সর্বক্ষেত্রে ডিজিটালাইজেশন হলে দ্রুত দুর্নীতি কমে আসবে : জেলা প্রশাসক

মাসুদ রানা ॥

উদ্ভাবনী জয়োল্লাসে স্মার্ট বাংলাদেশ” এই শ্লোগান কে সামনে রেখে চাঁদপুর সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে দিনব্যাপি ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯( নভেম্বর) সকাল ১১টায় উপজেলা পরিষদের হলরুমে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বলেন, ২০০৯ সালে যখন আমার ডিজিটাল বিপ্লব শুরু হয়, তখন মানুষ ডিজিটালাইজেশন নিয়ে ঠাট্টা করতো। কিন্তু এখন বাংলাদেশে এমন কোন জায়গা নেই যেখানে ডিজিটালাইজেশন নেই। ইন্টারনেট আসছে ১৯৬৯ সালে আর বাংলাদেশে শুরু হয়েছে ১৯৯৬ সালে। যে ব্যাক্তি ফেইসবুক, হোয়াটসঅ্যাপ, ইমো, টুইটার ইউজ করে বা এগুলো বলতে পারে সেই এখন ডিজিটাল। আগে ছিলো বাংলাদেশে ইন্টারনেট সেবা নিতে গেলে আমাদের দেশের তথ্য অন্য দেশ নিয়ে যাবে আর এখন আমরা ইন্টারনেট ছাড়া কিছু চিন্তাই করতে পারছিনা। করোনা কালিন সময়ে সাড়া বিশ্বের ক্ষতি হয়েছে কিন্তু আমাদের দাপ্তরিক কাজ চলেছে এই ডিজিটালাইজেশনের মাধ্যমে।

তিনি আরও বলেন , আমাদের যে ৪র্থ শিল্প বিপ্লব হবে, এর একটি প্রক্রিয়া এরকম বলেছে যে ২০২৫ এসে ১০ শতাংশ মানুষের গায়ের পোশাক এবং চশমায় ইন্টারনেট সংযোগ থাকবে। তখন বেশিরভাগ মানুষ যন্ত্রের মাধ্যমে কাজ করবে। ওই সময় কর্মকর্তা -কর্মচারিরা অফিসের কাজে ফাঁকি দেয়ার আর সুযোগ থাকবে না। তখন ডিজিটাল একটা যন্ত্র দশজন মানুষ ছাটাই করবে।

জেলা প্রশাসক বলেন, বিশ্ব বিশ্বাস করে সর্বক্ষেত্রে ডিজিটালাইজেশন হলে পৃথিবী থেকে অন্তত ৮০ ভাগ দুর্নীতি কমে যাবে।বাড়বে কাজের গতি । নতুন নতুন উদ্ভাবনী শক্তি ধাপে ধাপে বিশ্বকে আরো এগিয়ে নিবে। সেজন্যে আমাদেরকে বিজ্ঞান মনস্ক চিন্তা ভাবনায় আরো দ্রুত এগিয়ে যেতে হবে।

সদর উপজেলা (ভারপ্রাপ্ত) নির্বাহী অফিসার মোঃ হেদায়েত উল্যাহর সভাপতিত্বে এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারের গোপনীয় সহকারী (সিএ) মোঃ মামুনুর রশীদের পরিচালনায় আরওবক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ নুরুল ইসলাম নাজিম দেওয়ান, ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ আইয়ুব আলী বেপারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আবিদা সুলতানা, ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের সহকারী পরিচালক সাজেদা বেগম পলিন প্রমুখ। মেলায় জেলা প্রশাসক কামরুল হাসান বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।

শেয়ার করুন: