মতলব পৌর নির্বাচনে বিজয়ের পথে মেয়র প্রার্থী লিটন

মতলব পৌরসভার নির্বাচন ২৮ ফেব্রুয়ারি রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ইভিএম এর মাধ্যমে বিরতিহীনভাবে ভোট গ্রহণ হবে। নির্বাচন সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে সকল প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে জেলা রিটানিং কর্মকর্তা।

মতলব পৌরসভা নির্বাচনে বিপুল সংখ্যক পুলিশ, আনসার, বিজিপি, র‌্যাব মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া নির্বাচনের পরিবেশ শান্তিপূর্ণ রাখার লক্ষ্যে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্র্যাটের পাশাপাশি স্ট্রাইকিং ফোর্স দায়িত্ব পালন করবে। এদিকে ২৭ ফেব্রুয়ারি শনিবার সকাল থেকেই মতলব পৌর এলাকায় চলছে র‌্যাব, বিজিবি ও পুলিশের টহল। এছাড়াও ডিবি পুলিশসহ বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থা সার্বক্ষণিক নজরদারী রাখছে নির্বাচনী এলাকা। মতলব পৌরসভায় এই প্রথমবারের মতো ইভিএমের মাধ্যমে ভোটগ্রহণ হবে।

চাঁদপুর জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. তোফায়েল হোসেন এবং মতলব উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আবু জাহের ভূইয়া জানান, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে সকল ধরনের প্রস্তুুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। এবারের নির্বাচনে মেয়র পদে লড়ছেন ৪ জন প্রার্থী। সংরক্ষিত ৩টি ওয়ার্ডে নারী কাউন্সিলর পদে ৮ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৯টি ওয়ার্ডে ৩৭ জন প্রার্থী নির্বাচনে প্রতিদ্বন্ধিতা করছেন। মতলব পৌরসভার মোট ভোটার সংখ্যা ৪৮ হাজার ৩শত ৩৯ জন। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ২৪ হাজার ১শত ২ জন এবং মহিলা ভোটার ২৪ হাজার ২ শত ৩৭ জন, কেন্দ্র সংখ্যা ২২।

মতলব পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার অফিস সূত্রে আরো জানা গেছে, ২৮ ফেব্রুয়ারি রোববার মতলব পৌরসভা নির্বাচনের জন্যে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। র‌্যাবের টিম ছাড়াও বিজিবির তিন ব্যাটেলিয়ান, আনসার এবং পুলিশ সদস্য আইন-শৃঙ্খলার কাজে নিয়োজিত থাকবেন। মতলব পৌর নির্বাচনে মোট ৯টি ওয়ার্ডের ২২টি কেন্দ্রে ৪৮ হাজার ৩শত ৩৯ জন ভোটার আজ তাদের ভোট প্রদান করবেন। ২২ কেন্দ্রের জন্যে ২২ জন প্রিজাইডিং অফিসার, ১শত ৩২টি বুথের জন্যে ১শত ৩২ জন সহকারী প্রিজাইডিং অফিসার ও ২শত ৬৪ জন পোলিং অফিসার ভোট গ্রহণ কাজে নিয়োজিত থাকবেন।

এ নির্বাচনে মেয়র পদে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী, বর্তমান মেয়র ও পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ আওলাদ হোসেন লিটন (প্রতীক- নৌকা), বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি ও সাবেক মেয়র এনামুল হক বাদল (প্রতীক- ধানের শীষ), তিনি নির্বাচনের ৬দিন পূর্বে গত ২২ ফেব্রæয়ারি নির্বাচন বর্জন করেছেন। জাতীয় পার্টি মনোনীত মেয়র প্রার্থী দেওয়ান মোহাম্মদ আলাউদ্দিন কবির (প্রতীক- লাঙ্গল), ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোঃ সফিকুল ইসলাম (প্রতীক- হাসপাখা)।

এই নির্বাচনে মেয়র পদে বৃহৎ দুই দল অর্থ্যাৎ আওয়ামী লীগ ও বিএনপির প্রার্থীগণ প্রতিক বরাদ্দের কয়েকদিন পর বিএনপির মনোনীত মেয়র প্রার্থী এনামুল হক বাদল (প্রতিক ধানের শীষ) চাঁদপুরে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করেন।

এদিকে মেয়র পদে জাতীয়পার্টি ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের প্রাথীরা মাঠে থাকলেও তাদের জনপ্রিয়তা তেমন নেই। তাই পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায় ভোটারদের সাথে আলাপ করলে নৌকার পক্ষেই ভোট দেওয়া প্রতিশুতি দেন ভোটারা । ভোটারদের দাবি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আলহাজ্ব আওলাদ হোসেন লিটন এর বিজয় হবে।

১নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী মোঃ শাহ গিয়াস (প্রতীক-ডালিম), আবুল বাশার পারভেজ (প্রতীক- টেবিল ল্যাম্প), সাফায়েত হোসেন ( ব্ল্যাক বোর্ড), সফিকুল ইসলাম মানিক (প্রতীক-পাঞ্জাবী), মোঃ মেহেদী হাসান (প্রতীক-উটপাখি), ২নং ওয়ার্ডের মোঃ মজিবুর রহমান মন্টু (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ লিয়াকত আলী সরকার (প্রতীক-টেবিল ল্যাম্প), মোঃ শাহ পরান (প্রতীক-পাঞ্চাবি), মোঃ হানিফ বকাউল (প্রতীক-ডালিম), ৩নং ওয়োর্ডের কিশোর কুমার ঘোষ (প্রতীক- টেবিল ল্যাম্প), মোঃ সারওয়ার হোসেন লিখন (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ মোস্তফা কামাল রনি (প্রতীক-ডালিম), মোঃ আল আমিন (প্রতীক-পাঞ্জাবি)।

৪নং ওয়ার্ডের মোঃ মিজানুর রহমান পাটোয়ারী (প্রতীক-পাঞ্জাবি), ওয়াহিদুজ্জামান মৃধা (ওহিদ) (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ আনিসুর রহমান আনু (প্রতীক-পানির বোতল), মোঃ ফেরদাউস আলম (প্রতীক-টেবিল ল্যাম্প), ৫নং ওয়ার্ডের মোঃ ওয়াজ উদ্দিন (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ হেলাল উদ্দিন (প্রতীক-পানির বোতল), মোহাম্মদ ফারুক কাজী (প্রতীক-ডালিম), ৬নং ওয়ার্ডের আমির খান (প্রতীক-উটপাখি), মামুনুর রশিদ (প্রতীক- টেবিল ল্যাম্প), মোঃ সাইফুল ইসলাম (প্রতীক-পাঞ্জাবি), মোঃ বিল্লাল হোসেন প্রধান (প্রতীক-পানির বোতল)।

৭নং ওয়ার্ডের পিন্টু চন্দ্র সাহা (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ আবু সাইদ দেওয়ান (প্রতীক-পাঞ্জাবি), মোঃ আহিজল মুন্সী ((প্রতীক-পানির বোতল), ৮নং ওয়ার্ডের মোঃ হেলাল উদ্দিন সরকার (প্রতীক-গাজর), মোঃ মামুন চৌধুরী (প্রতীক-পানির বোতল), মোহাম্মদ কামাল হোসেন (প্রতীক-উটপাখি), শাহাদাত (প্রতীক-ব্ল্যাক বোর্ড), হেলাল হোসেন (প্রতীক-পাঞ্জাবি), আলম প্রধানীয়া (প্রতীক- ডালিম), মোঃ শাহজাজাহান গাজী (প্রতীক টেবিল ল্যাম্প), ৯নং ওয়ার্ডের আব্দুল হাই বকাউল (প্রতীক-ডালিম), জিএম খলিলুর রহমান (প্রতীক-উটপাখি), মোঃ আনোয়ার হাজরা (প্রতীক-পাঞ্জাবি)।

সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর প্রার্থী ১, ২ ও ৩নং ওয়ার্ডের রেহানা আক্তার (প্রতীক-চশমা), দিনারা আক্তার (প্রতীক-অটোরিক্সা), ও মরিয়ম ইসলাম (প্রতীক-আনারস), ৪,৫ ও ৬নং ওয়ার্ডের জোহরা খাতুন (প্রতীক-আনারস) ও মাকসুদা আক্তার (প্রতীক-জবাফুল), ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডের মাইরিন সুলতানা (প্রতীক-অটোরিক্সা), হাজেরা আক্তার (প্রতীক-আনারস) ও সাজেদা বেগম (প্রতীক-চশমা)।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *