ষড়যন্ত্রকারীরা মানবতার অপরাধী হয়েও মায়া কান্না করছে : শিক্ষামন্ত্রী

হাসান আল মামুন ॥

শিক্ষামন্ত্রী ডা:দীপু মনি এমপি বলেছেন, ৭৫’ এর ১৫ আগস্টে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর ষড়যন্ত্রকারীরা মনে করেছিলো এদেশ থেকে আওয়ামী লীগের নাম ও নিশায়া মুছে ফেলবে। আজ ভয়াল গ্রেনেড হামলার দিন।২০০৪ সালের এই দিনে বিএনপি জামায়াতের প্রত্যক্ষ অংশ গ্রহণে তাদের নির্দেশনা এই নৃশংস হত্যা কান্ড সংঘটিত হয়েছিল। ঘাতক গোষ্ঠী চেয়েছিল ৭৫ এ যে কাজটি তারা অসমাপ্ত রেখেছে এই গ্রেনেড হামলার মধ্য দিয়ে শেখ হাসিনাকে হত্যা করে সেই অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত এবং পুরো আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করবে।

একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলায় নিহত শহীদদের স্মরণে চাঁদপুর পৌর আওয়ামী লীগের আয়োজনে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে আলোচনা সভায় রোববার (২১ আগষ্ট) সন্ধ্যা ৬টায় মুঠোফোনে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

তিনি এই ঘৃণ্য হত্যাকাণ্ডের সাথে যারা প্রত্যক্ষভাবে জড়িত তাদের পাশাপাশি হত্যাকাণ্ডের কুশীলব তাদের বিচার যেন সুষ্ঠুভাবে হয়, সকলকে আইনের আওতায় আনা হয় তার দাবি জানান।
মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে অতীতের সকল জঞ্জাল দূর করে বঙ্গবন্ধুর দেখানোর পথে বাংলাদেশ অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে চলেছে। সামনেই আমাদের জাতীয় নির্বাচন। ৭১ ৭৫ ২০০৪ ২০১৩-১৪ সালের সেই ঘাতক গোষ্ঠী ষড়যন্ত্রকারী অগ্নিসন্ত্রাসকারীরা আবার তৎপর হয়ে উঠেছে।তারা নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ এবং বানচাল করার জন্য এবং বাংলাদেশের অগ্রযাত্রাকে রুদ্র করে দিতে নানান তৎপরতায় লিপ্ত রয়েছে। তারা আন্দোলন সংগ্রামের নামে গণতন্ত্রের জন্য নিজেরা মানবতার অপরাধী হয়েও মানবাধিকার নিয়ে মায়া কান্না করছে। আবার তারা দেশে অস্থিতিশীল নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে চায়।

দীপু মনি বলেন, আমি আশা করব আওয়ামী পরিবারের প্রতিটি সদস্য তারা সবাই ঐক্যবদ্ধ থাকবে। আমাদের মধ্যে ব্যক্তিগত চাওয়া পাওয়া নিয়ে মত দ্বৈততা থাকতে পারে। আমাদের মধ্যে ব্যক্তিগত পছন্দ অপছন্দ থাকতে পারে কিন্তু বঙ্গবন্ধুর প্রশ্নে বঙ্গবন্ধুর কন্যার প্রশ্নে বাংলাদেশের এগিয়ে যাবার প্রশ্নে আমাদের মধ্য কোন ধরনের মত দ্বৈততা থাকবার সুযোগ নেই। তাই আমাদেরকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে এবং সবাই মিলে আমরা বঙ্গবন্ধুর কন্যার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাব। আগামী নির্বাচনে নৌকাকে বিজয়ী করবো তার মধ্যে দিয়ে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখবো। আজকের এই দিনে এই হোক আমাদের প্রত্যয়।

তিনি সকল ধরনের অপশক্তিকে যারা হত্যা অপরাজনীতি করে এবং বাংলাদেশকে যারা পাকিস্তান বানাতে চায় যারা মানবাধিকার লংঘন করে তাদের বিষয়ে আওয়ামী পরিবারের প্রতিটি সদস্যকে এ ব্যাপারে সজাগ সচেতন এবং সতর্ক থাকারর আহবান জানান।

ডাঃ দীপুমনি তাঁর বক্তব্যের শুরুতে বঙ্গবন্ধু সহ ৭৫ এ নিহত তার শহীদ পরিবারের সকল সদস্যদের এবং একুশে আগস্ট ভয়াবহ গ্রেনেড হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান।

আলোচনা সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ ইউসুফ গাজী তার বক্তব্যে বলেন, আওয়ামী লীগকে নেতৃত্বশূন্য করতেই বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সহায়তায় নৃশংস ওই হত্যাকাণ্ড হয়েছিল। কোনো সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা ছাড়া এ জাতীয় ঘটনা ঘটতে পারে না। তাদের লক্ষ্য ছিল জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা করা,আওয়ামী লীগকে নিশ্চিহ্ন করা।

তিনি বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশের জন্য আর চাঁদপুরের জন্য ডাঃ দীপু মনি অপরিহার্য।

পৌর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আমিনুর রহমান বাবুলের সভাপতিত্বে ও প্রচার সম্পাদক এমরান হোসেন সেলিমের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন চাঁদপুর জেলা আওয়ামীলীগের জেলা আওয়ামীলীগের কৃষি বিষয়ক সম্পাদক অজয় কুমার ভৌমিক,জেলা আওয়ামী লীগের উপ প্রচার সম্পাদক হাসান ইমাম বাদশ,জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভানেত্রী, অধ্যাপিকা মাসুদা নুর খান,জেলা আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা সদস্য এসএম সালাউদ্দিন,সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারন সম্পাদক আলী এরশ্বাদ মিয়াজী, সাংগঠনিক সম্পাদক আইয়ুব আলী বেপারী,জেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মাহফুজুর রহমান টুটুল,মোহাম্মদ আলী মাঝি,পৌর আওয়ামীগের সদস্য অ্যাডঃ সাইফুদ্দিন বাবু,মোজাহের হোসেন খান টিপু।

এছাড়া বক্তব্য রাখেন, চাঁদপুর যুব মহিলা লীগের সভাপতি ফরিদা ইলিয়াছ,পৌর যুবলীগের আহবায়ক আঃ মালেক শেখ,সদর উপজেলা যুবলীগের আহবায়ক অ্যাডঃ হুমায়ুন কবির সুমন,পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা,সাধারণ সম্পাদক রবিন পাটওয়ারী প্রমুখ।
চাঁদপুর পৌরসভার মেয়র জিল্লুর রহমান জুয়েল,জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক তাফাজ্জল হোসেন এসডু পাটওয়ারী,অ্যাডঃ মজিবুর রহমান ভূঁইয়া,ফরিদগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অ্যাডঃ জাহিদুল ইসলাম রোমান,পৌর আওয়ামীলীগের সদস্য সঞ্জিব পোদ্দার,জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ আঃ মোতালেবসহ আওয়ামী লীগ ও অংগসংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মি উপস্থিত ছিলেন।

শেয়ার করুন: