যুদ্ধকালীন সময়ে রব বাহিনীর নাম শুনলে হানাদার বাহিনী ভীতসন্তস্ত্র হয়ে পড়তো : অ্যাড. জাফর ইকবাল মুন্না

অ্যাড. জাফর ইকবাল মুন্নার পিতা: সুবেদার (অব:) আবদুর রব (আটিলারী বিভাগ)। অ্যাড. জাফর ইকবাল মুন্না বলেন, আমার বাবা মুক্তিযুদ্ধের সময় পাকিস্তান থেকে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তান তথা বাংলাদেশে এসে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে চাঁদপুর সরকারি মহিলা কলেজে মুক্তিযাদ্ধাদের প্রশিক্ষণ দেয়া শুরু করেন এবং চাঁদপুর জেলাসহ লাকসাম এবং রায়পুর উপজেলার মুক্তিযোদ্ধাদের প্রশিক্ষণ ও প্রশিক্ষণ পরবর্তী অপারেশনের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।

এসময় আমার বাবা চাঁদপুর, লাকসাম এবং রায়পুরে সকল যুদ্ধের সফল নেতৃত্ব দেন। যুদ্ধকালীন সময়ে রব বাহিনীর নাম শুনলে হানাদার বাহিনী ভীতসন্তস্ত্র হয়ে পড়তো। আমার বাবার অনেকগুলো সফল অপারেশনের মধ্যে ‘চিতশি যুদ্ধ’ অন্যতম একটি। এসময় তিনি পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীর হাত থেকে ২৬ জন বিবস্ত্র-নির্যাতিত নারীকে উদ্ধার করেন। যুদ্ধের সময়ে চাঁদপুরের ৭ টি ব্যাংকের চাবি আমার বাবার কাছে আমানতস্বরূপ গচ্ছিত ছিল।পরবর্তীতে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর তিনি তা সরকারের কাছে হস্তান্তর করেন।

তিনিই প্রথম চাঁদপুরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ গঠন করেন এবং (১৯৭২-৭৬) প্রতিষ্ঠাতা কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে ১৯৯০ সালের পর মুক্তিযাদ্ধা সংসদের মৃত্যুর আগ পর্যন্ত বিভিন্ন দায়িত্বে কর্মরত ছিলেন। সারা জীবন সততার সাথে জীবন যাপন করা এই মানুষটি ২০০৮ সালে চাঁদপুর সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ করেন।

শেয়ার করুন: