সবাই সচেতন হলে অগ্নিকান্ড কমে আসবে:জেলা প্রশাসক

মাসুদ রানা ॥

চাঁদপুরে ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের “ফায়ার সপ্তাহ” উদ্বোধনী অনুষ্ঠান এবং আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১৫ নভেম্বর সকাল ১১টায় ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের আয়োজনে কার্যালয়ের সামনে জাতীয় পতাকা এবং জাতীয় সংগীত পরিবেশনের মাধ্যমে এ অনুষ্ঠানের শুভ সুচনা করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান। তিনি বলেন, আমরা যেমন প্রস্তুত থাকার জন্য প্রস্তুতি গ্রহন করি কিন্তু ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা সবসময় প্রস্তুতি নিয়েই থাকে। আমরা যদি শুরু থেকেই একটু সচেতন থাকি তাহলে কিন্তু বড় কোন দুর্ঘটনা থেকে আল্লাহ আমাদের রক্ষা করে। একটু গভীর ভাবে চিন্তা করে দেখলেই বুঝা যায় যে, আমরা যখন বাসস্থান তৈরি করি, তখন একটু খরচ বাঁচানোর জন্য লোড অনুযায়ী ক্যাবল ব্যবহার করিনা, যার জন্য পরবর্তীতে বেশি গরমের কারণে এসি লাগাতে হয়,আবার ওয়াসিং মেশিন লাগাতে হয়, কুলার লাগাতে হয়, প্রয়োজনে গিজার মেশিন লাগাতে হয় তখন কিন্তু আর সেই পূর্বের ক্যাবল আর পরিবর্তন করা হয়না বা যায়না। এই ধরনের কারণ থেকেও অগ্নুৎ্পাতের সৃষ্টি হয়। এমন আরও অনেক কারণ আছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা যদি স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীদের এই ধরনের সচেতনতা মূলক প্রোগ্রাম করতে পারি তাহলে এই ধরনের অগ্নিকান্ড অনেকাংশে কমে আসবে বলে আমি মনে করি। আমরা সচেতন হতে পারলেই এই ধরনের অগ্নুৎপাত কমবে।

চাঁদপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের উপ সহকারী পরিচালক এবং উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সভাপতি সাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এবং সিনিয়র ষ্টেশন অফিসার রবিউল আল আমীনের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সুদীপ্ত রায়, প্রেস ক্লাবের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন মিলন।

এসময় বক্তারা বলেন, ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা শুধু আগুন নিভানোর কাজ করেনা, তারা মানবতার কাজ করে, তারা কিন্তু কোন বিয়ের অনুষ্ঠানে, জন্মদিনের অনুষ্ঠানে, আনন্দের অনুষ্ঠানে যেতে পারেনা, তারা তাদের দায়িত্বে অটল থাকে। তাই আমাদের জায়গা থেকে সচেতন হতে হবে। তাহলে এই ভয়াবহ অগ্নিকান্ড থেকে আল্লাহ আমাদের রক্ষা করবেন। আমাদের বাড়িঘর গুলো তৈরি করার সময় যেন আমরা ফায়ার সার্ভিসের রিকমান্ড নিয়ে, নিদৃস্ট মাপকাঠি নিয়ে তৈরি করি। কথায় বলে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা শুধু খায় আর ঘুমায়, আমি বলবো আপনারা সবাই দুহাত তুলে দোয়া করবেন ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের যেন কোন কাজ করতে না হয়, কারণ আমরা কাজে বের হওয়া মানেই হল কোন বাবা, মা, ভাই, বোনের আহাজারি। আল্লাহ যেন এরকম না করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন হাফেজ মোঃ হাবিবুর রহমান। এবং আলোচনা শেষে ফায়ার কর্মীদের পরিচালনায় সুন্দর একটি অগ্নি প্রতিরোধী ও প্রাকৃতিক দুর্যোগে করনীয় সমন্ধে বিষয়ে মহড়া প্রদর্শন করা হয়।

শেয়ার করুন: