রাত পোহালেই হাজীগঞ্জে বর্তমান ও সাবেক দুই মেয়রের ভাগ্য নির্ধারণ

আনোয়ারুল হক:

হাজীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে দুই মেয়র প্রার্থী আওয়ামী লীগের মনোনীত নৌকা প্রতীকের বর্তমান মেয়র আ স ম মাহবুব-উল আলম লিপন ও ধানের শীষের মনোনীত প্রার্থী সাবেক মেয়র আ. মান্নান খান বাচ্চু। ৩০ জানুয়ারি শনিবার বর্তমান ও সাবেক এ দুই মেয়রের ভাগ্য নির্ধারণ কে হচ্ছেন নগর পিতা।

নির্বাচন সুষ্ঠ করার লক্ষে ২ প্লাটুন বিজিবি ও ২ প্লাটুন র‍্যাব মোতায়েন করা হবে। পাশা-পাশি থাকবে পুলিশের একাধিক টিমসহ স্ট্রাইকিং ফোর্স।

হাজীগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে ভোটের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে জানান জেলা প্রশাসক অঞ্জনা খান মজলিশ। তিনি চাঁদপুর টাইমসকে জানান সুষ্ঠভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে সকল প্রস্তুতি ইতিমধ্যে সম্পন্ন করা হয়েছে।

র‍্যাব,বিজিবি,পুলিশ ও স্ট্রাইকিং ফোর্সেও পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ঠিক রাখতে ১২জন এক্সকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট প্রদান করা হয়েছে। তারা নির্বাচনের দিন দায়িত্ব পালন করবেন।

হাজীগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. ওবায়েদুর রহমান জানান, নির্বাচনের সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রিসাইডিং অফিসারদের ট্রেনিং সম্পন্ন হয়েছে। ইতিমধ্যে আসবাবপত্র কেন্দ্রে কেন্দ্রে পৌঁছে গেছে, তবে ব্যালট পেপার ভোটের দিন সকালে কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়া হবে।

তিনি বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করতে প্রত্যেক কেন্দ্রে পর্যাপ্ত বিজিবি, র‍্যাব ও পুলিশ মোতায়েন থাকবে। ভোটের দিন নিরাপত্তার থাকবে হাজীগঞ্জ পৌরসভা।

তিনি আরও বলেন,২০ কেন্দ্রের মধ্যে ১৬টি কেন্দ্রেই ঝুঁকিপূর্ণ। প্রার্থীদের সমন্বয় থাকলে কোন কেন্দ্রই ঝুঁকিপূর্ণ থাকবেনা। আমারা সকলের সমন্বয়ে সুষ্ঠু, সুন্দর একটি নিরপেক্ষ নির্বাচন উপহার দিতে প্রস্তুত রয়েছি।

জেলা প্রশাসক (ডিসি) অঞ্জনা খান মজলিশ বলেন, নির্বাচনী পরিবেশ সুষ্ঠু রাখতে আমরা বদ্ধপরিকর। যেকোন উদ্ভুট পরিস্থিতিতে আমরা কঠোর হবো।

পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান জানান, সাড়ে ৩’শ পুলিশ, ১২টি মোবাইল টিম, ২ প্লাটুন বিজিবি ও ২ প্লাটুর র‍্যাব নিরাপত্তার দায়িত্বে সার্বক্ষিণ নিয়োজিত থাকবে। তাছাড়া প্রত্যেক কেন্দ্রে ৩ স্তরের নিরাপত্তা থাকবে। অতিরিক্ত হিসেবে থাকবে স্ট্রাইকিং ফোর্স।

জানা যায়, হাজীগঞ্জ পৌরসভায় মোট ভোটার ৪৫ হাজার ৩শ ৮৪ জন। ১২ ওয়ার্ডের ২০ টি কেন্দ্রে আগামি ৩০ জানুয়ারি ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে ২ জন, সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ১৫ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫২ জনসহ মোট ৬৯ জন প্রার্থী ভোটের মাঠে লড়ছেন।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *