মতলবে ফুফুকে গলাকেটে হত্যা ঘটনায় ভাইপো আটক

মো.আকতার হোসেন :

মতলব পৌরসভার উত্তর বাইশপুর গ্রামের শামসুন্নাহার বেগম (৬০)নামের এক বৃদ্ধা ফুফুকে বুধবার (২৮ অক্টোবর)গলাকেটে হত্যা করেছে ভাইপো ফয়সাল আহম্মেদ পারভেজ। পুলিশ ওই দিন রাত আটটায় ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ তাঁর লাশ উদ্ধার করে। এব্যাপারে বুধবার রাতে নিহতের ভাই কবির হোসেন বাদী হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় পুলিশ সামছুন্নাহারের ভাইয়ের ছেলে ফয়সাল আহমেদ পারভেজকে গ্রেপ্তার করেছে।

পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে,শামসুন্নাহারের সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে তাঁর ভাই বোরহান উদ্দিন মুন্সি ও ভাইপো ফয়সালের পূর্ব শত্রুতা এবং সম্পত্তি নিয়ে বিরোধ চলে আসছে। সম্পত্তিগত বিরোধের জের ধরে সে নিজেই তার ফুফুকে হত্যা করেছে বলে পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে স্বীকার করে। এদিকে চিকিৎসাজনিত কারণে নিহতের স্বামী ঐদিন ঢাকায় অবস্থান করর্ছিলেন। ঐদিন সকাল সাড়ে ১০টায় ফয়সাল তাঁর ফুফুর (শামসুন্নাহার) বাড়িতে আসেন। এ সময় বাড়িতে তাঁর ফুফু ছাড়া পরিবারের আর কোনো সদস্য ছিল না। কেননা তার ফুফুর কোন ছেলে নেই কিন্তু মেয়ে তিনজনের বিয়ে হয়ে গেছে। ফাঁকা ঘরে আশেপাশের লোকজন ফয়সাল ও তাঁর ফুফুর মধ্যে উচ্চস্বরে কথা-কাটাকাটি ও ঝগড়া হয় তা শুনতে পায়।

বুধবার সন্ধ্যায় আশপাশের কয়েকজন প্রতিবেশী গৃহবধূটির বাড়িতে এসে দেখেন তাঁর ঘরের দরজা বাহির থেকে বন্ধ। ভেতরে সাড়াশব্দ নেই। দরজা ধাক্কা দিয়ে ভেতরে ঢুকে তাঁরা দেখতে পান গৃহবধূটির গলাকাটা লাশ মেঝেতে পড়ে আছে। এ সময় প্রতিবেশী লোকজন ঘটনাটি পুলিশকে জানান। ওই দিন রাত আটটায় ঘটনাস্থল থেকে তাঁর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করে মতলব দক্ষিণ থানার পুলিশ। বৃদ্ধার ভাইপো পারভেজ কে স্থানীয় নৌকাঘাট এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ।

থানার ওসি স্বপন কুমার আইচ জানান, নিহতের ভাই হুমায়ুন কবির এ ব্যাপারে পারভেজকে বিবাদী করে বুধবার রাতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। ময়নাতদন্তের জন্য গৃহবধূটির লাশ বুধবার রাতেই চাঁদপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে পারভেজকে আদালতে হাজির করা হলে বিচারক তাকে জেলহাজতে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

Recommended For You

About the Author: News Room

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *