সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ইসলামের ভূমিকা অনস্বীকার্য : নুরুল আমিন রুহুল এমপি

মনির আক্তার মনি :

মতলব উত্তর উপজেলার দশানী আল আমিন বোরহানুল উলুম দাখিল মাদ্রাসার উদ্যোগে এলাকাবাসীর সহযোগিতায় সাইয়্যেদিনা হযরত খিজির (আ.) হাফেজিয়া মাদ্রাসার ছাত্রদের পাগড়ী প্রদান উপলক্ষে ওয়াজ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার রাতে মাদ্রাসা মাঠে ওয়াজ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- চাঁদপুর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট আলহাজ্ব মো. নুরুল আমিন রুহুল।

তিনি বলেন, সমাজে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ইসলামের ভূমিকা অনস্বীকার্য। ইসলামে কোনো বৈষম্য নেই। উঁচু-নীচ, বিশেষ-অবিশেষের নামে কোনো অসমতা ও শ্রেণীবিভেদও সমর্থন করে না। আর এ কারণেই ধর্ম হিসেবে একমাত্র ইসলাম মানবাধিকার, নাগরিক অধিকার, ন্যায়বিচার, আইনের শাসন, শিক্ষা ও চিকিৎসাসহ বাসস্থানের নিশ্চয়তা দিতে পেরেছে। সৃষ্টিগত ভাবে সবাই শান্তি প্রত্যাশী।

তিনি আরো বলেন, জীবনাকাশে অশান্তির কালো মেঘের ঘনঘটা কেউ দেখতে চায় না, কিন্তু চাইলেই কি আর শান্তি মেলে? শান্তিপূর্ণ সমাজ ব্যবস্থার খোঁজে বিশ্ববাসী আজ ব্যস্ত। সৃষ্টির শুরু থেকেই যুগে যুগে অনেকেই শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য নানা পদক্ষেপ নিয়েছেন ও কর্মসূচি দিয়েছেন, কিন্তু তাদের সেসব প্রচেষ্টা মানবজীবনের সব ক্ষেত্রে বিস্তৃত ছিল না। যেমনটি ছিল হজরত রাসুলুল্লাহর (সা.) শান্তি মিশন। তিনি মানুষের সামগ্রিক জীবনের প্রতিটি ধাপে কীভাবে শান্তি প্রতিষ্ঠা করা যায়, সে চিন্তায় কর্মপদ্ধতি প্রদান করে গেছেন। সমকালীন মানুষসহ কিয়ামত অবধি আগত মানুষকে তিনি দিয়ে গেছেন কাক্ষিত শান্তির সন্ধান। মানুষের সামনে উন্মোচিত করেছেন ইহলৌকিক ও পারলৌকিক শান্তির আলোকিত দিগন্ত। মানবজীবনে যেসব পথে অশান্তি আসতে পারে, তিনি সেগুলো বন্ধ করার জন্য চেষ্টা করেছেন। অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে তিনি দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে ঘোষণা করেছেন।

দশানী আল-আমিন বোরহানুল উলুম দাখিল মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি আলহাজ্ব মো. মোফাজ্জল হায়দার এর সভাপতিত্বে সুপার মাওলানা হাবিবুল্লাহ সরকারের পরিচালনায় ওয়াজ মাহফিলে প্রধান পৃষ্ঠপোষক ছিলেন আলহাজ্ব মো. নজরুল ইসলাম, আলহাজ্ব আইয়ুব আলী মোল্লা, পুলিশ পরিদর্শক এসএম কামরুজ্জামান, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল হাকিম মিয়াজী, কলাকান্দা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক গোলাম কাদির মোল্লা, আওয়ামী লীগ নেতা বোরহান উদ্দিন সরকার, যুবলীগ নেতা মনির হোসেন। দোয়া পরিচালনা করেন হাসিমপুর দরবার শরীফের পীর মাওলানা আশফাক আহমদ।

বয়ান করেন- ড. মুফতি আল্লামা এহসানুল হক জিহাদী মুজাদ্দেদী, মাওলানা হাফেজ বদিউজ্জামান বাহার, মাওলানা মুফতি হাবিবুর রহমান, মাওলানা মনিরুজ্জামান।

অনুষ্ঠানের সহ-সভাপতিত্ব করেন আলহাজ্ব ওয়ালী উল্লাহ সরকার। মাহফিল উপস্থাপনা করেন হাফেজ মাওলানা মো. মেহরাব হোসেন, মাওলানা মো. হাবিবুর রহমান, মাওলানা আব্দুস সালাম।

Recommended For You

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *