মিয়ানমারের সাথে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাংলাদেশ সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন,‘জাতীর পিতার জন্মশত বার্ষিকীতে এই অনুষ্ঠানে আসতে পেরে আমি নিজেকে ধন্য মনে করছি। আমি মতলবে এসেছি সেনা প্রধান হিসাবে নয় মতলবের সন্তান হিসাবে বাবার নামের হাসপাতালটি উদ্বোধন করতে। আপনারা যারা এখানে এসেছেন আমি আপনাদেরকে আন্তরিকভাবে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে সেনাপ্রধান বলেন, ‘রোহিঙ্গা ইস্যু একটি রাজনৈতিক বিষয়, এ বিষয়টি নিয়ে আমাদের সরকার মানবিকতার, আন্তরিকতা ও দায়ত্বশীলতার সাথে কাজ করছেন। মিয়ানমারের সাথে বাংলাদেশের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক রয়েছে। তাদের সাথে প্রতিনিয়ত যোগাযোগ রয়েছে, এই মূহুর্তে সীমান্ত এলাকায় কোন শংকা নেই।’

১৭ জানুয়ারি রোববার দুপুরে চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিণ টরকীতে তিনি তাঁর বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত আব্দুল ওয়াদুদ সরকার ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ হাসপাতাল উদ্বোধন শেষে এসব কথা বলেন।

সেনা প্রধান বলেন, ‘আমি একাধিকবার মিয়ানমার ভিজিটে গিয়েছি। সে সময় মিয়ানমারের সেনা প্রধান ছাড়াও তাদের নৌ ও বিমান বাহিনী প্রধানরা সেই দ্বিপাক্ষীক মিটিং এ ছিলেন। তখন আমাকে আশ্বাস দিয়েছে যে, তাদের সীমান্তবর্তী এলাকায় তাদের অভ্যন্তরীন সমস্যা থাকায় তারা অভিযান চালাচ্ছে। যার কারণে তাদের সীমান্তে মাঝে মাঝে জনবল বৃদ্ধি করছে। এতে করে তাদের সাথে যে বাংলাদেশের বন্ধুপ্রতিম সম্পর্ক রয়েছে, এই বিষয়টা যেন অন্যভাবে চিন্তা না করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়।’

তিনি আরও বলেন,করোনা কালীন সময়ে রাষ্ট্রের প্রয়োজনে যখন আমাদের সহযোগিতা চাওয়া হয় তখন আমরা জীবনকে বাজি রেখে সমগ্র দেশে কাজ করেছি। এ ছাড়াও দেশের যে কোন প্রয়োজনে সরকার কর্তৃক প্রদত্ত দায়িত্ব পালনে আমরা সর্বদা প্রস্তুত।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, স্থানীয় সাংসদ এ্যাড. নুরুর আমিন রুহুল, চাঁদপুরের জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ,পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান পিপিএম বার, জেলা আওয়া মীলীগের সাধারণ সম্পাদক আবু নঈম পাটোয়ারী দুলাল, চাঁদপুরের সিভিল সার্জন শাখাওয়াত উল্যাহ,মতলব উত্তর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা এমএ কুদ্দুস, মতলব উত্তর উপজেলা নির্বাহী অফিসার স্নেহাশীষ দাস,বিশিষ্ট সমাজ সেবক আনিস আহমেদ, কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা এম ইসফাক আহসান, মতলব উত্তর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা নুশরাত জাহান মিথেন, ওসি নাছির উদ্দিন মৃধাসহ সেনা বাহিনী, প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার গন্যমান্যরা উপস্থিত ছিলেন। হেলিকাপ্টারে করে তিনি উপজেলার সুলতানাবাদ ইউনিয়নের দক্ষিন টরকীতে উপস্থিত হন।

পরে তিনি তাঁর বাবার নামে প্রতিষ্ঠিত আব্দুল ওয়াদুদ সরকার ১০ শয্যা বিশিষ্ট মা ও শিশু কল্যাণ হাসপাতাল উদ্বোধন করেন। উদ্বোধন শেষে হাসপাতাল প্রাঙ্গনে গাছের চারা রোপন করেন।

Recommended For You

About the Author: News Room

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *