শাসকের পরিবর্তনে নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে:জিএম কাদের এমপি

আনোয়ারুল হক ॥

জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান,সাবেক মন্ত্রী ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি বলেছেন, জাতীয় পাটি সন্ত্রাস নৈরাজ্য ও আন্দোলনের নামে জ্বালাও পোড়াও রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। জাতীয় পাটি সকল অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার এবং সকল অনিয়মের বিরুদ্ধে সংসদে এবং রাজপথে প্রতিবাদ করে আসছে।

তিনি বলেন, জাতীয় পাটি জনগণের ছিনতাই হওয়া অধিকার ফিরে পেতে এবং শাসকের পরিবর্তনের জন্য কাজ করতে হবে। এজন্য জাতীয় পাটির সকল স্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে হবে।

গোলাম মোহাম্মদ কাদের এমপি ১১ জুন শনিবার সকাল ১০ টায় চাঁদপুর শহরের শহীদ মুক্তিযোদ্ধা সড়কস্হ হাসান আলী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে চাঁদপুর জেলা জাতীয় পাটির দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথা গুলো বলেন ।

চাঁদপুর জেলা জাতীয় পাটির আহবায়ক আলহাজ্ব মোঃ এমরান হোসেন মিয়ার সভাপতিত্বে ও জাতীয় পাটি কেন্দ্রীয় কমিটির প্রাদেশিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ খোরশেদ আলম খুশুর পরিচালনায় উক্ত সন্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন জাতীয় পাটির মহাসচিব ও সাবেক মন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু এমপি।

সন্মলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিরোধীদলীয় উপনেতা ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান গোলাম মোহাম্মদ কাদের বলেন, বাংলাদেশের রাজনীতি এখন আগের মতো নেই। বাংলার শাসক পরিবর্তন করতে গেলে, মানুষ ঠিকমতো ভোট দিতে ভোট কেন্দ্রে যেতে পারে না। আবার ভোট কেন্দ্রে গেলে ভোট নিজের ভোট নিজে প্রদান করতে পারে না। দেশের জনগনের মালিকানা আজ ছিনতাই হয়ে গেছে। সেই ছিনতাই হওয়া অধিকার ফিরিয়ে দিতে ও দেশের শাসক পরিবর্তনের জন্য জাতীয় পার্টিকে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় দরকার।

জি এম কাদের বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতীয় পাটি সারা দেশে ৩০০ আসনে প্রার্থী দেয়ার লক্ষ্যে কাজ শুরু করেছে। আমাদের টার্গেট হচ্ছে আগামীতে দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় অধিষ্ঠিত হওয়া। সেই টার্গেট নিয়ে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এজন্য জাতীয় পাটির সকল স্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি আমার আহবান থাকবে, কে কত বড় নেতা বা কে কোন পদ পেলো সেটি বড় কথা নয়, আমরা সবাই দলের কর্মী এটি ভেবেই আমাদের কাজ করতে হবে। আমাদের মধ্যে নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা থাকতে পারে কিন্তু কোনো প্রতিহিংসার রাজনীতি থাকতে পারবে না। কারণ জাতীয় পাটি হানাহানি, সন্তাস নৈরাজ্য ও জ্বালাও পোড়াও রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। এ বিষয়ে সকলকে সজাগ থাকতে হবে। এবং ঐক্যবদ্ধ নেতৃত্বে আমরাই করবো আগামীর প্রজন্মের বাসযোগ্য অর্থনৈতিক স্বনির্ভর বাংলাদেশ।

তিনি আগামী নির্বাচনে জাতীয় পাটি কে একটি শক্তিশালী রাজনৈতিক সংগঠনে রুপান্তর করার আহবান জানান এবং বলেন, আগে আমাদের শক্তির সঞ্চার করতে হবে এরপর আমরা কার সাথে জোট করবো কী করবো না সেই বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিবো। আগামীতে আওয়ামী লীগ বা বিএনপির সাথে জোট করবো, না কী নিজেরাই আলাদা জোট করবো সেটি পরিস্থিতি ও সময় বলে দেবে।

সন্মলনে প্রধান বক্তার বক্তব্যে রাখেন সাবেক মন্ত্রী ,জাতীয় পার্টির মহাসচিব মজিবুল হক চুন্নু এমপি বলেন, আগামী নির্বাচন হলো স্বাধীনতার পর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ প্রেক্ষাপট। তাই এ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে জাতীয় পাটি কে নিয়ে যে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এই ষড়যন্ত্রের বিষয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের সর্তক নজর রাখতে সকল দ্বিধা দ্বন্দ্ব ভুলে গিয়ে নেতাকর্মীদের কাজ করার আহবান জানান।

সন্মলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি, প্রেসিডিয়াম সদস্য গোলাম কিবরিয়া টিপু, প্রেসিডিয়াম সদস্য ব্যারিস্টার শামিমুল হায়দার পারভেজ পাটোয়ারী, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অতিরিক্ত মহাসচিব অ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, প্রেসিডিয়াম সদস্য ও অতিরিক্ত মহাসচিব ঢাকা বিভাগ লিয়াকত হোসেন খোকা, প্রেসিডিয়াম সদস্য নাজমা আক্তার, জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য আলমগীর শিকদার লোটন, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান বৈদেশিক বাণিজ্য বিষয়ক উপদেষ্টা শেখ সাজ্জাদ রশিদ সুমন, চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক উপদেষ্টা মনিরুল ইসলাম মিলন, সাবেক এমপি ডাঃ শহিদুল ইসলাম, সাবেক এমপি মাওলানা ইলিয়াস, কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব বেলাল হোসেন।

মাওলানা জাকির হোসেন হিরুর পবিত্র কুরআন তেলওয়াতের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের শুরু হয়। এরপূর্বে জাতীয় পতাকা উওোলন করেন দলের চেয়ারম্যান জিএম কাদের এমপি ও দলীয় পতাকা উওোলন করেন দলের মহাসচিব সাবেক মন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু এমপি, এরপর সাংগঠনিক রিপোর্ট পেশ করেন জেলা জাতীয় পাটির যুগ্ম আহবায়ক শওকত আখন্দ আলমগীর। সন্মলনে বক্তব্য রাখেন জেলা জাতীয় পাটির যুগ্ম আহবায়ক অ্যাডঃ আঃ লতিফ শেখ, , জেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম আহবায়ক এমদাদুল হক রুমন, পৌর জাতীয় পার্টির আহবায়ক শাহআলম মিজি, সদস্য সচিব ফেরদৌস খান, জেলা যুব সংহতির সদস্য সচিব হান্নান ঢালী, জেলা জাতীয় ছাত্র সমাজের সদস্য সচিব শরীফ হোসেনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে জাতীয় পাটির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধী দলীয় উপনেতা জিএম কাদের কে ফুলেল শুভেচ্ছা দিয়ে বরন করে নেন জেলা জাতীয় পাটির আহবায়ক এমরান হোসেন মিয়া ও সদস্য গোলাম মোস্তফা।

সন্মলনে একক সভাপতি প্রার্থী আলহাজ্ব মোঃ এমরান হোসেন মিয়া কে সভাপতি হিসেবে ঘোষণা করা হয়। আর সাধারণ সম্পাদক পদে আগামী ১ সপ্তাহের মধ্যে ঘোষণা করা হবে বলে দলের মহাসচিব সাবেক মন্ত্রী মজিবুল হক চুন্নু এমপি সন্মেলন স্হলে ঘোষণা করা হয়।
উল্লেখ্য দীর্ঘ ১ যুগ পর চাঁদপুর জেলা জাতীয় পাটির এই সন্মলন কে কেন্দ্র করে সকাল থেকেই জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে জাতীয় পাটির ব্যানারে নানা রং বেরংয়ের ব্যানার পেস্টুন, গেঞ্জি ক্যাপ পরিধান করে দলীয় নেতা কর্মীরা উৎসবর মুখর পরিবেশে বিভিন্ন বাদ্য যন্ত্র বাজিয়ে সন্মেলন স্হলে আসে। তবে সন্মলনে ফরিদগঞ্জ আসনের সম্ভাব্য এমপি প্রার্থী জাতীয় পাটির চেয়ারম্যানের বৈদেশিক বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক শেখ সাজ্জাদ রশীদ সুমনের মিছিলটি সকলের নজর কেড়েছেন। শুধু তাই নয়, সন্মেলনে গেঞ্জি ক্যাপ পরিধান করে ফরিদগঞ্জ থেকে আগত প্রায় ৭ শতাধিক নেতাকর্মীরা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সরব উপস্থিতি সকলের নজর কেড়েছেন।

শেয়ার করুন: