার এবং নুর উদ্দিনের দোকান থেকে ২০টি দামি এন্ড্রয়েড মোবাইল সেট লুট করে আবার তারা নদীপথে চলে যান ।

নৈশ প্রহরী আলাউদ্দিন, বিল্লাল হোসেন ও অলি উল্লাহ বলেন, রাতের দুইটার দিকে ৩/৪ জন এসে সিগারেট ধরাতে আগুন চায়।পরে ১০/১২ জন আমাদের ঘিরে অস্ত্রের মুখে আমাদের মুখে টেপ লাগিয়ে বেধে দোকানে ভিতর রাখে। তারপর সাটার নামিয়ে দেয়।

থানা পুলিশ জানায়, সোমবার ভোর রাতে খবর পেয়ে ওই দোকানিরা ঘটনাস্থলে এসে বিষয়টি পুলিশকে জানালে আজ মঙ্গলবার সকালে চাঁদপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাইনুল ইসলাম, সহকারী পুলিশ সুপার মো. ইয়াছির আরাফাত ও মতলব দক্ষিণ থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে ক্ষতিগ্রস্ত দোকানিদের খোঁজখবর নেন।

বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মাসুদ পাটোয়ারী বলেন, ডাকাতির ঘটনা মোবাইলে শুনে বাজারে আসি। পরে পুলিশ প্রশাসনকে বিষয়টি অবগত করি।এ ঘটনার থানায় ডাকাতি মামলা হচ্ছে।

মতলব দক্ষিণ থানার ওসি মোহাম্মদ মহিউদ্দিন মিয়া জানান,এটি একটি রহস্যজনক ডাকাতি। পুরো ঘটনার তদন্ত চলছে। এ ব্যাপারে থানায় একটি ডাকাতির মামলা প্রক্রিয়াধীন।

শেয়ার করুন: